২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইনজুরি-তামিমের খেলা নিয়ে সংশয়

  • বেলা ২ টায় চিটাগাং ভাইকিংসের বাঁচা-মরার লড়াইয়ে প্রতিপক্ষ ঢাকা ডায়নামাইটস, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে খেলবে রংপুর রাইডার্স

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বরিশাল বুলসকে সোমবার হারিয়েই শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে নিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। এখন দলটির যে ২টি ম্যাচ রয়েছে সেই ম্যাচগুলোতে জিতে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ওঠার জন্যই খেলবে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল কুমিল্লা। আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় দলটির আরেকটি ম্যাচ রয়েছে। যে ম্যাচে প্রতিপক্ষ রংপুর রাইডার্স। পয়েন্ট তালিকায় উপরের দিকে থাকা এ দুই দলের মধ্যে দুর্দান্ত লড়াই দেখার আশাতেই আছে সবাই। তবে বেলা ২টায় যে চিটাগাং ভাইকিংস ও ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যকার ম্যাচ রয়েছে, সেই ম্যাচেই যেন সবার দৃষ্টিটা থাকবে বেশি। এ ম্যাচে হারলেই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) তৃতীয় আসর থেকে সবার আগে বিদায় নেবে চিটাগাং। আর বাঁচা-মরার এ লড়াইয়ে চিটাগাং জিতলে বিপাকে পড়ে যেতে পারে ঢাকা। শেষ চারে খেলার আশায় আরও অন্ধকার যুক্ত হবে দলটির শিবিরে। এমন একটি ম্যাচে চিটাগাংয়ের অধিনায়ক তামিম ইকবালের খেলা নিয়ে সংশয় আছে।

ঢাকায় ৪ ম্যাচ খেলার পর চট্টগ্রামেও টানা ৪ ম্যাচ খেলেছে চিটাগাং। ৮ ম্যাচের মধ্যে মাত্র ২টিতে জয় পেয়েছে। দলটির বিদায় নেয়া যেন সময়ের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এখন টুর্নামেন্টে পয়েন্ট তালিকায় যে অবস্থা, তাতে ৬ পয়েন্ট পেয়েও একটি দল শেষ চারে খেলার সুযোগ পেতে পারে। সেই সুযোগটি ঢাকা, সিলেট ও চিটাগাংয়ের সামনেই আছে। চিটাগাংয়ের হাতে আছে এখন দুই ম্যাচ। যদি টানা জয় পায় চিটাগাং তাহলে হবে ৬ পয়েন্ট। ঢাকা যদি বাকি থাকা ৩ ম্যাচে টানা হারে তাহলে হবে ৬ পয়েন্ট। আর সিলেট ৩ ম্যাচের মধ্যে ১টি জিতলে হবে ৬ পয়েন্ট। অর্থাৎ ঢাকা, সিলেট ও চিটাগাংয়ের মধ্যে তখন রানরেটে যে এগিয়ে থাকবে, সেই দলই শেষ চারে খেলবে।

আজ তাই চিটাগাংয়ের জন্য যেমন, ঢাকার জন্যও কঠিন চ্যালেঞ্জের ম্যাচ। তবে এমন ম্যাচে নাও খেলতে পারেন তামিম। কুমিল্লা-চিটাগাংয়ের ম্যাচ দিয়ে চট্টগ্রাম পর্ব শেষ হয়েছে। ম্যাচটি শেষ হতেই নিজের ইনজুরি নিয়েও কথা বলেছিলেন বাংলাদেশ দলের ওপেনার। জানান, ‘গ্রোয়েন ইনজুরির জন্য খুব সম্ভবত শেষ দুটি ম্যাচ খেলা হবে না আমার।’ চিটাগাং শেষ ম্যাচটি খেলেছে ৩ ডিসেম্বর। চারদিন হয়ে গেছে। এ চারদিন তামিম পুরোদমে বিশ্রাম নিয়েছেন। সোমবার দুপুরে যখন অনুশীলন করেন চিটাগাংয়ের ক্রিকেটাররা, ফুটবল খেলায় মজেন; তখন তামিমকে অনুশীলন করতে দেখা যায়নি। তাতেই বোঝা যাচ্ছে, তামিমের না খেলার সম্ভাবনাই বেশি।

এবার বিপিএলে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বাজে অবস্থায় আছে চিটাগাং। হেরেই চলেছে। এমন কেন হচ্ছে? তামিম জানান, ‘কেন জয় পাচ্ছি না এর কোন নির্ধারিত কারণ নেই। তবে আমি যেটা সব সময় বলি তা হলো গেইল, কোহলি, স্টার্ক, দিলশান আইপিএলে এক দলে খেলে বেশ কয়েকটি ম্যাচে জয় পায়নি।’ তার মানে তামিমের এখনও আশা আছে!

পরক্ষণেই অবশ্য বুঝিয়ে দিয়েছেন অনেক কিছু। তামিমের কণ্ঠেই শোনা যাক, ‘বিপিএলের তৃতীয় আসরে আমরা ভাল খেলার চেষ্টা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমরা সেটা করতে ব্যর্থ হয়েছি। তাই এখন আর কিছু করার নেই। তবে বাকি দুই ম্যাচে আমরা সমর্থকদের কিছু দিতে চেষ্টা করব এবং পরবর্তী বিপিএলের আসরে আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরব।’ তার মানে তামিম ধরেই নিয়েছেন, তাদের বিদায় ঘণ্টা বেজে গেছে।

তামিম যেখানে দলের বিদায় দেখেছেন, সেখানে ঢাকার অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা কিন্তু হাল ছাড়ার পাত্র নন। আগেই বলেছেন, ‘আসলে টি২০ ক্রিকেট এমনই। আমরা ভালভাবে অনুশীলন করছি। সামনে ইতিবাচক ক্রিকেট খেলতে হবে। আমাদের দলের ব্যাটিং লাইনটা বেশ ভারসাম্যপূর্ণ। স্থানীয় খেলোয়াড়রাও ভাল খেলছে। তাদের আরও জ্বলে উঠতে হবে এবং আমার পুরোপুরি বিশ্বাস আছে যে, তারা সেটা পারবে। আমার দলের স্থানীয় খেলোয়াড়রা বাংলাদেশের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে আছে। তাদের সুযোগ দিতে হবে।’ ঢাকার আজ চিটাগাংয়ের বিপক্ষে ম্যাচটি জেতা জরুরী। জিতলে ৮ পয়েন্ট হবে। সেক্ষেত্রে শেষ চারে খেলার আশা ভালভাবেই জিইয়ে রাখবে। আর হারলে বিপত্তিতে পড়ে যেতে পারে।

নির্বাচিত সংবাদ