২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেয়া কসমেটিকসের বোর্ড সভা আজ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ওষুধ এবং রসায়ন খাতের কোম্পানি কেয়া কসমেটিকস স্টক এক্সচেঞ্জের লিস্টিং রেগুলেশন ১৯(১) অনুযায়ী লভ্যাংশ নির্ধারণী সভা আহ্বান করেছে। আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় এ বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হবে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, এই সভায় ২০১৫ সালের ৩০ জুনে সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করা হতে পারে।

এর আগে ২৪ নবেম্বর কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল ২৯ নবেম্বর বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু ২৯ নবেম্বরের বোর্ড সভা স্থগিত করা হয়। আগের বছর কোম্পানিটি ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল।

এদিকে, ২০০১ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানিটির শেয়ার সোমবার সর্বশেষ ১৪ টাকা ২০ পয়সা দরে বিক্রি হয়। প্রতিটি শেয়ারের দর বাড়ে ৯০ পয়সা। গত এক বছরে এ শেয়ার ২৮ টাকা ৬০ পয়সা থেকে ১২ টাকা ৭০ পয়সার মধ্যে লেনদেন হয়।

সাইফ পাওয়ারের দুই উদ্যোক্তার শেয়ার বিক্রির ঘোষণা

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সাইফ পাওয়ারটেকের দুই উদ্যোক্তা পরিচালক শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দিয়েছেন। ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে তারা শেয়ার বিক্রয় সম্পন্ন করবেন। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। তরফদার মোঃ রুহুল আমিন ও তরফদার নিগার সুলতানা নামে দুই উদ্যোক্তা পরিচালক তার হাতে থাকা সাইফ পাওয়ারটেকের ১ কোটি ৮৫ লাখ ৯৩ হাজার ২৯৩ ও ১ কোটি ৭১ লাখ ৫৬ হাজার ৩৭৪টি শেয়ারের যথাক্রমে বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে প্রাপ্ত ১৫ লাখ ও ১০ লাখ শেয়ার বিক্রি করবেন। বাজার দরে স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে তারা এসব শেয়ার বিক্রি করবেন। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

নতুন মূলধনী যন্ত্রপাতি কিনবে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল

নতুন মূলধনী যন্ত্রপাতি কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল লিমিটেড। ডিএসই ওয়েবসাইট সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে ২টি নতুন মূলধনী যন্ত্রপাতি কেনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কেনার সিদ্ধান্ত নেয়া নতুন যন্ত্রগুলো হচ্ছে- ডাবল ড্রাম রাইজিং মেশিন এবং ওয়েফ্ট স্ট্রেইথনার অর্থোপ্যাক। ডিএসই সূত্র আরও জানিয়েছে, কোম্পানিটি এইচএসবিসি ব্যাংকের ঋণ সহায়তায় ইতালি এবং জার্মানি থেকে নতুন মূলধনী যন্ত্র ২টি আমদানি করবে। এতে আনুমানিক ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭৫ হাজার ইউরো। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার