২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী আজ

মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী আজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ ৯ ডিসেম্বর বেগম রোকেয়া দিবস। নারী জাগরণের অগ্রদূত ও মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার ১৩৫ জন্ম ও ৮৩তম মৃত্যুবার্ষিকী। নারীকে শিক্ষা ও ক্ষমতায়নের পথে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে তিনি বিশেষ ভূমিকা পালন করেন। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। এছাড়া রোকেয়া দিবসে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াও বাণী দিয়েছেন। রোকেয়া দিবসে সরকারী-বেসরকারীভাবে বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান আজ নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে দিবসটি পালনের আয়োজন করেছে। বেগম রোকেয়া দিবসে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ তাঁর বাণীতে বলেছেন, ধর্মীয় গোঁড়ামি, রক্ষণশীলতার কূপম-ূকতা ও অশিক্ষার অভিশাপ থেকে নারীদের মুক্ত করতে বেগম রোকেয়া অনন্যসাধারণ ভূমিকা পালন করেন। তাঁর ক্ষুরধার লেখনিতে নারীর অধিকার, শিক্ষা এবং বঞ্চনার বিরুদ্ধে উচ্চারিত আহ্বান তৎকালীন নারী সমাজকে জাগিয়ে তোলে। ক্ষণজন্মা এই মহীয়সী নারী তাঁর জীবনের অধিকাংশ সময় ব্যয় করেছিলেন এই উপমহাদেশের অবহেলিত, নির্যাতিত ও অসহায় নারীদের উন্নয়নে। নারীর উন্নয়নে বেগম রোকেয়ার অবদান জাতি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করে।

বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বাণীতে বলেছেন, বেগম রোকেয়া শুধু একটি নাম নয়; তিনি ছিলেন নারী শিক্ষার একটি প্রতিষ্ঠান। ঊনবিংশ শতাব্দীর কুসংস্কারাচ্ছন্ন রক্ষণশীল সমাজের শৃঙ্খল ভেঙ্গে বেগম রোকেয়া নারী জাতির মধ্যে ছড়িয়ে দেন শিক্ষার আলো।

এদিকে বেগম রোকেয়া দিবসে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া তাঁর বাণীতে বলেন, বেগম রোকেয়া ছিলেন এদেশের নারী জাগরণের অগ্রদূত। তিনি উপলব্ধি করেছিলেন শিক্ষাই নারীর আত্মমর্যাদা প্রতিষ্ঠার প্রধান অবলম্বন। রোকেয়া দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন পৃথক শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, নারী সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, নির্ধারিত বক্তৃতা ও স্বরচিত কবিতা আবৃত্তির আয়োজন করেছে।