২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র কাউন্সিলর নির্বাচিত

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ বাছাই পর্বে অনেক স্থানে মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ায় কোন কোন পৌরসভায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী। স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর :

ফেনীতে দুই মেয়র, কাউন্সিলর ৩৩

ফেনীর তিন পৌরসভা নির্বাচনে বছাই পর্বের প্রথম দিন মেয়রপদে ৮ জনের মধ্যে বিএনপি সমর্থিত ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে গেছে। এতে ২ মেয়র বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। একইভাবে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৫ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা পদে ৮ জন একক প্রার্থী হওয়ায় তারাও সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। ৫ ডিসেম্বর ও ৬ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন ধার্য রয়েছে। ৩টি পৌরসভায় ৮ জন মেয়রপদে, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬৩ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ফেনী পৌরসভার মেয়রপদে আওয়ামী লীগের হাজী আলাউদ্দিন, বিএনপির ফজলুর রহমান বকুল, জাতীয় পার্টির মির্জা মোহাম্মদ ইকবাল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আতিকুল আলম মজুমদার মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। বাছাইয়ের দিন বিএনপি প্রার্থী ফজলুর রহমান বকুলের মনোনয়নপত্র ঋণখেলাপীর অভিযোগে বাতিল হয়ে গেছে। বতর্মানে ৩ জন মেয়রপ্রার্থী রয়েছেন। একইভাবে ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১২ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৬টি পদে ৪ জন সকলে একক প্রার্থী হওয়ায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

পরশুরাম পৌরসভার মেয়রপদে আওয়ামী লীগের নিজাম উদ্দিন সাজেল, বিএনপির মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। বিএনপি প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ জমানতের টাকা কম দেয়ায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে গেছে। এতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নিজাম উদ্দিন সাজেল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। একইভাবে ৯টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে একক প্রার্থী ৯ জন ও সংরক্ষিত মহিলা ১ জন প্রার্থী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

দাগনভূঞা পৌরসভার মেয়রপদে আওয়ামী লীগের ওমর ফারুক খান, বিএনপির কাজী সাইফুর রহমান স্বপন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বাছাইকালে তাদের সকলের মনোনয়নপত্র বহাল রয়েছে। এ ছাড়া ৯টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৩ জন একক প্রার্থী হওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

ছেংগারচরে মেয়র

চাঁদপুরের মতলব উত্তরের ছেংগারচর পৌরসভায় বিএনপি থেকে মেয়রপদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন সারোয়ারুল আবেদীন এবং আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান মেয়র রফিকুল ইসলাম জজ। শনিবার দুপুর ১২টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (রিটার্নিং অফিসার) কার্যালয়ে সারোয়ারুল আবেদীন নির্বাচন কমিশনের নিয়মানুযায়ী সকল কাগজপত্র না দেয়ায় তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। এ কারণে ওই পৌরসভায় এখন শুধু আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত মেয়রপ্রার্থী (বর্তমান মেয়র) রফিকুল ইসলাম জজ প্রার্থী রয়েছেন।

বানারীপাড়ায় কাউন্সিলর

জেলার ছয়টি পৌরসভার মধ্যে একমাত্র বানারীপাড়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এক কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচিত হচ্ছেন। ওই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদের একমাত্র প্রার্থী হিসেবে শেখ আনিচুর রহমান মনোনয়নপত্র জমা দেয়ায় তার কোন প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। বানারীপাড়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার সেলিম রেজা জানান, মনোনয়ন বাছাইয়ে ত্রুটিপূর্ণ না হলে কিংবা প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে আনিচুর রহমানই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হবেন।

রাঙ্গামাটিতে কাউন্সিলর

রাঙ্গামাটি পৌরসভায় শনিবার মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের প্রথম পর্বে প্রয়োজনীয় কাগজ জমা না দেয়ায় মেয়র পদে মজিবুর রহমান দিপু ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের দুই মহিলা প্রার্থীর মনোনয়নপত্র রিটার্নিং অফিসার বাতিল করেছে। এরা হলেন সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী আয়শা বেগম এবং শ্যামলী ত্রিপুরা। শ্যামলী ত্রিপুরার মনোনয়ন যদি আপীলে না টিকে তাহলে সোমা বেগম পূর্ণিমা রাঙ্গামাটি পৌর সভায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পাঁচ কাউন্সিলার নির্বাচিত হবেন।