২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঐশীর ব্যস্ততা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সাম্প্রতিক সময়ে সঙ্গীত জগতের সম্ভাবনাময় শিল্পী হিসেবে নিজের মেধার স্বাক্ষর রাখছেন ঐশী। নিজের নামে প্রথম সলো এ্যালবাম ‘ঐশী এক্সপ্রেস’ এর মাধ্যমে সঙ্গীতে তার জাত চিনিয়েছেন। সেই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি বিভিন্ন অডিও এ্যালবাম এবং চলচ্চিত্রে প্লেব্যাকের পাশাপাশি স্টেজ শো, টিভি লাইভ শো নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে সম্ভাবনাময় শিল্পী ঐশীর। তিন বছর আগে হৃদয় খানের সুর-সঙ্গীতে ‘হৃদয় মিক্স থ্রি’ এ্যালবামে ‘দখিনা হাওয়া’ গান দিয়ে শুরু। এরপর বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে প্রকাশ হয় প্রথম সলো এ্যালবাম ‘ঐশী এক্সপ্রেস’। এ্যালবামের সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন ইমরান। তার সঙ্গে তিনটি গানে কণ্ঠও দিয়েছেন ঐশী। এর মধ্যে ‘তুমি চোখ মেলে তাকালে’ গানের ভিডিওটি প্রশংসিত হয়েছে। বর্তমান ব্যস্ততা প্রসঙ্গে ঐশী বলেন, লুৎফর হাসানের সুরে ইশতিয়াক আহমেদের লেখা ‘খুব খেয়াল কইরা’ এ্যালবামে দুটি ফোক গান, সুমন কল্যাণের সুর ও সঙ্গীতে ‘বেঁচে থাকার গান’ এ্যালবামে একটি রক গান, পার্থ মজুমদারের সুর ও সঙ্গীতে ‘কেন যে মন’ এ্যালবামে একটি প্রতিবাদী দেশাত্মবোধক রক গান গেয়েছি। অদিত ভাইয়ার সঙ্গীতে আরেকটি ফোক গানের কভার করেছি যেটির ভিডিওর কাজ আগামী জানুয়ারি মাসে হবে। চলচ্চিত্রে প্রথম প্লেব্যাক করেন কুমার বিশ্বজিতের সুর সঙ্গীতে। এটি আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। বেলাল খানের সঙ্গে আরেকটি চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেছি। আরও কিছু চলচ্চিত্রে প্লেব্যাকের কথা চলছে। এছাড়া নিয়মিত অডিও এ্যালবামে গান করছি। টেলিভিশন এবং স্টেজ শো নিয়েও বেশ ব্যস্ততা রয়েছে। পাশাপাশি ঐশী এখন তেজগাঁও এ একটি বেসরকারী মেডিক্যাল ভর্তি হয়েছেন। ছোটবেলা থেকেই গান করতেন ঐশী। ঐশীর বাবা আবদুল মান্নান মিলন এবং মা নাসিমা আক্তার দু’জনই সঙ্গীতপ্রেমী। ২০০০ সালে রংপুর শিশু একাডেমিতে ভর্তি হন ঐশী। এরপর নোয়াখালী কচিকাঁচার মেলায় গান শেখেন। নতুনকুঁড়ি, শাপলা কুঁড়ি, পদ্মকুঁড়িসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পেয়েছেন ঐশী। গানবাংলা টিভির বর্ষপূতির অনুষ্ঠান তার চারটি গান দিয়ে শুরু হয়। এটা তার জন্য অনেক বড় পাওয়া বলে মনে করেন ঐশী। তিনি বলেন, প্লেব্যাক করার পাশাপাশি বিজ্ঞাপনের জিঙ্গেলে কাজ করতে চাই। ভাল গান গাইতে চাই। আমি চাই আমার শ্রোতারা আমাকে নিজের গানে চিনবে। সবার ভালবাসা নিয়ে সারা জীবন বাংলা গানের সঙ্গে থাকতে চান ঐশী।