১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিলেটকে লজ্জা দিয়ে শেষ চারে রংপুরও

  • সাকিবদের জয়ে বরিশালেরও শেষ চারে খেলা নিশ্চিত

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ একদিনে তিন দল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) তৃতীয় আসরের শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে নিয়েছে। সোমবার প্রথমে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, দ্বিতীয়তে সিলেট সুপার স্টারসকে লজ্জায় ডুবিয়ে, ৫৯ রানে অলআউট করে দিয়ে ৬ উইকেটে জিতে রংপুর রাইডার্স ও তৃতীয়তে সিলেটের হারে বরিশাল বুলসও শেষ চারে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে।

রবিবার বরিশালকে ৫৮ রানে অলআউট করে দিয়েছিল সিলেট। বিপিএলের ইতিহাসের সর্বনিম্ন রানে বরিশালকে গুটিয়ে দিয়েছিল। সোমবার এসে তারাই সেই লজ্জার সম্মুখীন হলো। তবে ১ রান বেশি করল। রংপুরের স্পিন বিষে লাল হয়ে গেল শহীদ আফ্রিদির দল সিলেট। ৪ উইকেট নেয় আরাফাত সানি, ৩ উইকেট নেয় মোহাম্মদ নবী ও ২ উইকেট নেয় সাকিব আল হাসানের স্পিন ঘূর্ণিতে ১১.৫ ওভারে ৫৯ রান করতেই গুটিয়ে গেল সিলেটের ইনিংস। একজন মাত্র ব্যাটসম্যান দুই অংকের ঘরে পৌঁছাতে পারলেন। তিনি একজন বোলার! সোহেল তানভির সর্বোচ্চ ২০ রান করতে পারলেন। যদি সোহেল এ রান না করতেন, তাহলে বরিশালের চেয়েও কম রান করত সিলেট। তবে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন রান ঠিকই হলো। সেই লজ্জা থেকে মুক্তি মিলল না। এতটাই খারাপ অবস্থা হয়েছে সিলেটের যে ২৯ রানের সময় যখন সাকিবের বলে এক ধাপ এগিয়ে মারতে গিয়ে উইকেটেরক্ষকের হাতে স্ট্যাম্পিং হলেন আফ্রিদি, রংপুর অধিনায়কের কোন উল্লাস করার প্রয়োজন হলো না। এরআগেই যে ১ (মুনাভিরা), ১২ (জুনায়েদ), ২৪ (মুশফিক), ২৫ (নুরুল) রানে চার উইকেট হারাল সিলেট। আফ্রিদি আউটের পর ৩০ (মিলন), ৩৮ (বোপারা), ৪৩ (রাজ্জাক), ৫৯ (সোহেল ও রুবেল) রানে আরও ৫ উইকেটের পতন ঘটল। রংপুর যে জিতবে তা সবার মুখে মুখেই থাকে তখন। দেখার বিষয় ছিল, কত বেশি উইকেটে জয় মিলে। কিন্তু শুরুতেই ৫ রানে লেন্ডল সিমন্সকে (৫) আউট করে দেন মোহাম্মদ শহীদ। দলের রান যখন ২২, তখন সৌম্যকেও (১১) সাজঘরে ফেরান শহীদ। সাকিব আল হাসান (২৯*) ও জহুরুল ইসলাম অমি (৯*) মিলে ৬১ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়েন। ২ উইকেট হারিয়ে ৯.৫ ওভারে ৬০ রান করে জয় পায় রংপুর। প্রশ্ন উঠতে পারে বরিশাল কিভাবে কুমিল্লার সঙ্গে সোমবার হেরেও শেষ চারে খেলবে? পয়েন্ট তালিকার দিকে তাকালেই তা পরিষ্কার হয়ে যাবে। পয়েন্ট তালিকার তলানিতে আছে সিলেট ও চিটাগাং ভাইকিংস। ৪ পয়েন্ট পাওয়া চিটাগাংয়ের বাকি আছে ২ ম্যাচ। টানা দুই ম্যাচ জিতলেও চিটাগাংয়ের ১০ পয়েন্ট হবে না। আর রংপুরের বিপক্ষে হারায় ৪ পয়েন্ট পাওয়া সিলেটেরও বাকি আছে ২ ম্যাচ। সিলেটেরও কোনভাবেই ১০ পয়েন্ট হওয়া সম্ভব নয়। তার মানে ১০ পয়েন্ট যে দলেরই আছে, তারাই শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে নিয়েছে। কুমিল্লার আছে ১২ পয়েন্ট। একই পয়েন্ট আছে রংপুরেরও। বরিশালের আগে থেকেই ১০ পয়েন্ট যুক্ত আছে। রংপুরের সঙ্গে হারায় সিলেটের যে শেষ চারে খেলার সুযোগ হাতছাড়া হয়ে গেছে এমনটি নয়। বিপিএলের আরেকটি দল ঢাকা ডায়নামাইটসের ৭ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট যুক্ত আছে। যদি বাকি থাকা সব ম্যাচ হারে ঢাকা, আর সিলেট বাকি থাকা ২ ম্যাচেই জিতে; তাহলে ঢাকা ও সিলেটের পয়েন্ট সমান ৬ হয়ে যাবে। তখন রানরেটে কোন দল শেষ চারে খেলবে তা নির্ধারণ হবে। সিলেটের বিপক্ষে এর আগে মাত্র ৬ রানে জিতে রংপুর। এবার দাপট দেখিয়েই জয় তুলে নিল। সিলেটকে লজ্জায় ডুবিয়ে জিতল রংপুর। সেই সঙ্গে শেষ চারে খেলাও নিশ্চিত করে নিল।

স্কোর ॥ সিলেট সুপার স্টারস ৫৯/১০; ১১.৫ ওভার (মুনাভিরা ০, জুনায়েদ ৫, নুরুল ৮, মুশফিক ৯, বোপারা ৫, আফ্রিদি ৪, মিলন ০, সোহেল ২০, রাজ্জাক ৪, শহীদ ০*, রুবেল ০; আরাফাত ৪/১৪, নবী ৩/১৫, সাকিব ২/২৫)। রংপুর রাইডার্স ৬০/২; ৯.৫ ওভার (সিমন্স ৫, সৌম্য ১১, সাকিব ২৯*, জহুরুল ৯*)। ম্যাচসেরা ॥ আরাফাত সানি। ফল ॥ রংপুর ৮ উইকেটে জয়ী।