১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নতুন একটি প্রকল্পে বিনিয়োগ করবে কেডিএস

কার্টন উৎপাদন ক্ষমতা বাড়াতে ‘প্যাকেজিং ইউনিট-৩’ নামে একটি প্রকল্পে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি কেডিএস এক্সেসরিজ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে, কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় সম্প্রতি এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সূত্রে আরও জানা গেছে, আইপিও প্রসপেক্টাস অনুযায়ী ‘প্যাকেজিং ইউনিট-৩’ প্রকল্পে বিনিয়োগ করবে কেডিএস এক্সেসরিজ। এই নতুন প্রকল্পের জন্য ১৬ লাখ ডলার ব্যয়ে মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানিটি। এই প্রকল্পের সম্পূর্ণ ব্যয় নির্দিষ্ট এলসির সাহায্যে আইপিও ফান্ড থেকে করা হবে। ‘প্যাকেজিং ইউনিট-৩’ প্রকল্পের বাস্তবায়ন হলে প্রতিবছর কোম্পানির ৯৩ লাখ ৬০ হাজার অতিরিক্ত কার্টন উৎপাদন ক্ষমতা বাড়বে। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

মার্জিন ঋণধারীদের তালিকা চেয়েছে যমুনা অয়েল

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্রোকারেজ হাউসগুলোর কাছ থেকে মার্জিন ঋণধারী বিনিয়োগকারীদের তালিকা চেয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জ্বালানি ও বিদ্যুত খাতের কোম্পানি যমুনা অয়েল লিমিটেড। পাশাপাশি শেয়ার হোল্ডারদের ট্যাক্স আইডিন্টিফিকেশন নম্বর (টিআইএন) হালনাগাদ করার অনুরোধ করেছে কোম্পানিটি।

জানা যায়, ঘোষিত লভ্যাংশের ওপর ৫ শতাংশ কর অব্যাহতির জন্য আগামী ১২ ডিসেম্বরের আগে নিজ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার হোল্ডারদের নাম, বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) অ্যাকাউন্ট নম্বর এবং ১২ ডিজিটের টিআইএন নম্বর হালনাগাদ করার অনুরোধ করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন বিনিয়োগকারী টিআইএন হালনাগাদ করতে ব্যর্থ হলে, ১৯৮৪ সালের আয়কর অধ্যাদেশের সেকশন ৫৪(বি) অনুযায়ী, তাদের লভ্যাংশের ওপর ১৫ শতাংশ কর দিতে হবে।

উৎপাদন ক্ষমতা বাড়িয়েছে বিবিএস

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমসের (বিবিএস) বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা বাড়িয়েছে। এখন থেকে কোম্পানিটির উৎপাদন ক্ষমতা বছরে ৫ হাজার ৮৭৫ মেট্রিক টন বাড়বে। উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ার বিষয়টি চলতি ডিসেম্বর মাস থেকে কার্যকর হয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সম্প্রতি কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় উৎপাদন বাড়ার বিষয়টিকে স্বীকৃতি দেয়া হয়। কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ফ্যাক্টরির ভারসাম্য, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও আধুনিকায়ন (বিএমআরই) বাড়ার ফলেই এ উৎপাদন ক্ষমতা বেড়েছে। এখন কোম্পানিটির বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা ২৩ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন থেকে ২৯ হাজার ৩৭৫ মেট্রিক টনে উন্নীত হবে। এদিন কোম্পানিটি সর্বশেষ লেনদেন করে ৩৯ টাকা ৬০ পয়সা দরে। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার