২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কম খরচে ই-ওয়ালেট সেবা দিচ্ছে ‘পেইজা’

কম খরচে ই-ওয়ালেট সেবা দিচ্ছে ‘পেইজা’

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ‘ই-ওয়ালেট সেবা প্রতিষ্ঠান পেইজা’র মাধ্যমে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) সদস্যরা দেশ ও দেশের বাইরে কম খরচে লেনদেনের সুযোগ পাবেন। ‘পেইজা ই-ওয়ালেট’ দিয়ে অনলাইন কেনাকাটা, ভিন্ন পেইজা অ্যাকাউন্টে টাকা আদান-প্রদান, বিল পরিশোধসহ ১৯০টি দেশে ২২টি মুদ্রায় লেনদেন সম্ভব।

রবিবার ঢাকার মহাখালীতে ‘এমপাওয়ারিং ই-কমার্স থ্রু পেইজা ই-ওয়ালেট সার্ভিসেস ইন বাংলাদেশ’ এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক পেইজাকে তুলনা করেন ‘বাংলাদেশের পেপাল’ হিসেবে।

তিনি বলেন, ফ্রিল্যান্সার ও অনলাইন ব্যবসায়ীদের দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল একটি অনলাইন পেমেন্ট গেইটওয়ে। ‘পেইজা’ বাংলাদেশে ই-কমার্সের সম্ভাবনার নতুন দ্বার উন্মোচন করল।

পেইজার আন্তর্জাতিক প্রধান বিপণন কর্মকর্তা অমর ম্যাগন বলেন, এসব সুবিধা নিয়ে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা ঘরে বসেই তাৎক্ষণিক ও দ্রুত দেশের বাইরে ব্যবসা করতে পারবেন। এজন্য ই-ক্যাব সদস্যদের খরচ দিতে হবে মোট লেনদেনের তিন শতাংশ।

ই-ক্যাবের সভাপতি রাজিব আহমেদ জানান, রবিবার থেকেই সংগঠনের সদস্যরা পেইজার সুবিধা নিতে পারবেন।

রাজিব আহমেদ জানান, পেইজায় ‘পার্সোনাল’ ও ‘মার্চেন্ট’ দুই ধরনের অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। যে কোনো ব্যাংকের সেভিংস অ্যাকাউন্ট, বিকাশ কিংবা বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা জমা ও উত্তোলন করা যায়। ই-মেইল আইডি দিয়েও পেইজা ই-ওয়ালেট-এ টাকা আদান প্রদান যায়।

প্রসঙ্গত, পেইজা বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করে ২০০৬ সালে। বর্তমানে ১৯২টি দেশে ১১ মিলিয়ন গ্রাহক এ সেবা নিচ্ছেন।