২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাছাইয়ের পর মুন্সীগঞ্জের দুই পৌরসভায় হিসাব পাল্টে যাচ্ছে

মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, মুন্সীগঞ্জ ॥ মনোনয়ন বাছাইয়ের পর মুন্সীগঞ্জে ও মিরকাদিমে বিএনপির চিত্র পাল্টে যাচ্ছে। মিরকাদিমে বিএনপি প্রার্থী এবং মুন্সীগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর মনোয়ন বাতিলে বিএনপি শিবিরে হতাশা বিরাজ করছে। বাছাইয়ের পর এখন নতুন হিসাব-নিকাশ নিয়ে ব্যস্ত প্রার্থীরা। এতে প্রচারণায় কিছুটা ভাটা পড়ে। তবে দুই পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী বৈধ ঘোষণার পর চাঙ্গা হয়ে উঠেছেন কর্মীরা। গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের অন্তর্কলহের কারণে দুটি পৌরসভায়ই প্রার্থীরা পরাজিত হন। তাই এবার মাঠ গুছিয়ে নিতে সর্তক ক্ষমতাসীনরা। তবে বসে নেই বিএনপিও। এ বিষয়ে আপীলের প্রস্তুতি ছাড়াও তারা সব রকমের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। দলীয় নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, আপীলে সুবিধা না পেলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে সমর্থন দিতে পারে বিএনপি। প্রার্থী বাছাইয়ে মিরকাদিম পৌরসভায় বিএনপি প্রার্থী শামসুর রহমানের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়। এ পৌরসভার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জামান হোসেনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। তবে অপর চার প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ রয়েছে। এদিকে রবিবার মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রেজাউল আসলাম সংগ্রামের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে মামলার তথ্য গোপন করায়।

সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে এরশাদের সংশয়

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর ॥ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মু. এরশাদ বলেছেন নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা তা নিয়ে আমরা সন্দিহান। আর যদি তা হয় তবে আওয়ামী লীগের অতীত কর্মকা- মানুষ ভুলে যাবে। তাকে রাষ্ট্রপতি বলা যাবে না- প্রধানমন্ত্রীর উক্তির সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমাকে কেউ অবৈধ রাষ্ট্রপতি বলতে পারেন না। আমাকে জিয়ার সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। যা মোটেই ঠিক না। কারণ জিয়া আর আমি এক নই। সোমবার বিকালে এরশাদ ঢাকা থেকে রংপুরে এসে তার বাসভবন পল্লী নিবাসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ১৮ স্থানে আমাদের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিল করতে দেয়নি। এখনও আমাদের প্রার্থীদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। কাজেই নির্বাচন নিয়ে সংশয় রয়েই গেছে। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ছোট ভাই ও সাবেক মন্ত্রী জি.এম কাদের। এরশাদ মঙ্গলবার সকালে ভারতের দিনহাটায় তার দাদার বাড়িতে কয়েকদিনের সফরে যাবেন।

চাঁপাইয়ে কাউন্সিলর প্রার্থীর বাসভবনে হামলা

স্টাফ রিপোর্টার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ পৌর এলাকার সাতনৈল মহল্লার আওয়ামী লীগ মনোনীত ১নং ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর প্রার্থীর বাড়িতে ঢুকে রবিবার রাতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় ওই প্রার্থী ও তার স্ত্রী আহত হন। আহতরা হচ্ছেনÑ পৌর এলাকার সাতনৈল মহলার ১নং ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুল খালেক মিলন ও তার স্ত্রী নয়াগোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা নাসরিন আক্তার। আহত মিলনের ভাই আব্দুলাহ আল মতি শিশির জানান, রাত ২টার দিকে ১০-১২ জনের মুখোশ পরিহিত একদল দুর্বৃত্ত আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে বাড়ির মূল ফটকের তালা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে বাড়ির সদস্যদের হাত-পা বেঁধে দুটি আলমারি ভেঙ্গে ৩০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৬৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এ সময় মিলন বাধা দিলে তাকে ও তার স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। এতে তারা গুরুতর আহত হয়। পরে তাদের রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ফেনীতে মনোনয়ন প্রত্যাহার ॥ আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফেনী, ৭ ডিসেম্বর ॥ সদর পৌর সভার নির্বাচনে মেয়র পদে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মির্জা ইকবাল আলমগীর তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। বর্তমানে ফেনী পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হাজী আলাউদ্দিন প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। মির্জা ইকবাল সোমবার দুপুর ১২টার দিকে গোপনে নিজে একাই রিটার্নিং অফিসারের কাছে তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়ে চলে যান। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৮নং ওয়ার্ডে কামাল উদ্দিন মাহমুদ ১২নং ওয়ার্ডে মকছুদুল আলম টিপু ও আবদুল্লাহ বাবুল এবং ১৮নং ওয়ার্ডে আবুল হাসেম তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

ফেনী পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাছে এনামুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।