২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চ্যাম্পিয়ন হতে না পারায় হতাশ জাহানারা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অন্যতম লক্ষ্য একটাই ছিল, সেটা হচ্ছে আগামী বছর ভারতে অনুষ্ঠিতব্য মহিলা টি২০ বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন। সেই লক্ষ্যটা এবার থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ফাইনালে উঠে অর্জন করেছে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল। প্রথমবার দলকে নেতৃত্ব দিয়ে এমন অর্জনে দারুণ সন্তুষ্ট জাহানারা আলম। কিন্তু ফাইনালে আয়ারল্যান্ড মহিলা দলের কাছে হেরে চ্যাম্পিয়ন হতে না পারায় কিছুটা হতাশ তিনি। তবে বিশ্বকাপে দারুণ নৈপুণ্য দেখানোর বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী তিনি। রবিবার দুপুরে থাইল্যান্ড থেকে ফিরেছে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল। বিমানবন্দরে তাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এক প্রতিক্রিয়ায় এসব কথা বলেন অধিনায়ক জাহানারা।

আগামী বছর মার্চ-এপ্রিলে ভারতে অনুষ্ঠিত হবে ৬ষ্ঠ টি২০ বিশ্বকাপ। টানা দ্বিতীয়বারের মতো এ আসরে অংশ নেয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। গত বছর বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপে প্রথমবার অংশ নিয়েছিল তারা। এবারও বাছাই খেলে সেই যোগ্যতা অর্জন করেছে জাহানারার দল। এ বিষয়ে জাহানারা বলেন, ‘আসলে ওই মুহূর্তটা ভাষায় বর্ণনা করার মতো নয়। অনেক খুশি হয়েছি আমরা। সবাই মিলে অনেক মজা করেছি। যদিও আমি সবাইকে বলেছিলাম, বেশি মজা করিস না! আমাদের চ্যাম্পিয়ন হতে হবে। আমরা প্রথম টার্গেট অর্জন করেছি। চ্যাম্পিয়ন হতে পারলে আনন্দ পরিপূর্ণতা পেত।’ পুরো বাছাইপর্বেই বাংলাদেশের ব্যাটিং ব্যর্থতা ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে দলের বোলিংটা দারুণ ছিল বলেই জয় পেয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। এ বিষয়ে জাহানারা বলেন, ‘আসলে উইকেট অনেক সেøা ছিল। থাইল্যান্ডে আমরা আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারিনি। এছাড়া আউটফিল্ডও অনেক বাজে ছিল। টপঅর্ডাররা মাঝে মাঝে ব্যর্থ হলে টেলএন্ডার সাহায্য করেছে। সেক্ষেত্রে আমি বলতেই পারি আমাদের ব্যাটিং আগের চেয়ে অনেক ভাল। আমি আমার বোলারদের নিয়ে খুব খুশি। হয় তো শেষ ম্যাচে দুর্ভাগ্যজনকভাবে শেষ বলে হেরে গেছি।’ অধিনায়ক হিসেবে প্রথম মিশনেই সফল হলেন জাহানারা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রত্যাশা ছিল যে বিশ্বকাপের কোয়ালিফাই রাউন্ড পেরিয়ে চূড়ান্তপর্বের টিকেট নিশ্চিত করা। এটা আমরা অর্জন করতে পেরেছি। অবশ্যই অনেক কাজ করতে হবে। অনুশীলনের কোন বিকল্প নেই। অনেক পরিশ্রম করতে হবে আমাদের। আশা করছি, নিজেদের ভুলগুলো নিয়ে কাজ করলে বিশ্বকাপে আমাদের ভাল খেলার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।’