২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পরামর্শ

১। আমার বয়স ২৮ বছর। বিয়ের পর শ্বশুরবাড়িতে আসার পর জানতে পারি যে, আমার শাশুড়ির হাঁপানি রোগ আছে। আমি একটু ভয়ে ভয়ে থাকি, কারন এক ঘরে বসবাস, ওঠাবসা, খাওয়া-দাওয়া ইত্যাদির জন্য আমার হাঁপানি হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি? হাঁপানি রোগ কি ছোঁয়াচে বা সংক্রমিত কোন রোগ? হাঁপানি রোগ আমার না হলেও আমার স্বামীর হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি?

উত্তর : এ্যাজমা কোন ছোঁয়াচে বা সংক্রমিত রোগ নয়। যদি মায়ের হাঁপানি রোগ থাকে আর তার যদি তিনটি সন্তান থেকে থাকে তাহলে এই তিন সন্তানের যে কোন একজনের হাঁপানি রোগ হতে পারে। আর একটি সন্তান হলেও হাঁপানি হওয়ার সম্ভাবনা আংশিক। তবে আপনার স্বামীর না হলেও আপনার সন্তানের হওয়ার সম্ভাবনা আছে। আপনার স্বামী যদি ধূমপায়ী হয়ে থাকে তাহলে তার হাঁপানী রোগ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। আপনার হাঁপানি রোগ হওয়ার কোন ভয় নেই যদি আপনার বংশের মধ্যে হাঁপানি রোগ কারও না থাকে।

২। আমার বয়স ৩৫ বছর। আমি একজন স্কুলশিক্ষিকা। আমাকে প্রতিদিনই হেঁটে স্কুলে যেতে হয়। গ্রামের কাঁচা রাস্তায় শুকনার দিনে প্রচুর ধুলাবালি উড়তে থাকে। এতে আমার শরীরে এক ধরনের ঘামাচির মতো লাল দানার মতো হয় আর হাঁচি দিতে দিতে নাক দিয়ে পানি বের হয় মনে হয় ঠা-া লাগছে। এমতাবস্থায় আমি কী করলে এই হাঁচির যন্ত্রণা থেকে মুক্ত হব? আমি গত ছয় মাস ধরে এই সমস্যায় ভুগছি।

উত্তর : যেহেতু অনেক দিন ধরে আপনি এই হাঁচি এবং চামড়ায় লাল দানার মতো সমস্যায় ভুগছেন, তাই আপনার উচিত হবে নিকটস্থ কোন মেডিসিন বা এ্যালার্জি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেয়া। আর বর্তমানে আপনার জন্য উপদেশ হলো- স্কুলে যাওয়ার পথে আর স্কুলের ব্লাকবোর্ডে চক দিয়ে লেখার সময় মুখে মাস্ক ব্যবহার করুন।

৩। আমার বয়স ১৮ বছর। আমি এ্যালার্জিজনিত কারণে ছোটবেলা হতেই ভুগছি। বলতে গেলে জন্মগত। ইদানীং এ আমার বেশি সমস্যা হলো ঘরের কোণে বা বাইরে কোথাও কোন একটা তেলাপোকা, সেঙ্গা দেখামাত্রই শরীর চুলকাতে চুলকাতে চাকা হয়ে যায়। আবার অনেক সময় গরুর মাংস, চিংড়ি খেলে একই অবস্থা হয়। কিছু কিছু সময় দেখামাত্রই চুলকাতে থাকে। এই অবস্থায় আমি কী চিকিৎসা নিতে পারি? এটা কি একেবারেই ভাল হবে?

উত্তর : আপনার বর্ণনা শুনে মনে হচ্ছে আপনার স্কিন খুবই সেনসেটিভ। তাই আপনার কীসে কীসে এ্যালার্জি আছে তা একজন এ্যালার্জি বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে পরীক্ষা করে জানতে হবে। এরপর সে অনুযায়ী চিকিৎসা নিতে হবে। এ্যালার্জি যেহেতু একটি দীর্ঘমেয়াদী রোগ সেহেতু দীর্ঘদিন চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সুস্থ হওয়া সম্ভব।

৪। আমার বয়স ৫৫ বছর। আমি এ্যাজমার জন্য নিয়মিত ইনহেলার ব্যবহার করি। আমার ডায়বেটিস আছে, তবে ইনসুলিন নিতে হয় না। ব্যায়াম করলে আমার এ্যাজমার প্রবণতা বেড়ে যায়। তাই জানতে চাই আমি কি যোগব্যায়াম করতে পারব? আর এটা আমার জন্য ক্ষতিকর কিছু হবে না তো?

উত্তর : যোগব্যায়াম এ্যাজমা রোগীদের জন্য ক্ষতিকর নয়, তবে এ্যাজমা রোগীদের জন্য ভাল ব্যায়াম হচ্ছে প্রাণয়ম। প্রাণয়মের অর্থ হােল শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে ব্যায়াম। আর এই প্রাণয়ম ব্যায়াম করলে ফুসফুসের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়, তখন শ্বাসকষ্ট কমে আসে। তবে সঙ্গে যদি নিউরোবিক জিম করা যায় তবে হাঁপানি রোগ অনেকটাই কমে যায়। আর আপনি যে ইনহেলার ব্যবহার করছেন তার ব্যবহারবিধি সঠিক আছে কি-না খেয়াল রাখবেন।

ডাঃ গোবিন্দ চন্দ্র দাস

অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান

এ্যালার্জি এ্যান্ড ক্লিনিক্যাল ইমুনোলজি বিভাগ

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ এ্যান্ড হাসপাতাল, ঢাকা।

সাফল্যের ফর্মুলা

০ কখনো দেরী নয়

০ সহজ সরল জীবনযাপন

০ কম আকাক্সক্ষা

০ কাজ বেশি

০ হাসুন সব সময়

০ পজিটিভ চিন্তন

০ তর্ক নয়

০ আত্মবিশ্বাসী হওয়া