২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মনোনয়ন পরিবর্তন না হলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা

  • সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ, ৭ ডিসেম্বর ॥ বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী ইসরাইল মিয়া সংবাদ সম্মেলন করে ‘দলীয় মনোনয়ন যদি পরিবর্তন করা না হয়, তাহলে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী’ হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি জানান, নির্বাচনে বিএনপি থেকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলামকে মনোনয়ন দেয়া হলেও বিএনপির ত্যাগী নেতাকর্মীরা তা সমর্থন করে না।

সোমবার দুপুরে শহরের একটি হোটেলে ‘বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনসমূহ’ ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে হাজী ইসরাইল খালেদা জিয়ার প্রতি দাবি জানিয়ে বলেন, প্রয়োজনে কেন্দ্র থেকে টিম পাঠিয়ে মাঠপর্যায়ে জরিপ চালিয়ে দেখুন দলের নেতাকর্মীরা কাকে চায়। তিনি অভিযোগ করেন, দলীয় প্রার্থী মাজহারুল ইসলাম ইতোপূর্বে বিভিন্ন সময় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভেতরে ভেতরে আওয়ামী লীগের পক্ষে কাজ করেছেন। চলমান আন্দোলনেও তিনি সমঝোতা করে চলছেন। কখনও গ্রেফতার হননি, কারাগারে যাননি। একবার মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের মামলায় মাজহারুল ইসলামকে এক নম্বর আসামি করা হলেও পুলিশের অভিযোগপত্র থেকে তার নাম বাদ দেয়া হয়। অথচ ইসরাইল মিয়া তিনবার কারাগারে গেছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান। তিনি বলেন, দলকে নিশ্চিহ্ন করার চক্রান্ত নিয়ে কুচক্রি মহল খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ড. ওসমান ফারুককে বিভ্রান্ত করে মাজহারুল ইসলামের পক্ষে মনোনয়ন এনেছে। অথচ ওসমান ফারুক ওয়ান ইলাভেনের সময় দলকে ধ্বংস করতে চেয়েছিলেন, দল এবং দেশত্যাগ করেছিলেন। তিনি মনোনয়ন চক্রান্তের পেছনে জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য শরীফুল আলম এবং জেলা বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক খালেদ সাইফুল্লাহ সোহেলকেও দায়ী করেন। হাজী ইসরাইল মিয়া বলেন, কুচক্রী মহলের বর্তমান তৎপরতা রোধ করতে না পারলে এখানে বিএনপি বিলীন হয়ে যাবে। ফলে শেষ পর্যন্ত যদি মনোনয়ন পরিবর্তন করা না হয়, তাহলে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিয়েছেন ইসরাইল মিয়া। তিনি আরও জানান, দলের মনোনয়ন প্রত্যয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক শাহজাহানের সঙ্গেও তিনি কথা বলেছেন। তিনি তাকে প্রচার চালিয়ে যেতে বলেছেন। পরে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানাবেন বলেও হাজী ইসরাইলকে জানিয়েছেন। কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদের জন্য জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক মাসুদুল হাসানও প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছিলেন।