২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জঙ্গীদের উৎখাত করা হোক

রবিবার জনকণ্ঠের প্রথম ও ভেতরের পাতায় দেশে এবং বহির্বিশ্বে জঙ্গীদের বেশ কয়েকটি কার্যক্রম, তৎপরতা, বোমা হামলা ও হুমকির খবর ছাপা হয়েছে। এর মধ্যে সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার মধ্যযুগীয় কান্তজিউ মন্দির চত্বরে হামলার খবরটি। বাংলাদেশে কান্তজিউ পোড়ামাটির মন্দিরটি একটি অতি দুর্লভ ও অমূল্য ঐতিহাসিক স্থাপনা। প্রতিবছর রাস পূর্ণিমা উপলক্ষে এখানে মাসব্যাপী মেলা বসে। যাত্রাপালা, পুতুল নাচ, চারু ও কারুপণ্যের প্রদশর্নী, সার্কাস ইত্যাদির পাশাপাশি চলে ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান। শুক্রবার রাতে অকস্মাৎ হামলা হয় একটি যাত্রা প্যান্ডেলে অনুষ্ঠান চলাকালে। উপর্যুপরি তিনটি বোমা বিস্ফোরণে আহতের সংখ্যা ১০। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গ্রেফতারের খবর নেই। স্থানীয় হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে এই বোমা হামলার পেছনে চলমান জঙ্গী তৎপরতার সম্পৃক্ততার অভিযোগ তোলা হয়েছে। অন্যদিকে স্থানীয় পুলিশ সুপার মনে করেন, ১৮ নবেম্বর মির্জাপুরের মিশনারি ফাদার ডাঃ পিয়েরো পিচম ও ৩০ নবেম্বর চিরিরবন্দর উপজেলার রাণীরবন্দরে স্থানীয় হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা হোমিওপ্যাথ চিকিৎসক বীরেন্দ্রনাথকে গুলি করে হত্যাচেষ্টা এবং কান্তজিউ মন্দির প্রাঙ্গণে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা।

অন্যদিকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের খবর হলো, ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে সিরিয়া-ইরাকভিত্তিক ভয়ঙ্কর জঙ্গী সংগঠন আইএস। বাগদাদী, যিনি আইএস প্রধান হিসেবে স্বীকৃত, তার সদ্য প্রকাশিত বই ‘ব্ল্যাক ফ্ল্যাগ ফ্রম দ্য ইসলামিক স্টেট’ বইয়ে এই হুমকি দিয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। আইএস প্রধানের অভিযোগ, নরেন্দ্র মোদি হিন্দু রাষ্ট্রবাদী এবং তিনি মুসলমানদের কোণঠাসা করে ফেলছেন। সন্ত্রাসবাদ বিশেষজ্ঞরা বাগদাদীর এই বইটিকে সন্ত্রাসের নতুন মেনিফেস্টো হিসেবে অভিহিত করেছেন। এর পাশাপাশি পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশেও সন্ত্রাসী তৎপরতা চালানোর হুমকি দেয়া হয়েছে। এদিকে মালয়েশিয়ায় আইএসের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বাংলাদেশীসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে সে দেশের পুলিশ। থাইল্যান্ডে ১০ জঙ্গীর অনুপ্রবেশের খবরও আছে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় এক দম্পতির বন্দুক হামলায় ১৪ জন নিহতের ঘটনার দায় স্বীকার করেছে আইএস। এদিকে তালেবান নেতা মোল্লা আখতার মানসুরের মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যেই জঙ্গী সংগঠনটির নতুন নেতা হিসেবে হাইবাতুল্লাহকে নিযুক্ত করার খবর পাওয়া গেছে। ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লীতে সন্ত্রাসী সংগঠন লস্কর-ই-তৈয়্যেবার আত্মঘাতী বোমা হামলার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে সেখানে জারি করা হয়েছে সর্বোচ্চ সতর্কতা। এই প্রেক্ষাপটে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত নিরাপত্তা ঝুঁকিতে থাকায় সতর্ক নজরদারিসহ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বিজিবি, গোয়েন্দা সংস্থা ও সীমান্তবর্তী জেলার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে।

সব মিলিয়ে প্রতীয়মান হচ্ছে যে, আইএস ক্রমশই যেন বিশ্ব সভ্যতা ও মানবতার জন্য রীতিমতো হুমকি হয়ে উঠছে। ভয়াবহ প্যারিস হামলার পর আইএসের তৎপরতা বেড়েছে বহুগুণ। জঙ্গী সংগঠনটির বর্বরতা এবং নিষ্ঠুরতার বিষয়টিও সুবিদিত। এর বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, তুরস্কসহ ন্যাটো জোটভুক্ত দেশগুলো বিমান হামলা জোরদার করেছে। এই আক্রমণে সর্বশেষ যোগ দিয়েছে রাশিয়া। ইরানও আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছে। আইএসের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধ বর্তমানে সময়ের দাবি।

বাংলাদেশে আইএসের অস্তিত্ব আছে কি নেই তা নিয়ে বিতর্ক আছে। সরকারীভাবে অস্বীকার করা হলেও দীর্ঘদিন থেকে তৎপর জঙ্গী সংগঠন জেএমবি, হরকত-উল-জেহাদ, আনসার আল ইসলাম, আনসারুল্লাহ বাংলা টিম, হিজবুত তাহরীর ইত্যাদি নানা নামের জঙ্গী সংগঠনগুলোতে আইএসের অনুসারী থাকা বিচিত্র নয়। এ অবস্থায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেশের তালিকাভুক্ত মসজিদ, মাদ্রাসা ও ইসলামী আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিবিড় নজরদারির নির্দেশটি নিঃসন্দেহে ইতিবাচক। তবে আইএসসহ সবরকম জঙ্গী তৎপরতা ও কার্যক্রম দমনে সর্বস্তরে ব্যাপক জনসচেতনতা গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই।