২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লভ্যাংশ দিতে ব্যর্থ হলে মিউচুয়াল ফান্ডগুলোর ফি কর্তন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ইউনিটহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিতে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট ফান্ডের সম্পদ ব্যবস্থাপকের ফি কর্তনের বিধান রেখে মিউচুয়াল ফান্ড বিধিমালা সংশোধন করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সোমবার কমিশন বৈঠকে সংশোধনের অনুমোদন দেওয়া হয়। তবে নির্দিষ্ট হারের উপর নগদ লভ্যাংশ প্রদান করতে পারলে নির্দিষ্ট হারে পারফরমেন্স বোনাস ফি নিতে পারবে সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানি। অন্তর্বর্তীকালীন লভ্যাংশ প্রদানের সুযোগও রাখা হয়েছে সংশোধনী বিধিমালায়।

শেয়ারবাজার এবং শেয়ারবাজার বহির্ভূত ফান্ডের বিনিয়োগ পত্রকোষ ( পোর্টপোলিও) মাসিক ভিত্তিতে নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশের বাধ্যবাধকতা আরোপ করা হয়েছে বিধিমালায়। এছাড়া সপ্তাহের পরিবর্তে দৈনিক ভিত্তিতে ইউনিটের সম্পদমূল্য প্রকাশ করতে হবে। সংশোধিত বিধিমালায় আরও বলা হয়েছে, প্রতি দুই বছর অন্তর ইউনিটহোল্ডারদের সাধারণ সভা আয়োজন করতে হবে। সাধারণ সভায় ফান্ডের দক্ষতা ও ফান্ড সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর দক্ষতা নিয়েও আলোচনা হবে এবং প্রয়োজনে পক্ষ পরিবর্তনে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন ইউনিটহোল্ডাররা।

সিকিউরিটিজ ও এক্সচেঞ্জ কমিশন (মিউচুয়াল ফান্ড) বিধিমালা ২০০১ এর সংশোধনীতে আরও যে সব বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে সেগুলো মধ্যে রয়েছে- পুঁজিবাজার বহির্ভূত যে বিনিয়োগসীমা নির্ধারিত আছে তার সর্বোচ্চ অর্ধেক পরিমাণ অর্থ স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগ করা যাবে। অর্থাৎ ফান্ডের আকারের সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ পর্যন্ত স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগ করতে পারবে। ইউনিটের বিক্রয়মূল্য ও পুনঃক্রয়মূল্যের মধ্যকার পার্থক্য ৩-৫শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে হবে।

সংশোধনীতে বলা হয়েছে, মেয়াদী ফান্ডের মেয়াদ সর্বমোট ১০ বছরের বেশি হবে না। মেয়াদ বর্ধন অথবা রূপান্তদরের ক্ষেত্রে অবশ্যই ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হবে এবং ইউনিটভিত্তিক ভোট গণনা করতে হবে। সকল বে-মেয়াদী ফান্ডকে ডিম্যাট আকারে পরিবর্তন করতে হবে। এ ছাড়াও এক্সচেঞ্জগুলোতে বে-মেয়াদী ফান্ডের স্বতন্ত্র ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম চালু করতে হবে। মেয়াদী ফান্ড বিশেষ অবস্থায় একটি নির্দিষ্ট সীমার মধ্যে ইউনিট বাই-ব্যাক করতে পারবে। একই প্রতিষ্ঠান মিউচুয়াল ফান্ডের ট্রাস্টি ও কাস্টোডিয়ান হতে পারবে না। সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিয়োগ কমিশনের পূর্বানোমোদন নিতে হবে। সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন হতে হবে ১০ কোটি টাকা।