২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নৌপথ ব্যবহার করে সড়কে চাপ কমানো হবে ॥ নৌমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, দেশের নৌপথকে ব্যবহার করতে হবে। নৌপথ ব্যবহার বৃদ্ধি করলে একদিকে যেমন সড়কের ওপর চাপ কমবে অপরদিকে মানুষ নিরাপত্তার সঙ্গে কম খরচে যাতায়াত করতে পারবে। এজন্য দেশের বিভিন্ন এলাকার বন্ধ থাকা নৌবন্দরগুলো নতুন করে চালু করাসহ নতুন নতুন নৌবন্দর তৈরি করা হচ্ছে। দেশের নৌবন্দরগুলো চালু হলে শুধু মানুষ যাতায়াতই নয় স্বল্প খরচে মালামাল বহন করা সম্ভব হবে। দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সকল পদক্ষেপ নিয়েছেন। ইতোমধ্যে দেশের বৃহত্তম নদী খননের কাজ সিরাজগঞ্জে হচ্ছে। এ পাইলট প্রজেক্টের কাজ শেষ হলে এরই ধারাবাহিকতায় দেশের অন্যান্য এলাকাতেও এই কাজ করা হবে। দেশের নদীগুলোকে খনন করে চলাচলের উপযোগী করার পরিকল্পনাও বর্তমান সরকারের আছে। শনিবার দুপুরে সিরাজগঞ্জের শহর রক্ষা বাঁধ হার্ড পয়েন্ট এলাকায় নদী সংরক্ষণ বাঁধ ও নতুন নৌ-বন্দর স্থাপনের স্থান পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকের সাথে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তা ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক বন্দোবস্তকারী ইউনিয়ন কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। জেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সোহরাব আলীর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, জেলা স্বার্থরক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক ডাঃ জহুরুল হক রাজা, সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি আবুল হোসেন, ফজলুল মতিন মুক্তা, ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম প্রমুখ।

চকরিয়ায় খুলে গেছে রাবার ড্যামের জয়েন্ট

চাষাবাদ ব্যাহতের আশঙ্কা

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ চকরিয়ায় নির্মিত পালাকাটা রাবার ড্যামের জয়েন্ট খুলে যাওয়ায় পানি ঢুকিয়েও ফুলানো যাচ্ছে না ড্যামের রাবার। ফলে চলতি মৌসুমে কৃষকদের মধ্যে সেচ সুবিধা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। স্থানীয় চিরিঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন জানান, গত জুন-জুলাই মাসের বন্যার সময় পানির প্রবল ধাক্কায় ড্যামের রাবার খুলে গেছে। এ পর্যন্তও মেরামত না হওয়ায় চাষীরা দিশেহারা হয়ে পড়ছে। রোরো মৌসুম ঘনিয়ে এলে নদীর মিঠা পানির প্রবাহ আটকাতে গিয়ে ড্যামটি ফুলানোর সময় বিষয়টি আঁচ করতে পারেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা। সম্প্রতি ড্যামটি সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ।