২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মানোন্নয়ন ও গবেষণায় জোর দিচ্ছে ওয়ালটন

  • প্লাজা কনফারেন্স-২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পণ্যের গুণগত উচ্চমান নিশ্চিতকরণ এবং উন্নয়ন ও গবেষণা কার্যক্রমকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে ওয়ালটন। ওয়ালটন প্লাজা কনফারেন্সে ওয়ালটনের উদ্যোক্তারা এসব কথা বলেন। গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ প্রাঙ্গণে মঙ্গলবার সকালে শুরু হয় ওয়ালটন প্লাজা কনফারেন্স-২০১৫। কনফারেন্সের উদ্বোধন করেন ওয়ালটন গ্রুপের চেয়ারম্যান এসএম নূরুল আলম রেজভী। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑ ওয়ালটন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম শামসুল আলম, বিপণন বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক ইভা রিজওয়ানা, এইচআরএম বিভাগের নির্বাহী পরিচালক এসএম জাহিদ হাসান, বিপণন বিভাগের নির্বাহী পরিচালক এমদাদুল হক সরকার, ফরেন ট্রেড মনিটরিং বিভাগের নির্বাহী পরিচালক নজরুল ইসলাম সরকার, পিআর এ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের নির্বাহী পরিচালক মোঃ হুমায়ুন কবীর, সোসির্ং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নির্বাহী পরিচালক আশরাফুল আম্বিয়া প্রমুখ।

ওয়ালটন গ্রুপের চেয়ারম্যান এসএম নূরুল আলম রেজভী বলেন, ওয়ালটন ধারাবাহিকভাবে প্রবৃদ্ধি অর্জনের পাশাপাশি দেশকে প্রযুক্তিগতভাবে এগিয়ে নিতে বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ফ্রিজের মতো টিভিতেও একচেটিয়া বাজার দখলের লক্ষ্যে উন্নয়ন এবং গবেষণা বিভাগে কর্মরত প্রকৌশলীরা ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। ওয়ালটন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম শামসুল আলম বলেন, শুধু পণ্য বিক্রি নয়, ওয়ালটন মানুষের সেবা করতে চায়। প্রযুক্তিপণ্যে বাংলাদেশে ওয়ালটন অপ্রতিদ্বন্দ্বী। বিশ্বব্যাপী বাজার সম্প্রসারণে সকল ভয়কে জয় করার আহ্বান জানান তিনি। ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম রেজাউল আলম জানান, আগামী বছর ওয়ালটনের বেশকিছু আইটি পণ্যের উন্নয়ন ও গবেষণা কার্যক্রম শুরু হবে। সারাদেশে ওয়ালটন প্লাজার ২৪টি জোন থেকে ৭০০ জন প্লাজা ম্যানেজার এবং সহকারী ম্যানেজার কনফারেন্সে অংশ নেন। এতে কৌশলগত বিক্রয় ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করেন ওয়ালটন গ্রুপের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে গবর্নরের আহ্বান

দেশের উত্তরাঞ্চলসহ সারাদেশেই দেখা দিয়েছে শীতের প্রকোপ। আগামী ক’দিনে শৈত্যপ্রবাহসহ শীতের প্রকোপ আরও বাড়বে- আবহাওয়া অফিসের এমন পূর্বাভাস রয়েছে। অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্ষেত্রে সম্ভব না হলেও শৈত্যপ্রবাহ, শীতের প্রকোপের মতো দুর্যোগে আগাম প্রস্তুতি নিলে তা মোকাবেলা করা সহজ হয়। এর জন্য প্রয়োজন সচেতনতা আর সাহায্যের হাতটুকু একটু বাড়িয়ে দেয়া। সামাজিক দায়বদ্ধতার আওতায় দেশের বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান তথা গোটা আর্থিক খাতকে শীতার্ত মানুষের জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান। মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তিনি এ আহ্বান জানান। ব্যাংক হিসাবধারী পথশিশুসহ অন্য পথশিশুরা যেন শীতের প্রকোপে কষ্ট না পায়, সেটা নিশ্চিত করার কথা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

ক্ষুদ্রবীমার অগ্রগতিতে শীর্ষ দশে বাংলাদেশ

এশিয়া ও ওশেনিয়া অঞ্চলে ক্ষুদ্রবীমার অগ্রগতিতে শীর্ষ দশে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। বীমার আওতায় আসা মোট জনসংখ্যার দিক দিয়ে এবং দেশের মোট জনসংখ্যার শতাংশ হিসাবে বাংলাদেশের অবস্থান চতুর্থ। অন্যদিকে, ক্ষুদ্রবীমার আওতায় আসা জনসংখ্যার দিক দিয়ে ভারত শীর্ষে অবস্থান করলেও দেশের মোট জনসংখ্যার শতাংশ হিসাবে শীর্ষে অবস্থান করছে ফিলিপিন্স। মিউনিখ রি ফাউন্ডেশন এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে। এশিয়া ও ওশেনিয়া অঞ্চলভিত্তিক ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১২ সাল নাগাদ বাংলাদেশের ৯.৪ মিলিয়ন অল্প আয়ের নাগরিক ক্ষুদ্রবীমার আওতায় এসেছে। অর্থাৎ তাদের হিসাব অনুযায়ী দেশের মোট জনসংখ্যার ৬.১ শতাংশের ক্ষুদ্রবীমা আছে। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার