২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইজিসিসিতে ডালিয়া আহমেদের আবৃত্তিতে মুগ্ধ শ্রোতা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর গুলশানের ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে (আইজিসিসি) বাচিক শিল্পী ডালিয়া আহমেদের একক আবৃত্তিতে মুগ্ধ হলো উপস্থিত দর্শক শ্রোতা। শনিবার সন্ধ্যায় ৬টায় শুরু হয় শিল্পীর একক পরিবেশনা। অনুষ্ঠানে শিল্পীকে কিবোর্ডে সহযোগিতা করেন ইফতেখার হোসাইন সোহেল। অনুষ্ঠানটি ছিল সবার জন্য উন্মুক্ত। সোয়া ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠানে শিল্পী মোট ১৬টি কবিতা আবৃত্তি করেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে কাজী নজরুল ইসলামের ‘প্রার্থনা বচন’ আবৃত্তি করেন ডালিয়া। এরপর তিনি একে একে আবৃত্তি করেন সত্যেন্দ্রনাথ দত্তের ‘আমরা’, সৈয়দ শামসুল হকের ‘আমার পরিচয়’, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘রাতপাখির ডাক’, সৃজন সেনের ‘মাতৃভূমির জন্য’, আল মাহমুদের ‘নোলক’, শামসুর রাহমানের ‘স্বাধীনতা তুমি’, নির্মলেন্দু গুণের ‘স্বাধীনতা এই শব্দটি কিভাবে আমাদের হলো’ ও ‘জগন্নাথ হল : ২৭ মার্চ ১৯৭১’, এ্যালেন জিন্সবার্গের ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’, আবু হেনা মোস্তফা কামালের ‘ছবি’, নির্মলেন্দু গুণের ‘সেই রাত্রির কল্পকাহিনী’, জয়দীপ চট্টোপাধ্যায়ের ‘কলাবতী আজও’, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘বাঁশিওয়ালা’, সব্যসাচী দেবের ‘কৃষ্ণা’ এবং সব শেষে তিনি আবৃত্তি করেন নীলিমা ইব্রাহিমের ‘আমি বীরঙ্গনা বলছি’। শিল্পীর বাচিক অভিনয় এবং বিভিন্ন কবিতার শব্দ নিয়ে কণ্ঠের খেলায় মুগ্ধ হোন উপস্থিত দর্শক শ্রোতা। প্রসঙ্গত, ডালিয়া আহমেদের জন্ম ১৯৬১ সালে ময়মনসিংহে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারে। ভারতেশ্বরী হোমসে কঠোর নিয়মশৃঙ্খলার মধ্যে বেড়ে ওঠেন এই মেধাবী ছাত্রী। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজীতে স্নাতক সম্পন্ন করেন তিনি। ভাষা, ধ্বনি ও উচ্চারণে তার বিশেষ ভাললাগা রয়েছে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, স্বাধীনতা দিবস ও বিজয় দিবসের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন ডালিয়া। এছাড়া অনেক নৃত্যনাট্য, প্রামাণ্যচিত্র ও ধারাভাষ্যে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। দেশের বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, যুক্তরাজ্যের লন্ডন ও ফ্রান্সের প্যারিসে কবিতা ও নৃত্যনাট্যে কণ্ঠ দিয়েছেন ডালিয়া। রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে গত ৭ জুন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বক্তৃতা অনুষ্ঠানও উপস্থাপনা করে প্রশংসিত হোন ডালিয়া। আবৃত্তিতে ২০১০ সালে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।