২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিউজিল্যান্ড পরীক্ষায় শ্রীলঙ্কা

  • ডুনেডিনে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে তিনটায় শুরু দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ উপমহাদেশের দলগুলোর জন্য অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সবসময়ই বড় এক পরীক্ষা। শ্রীলঙ্কার জন্য পরীক্ষাটা আরও বেশি। প্রতিকূল পরিবেশে অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারাকে পাচ্ছেন না এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। তার ওপর মঙ্গলবারই ডোপ টেস্টে পজেটিভ হওয়ায় দল থেকে ছিটকে গেছেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান কুশল পেরেরা। বিপরীতে আকর্ষণীয় ক্রিকেট খেলছে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলে ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের দল। সদ্য অস্ট্রেলিয়ায় সিরিজ হারলেও টেস্টে আশাজাগানিয়া পারফর্মেন্স তাদের। ভাল করতে উজ্জীবিত কিউইরা। সুতরাং বদলে যাওয়া লঙ্কানদের জন্য চ্যালেঞ্জটা একটু বেশিই। অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস সেটি স্বীকার করেছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে সাফল্যের ধারায় এবার আরও নব উদ্যমে শুরু করতে চান। ডুনেডিনে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে তিনটায় শুরু দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। দু-মাস আগে ঘরের মাটিতে ভারতের কাছে টেস্ট সিরিজে হারে লঙ্কানরা। যদিও সম্প্রতি তিন ফরমেটেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারায় তারা। সর্বশেষ এই সাফল্যই ম্যাথুসদের আত্মবিশ্বাস যোগাবে। তবে ব্ল্যাকক্যাপসদের বিপক্ষে সবকিছু শূন্য থেকে শুরু করতে হবে বলেই মনে করেন তিনি। লঙ্কাপতি বলেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সত্যিকারার্থেই আমরা দারুণ ক্রিকেট খেলেছি। তিন ফরমেটের তিন বিভাগেই আমরা তাদের পরাস্ত করেছি। কিন্তু কন্ডিশন ও প্রতিপক্ষ ভিন্ন হওয়ায় নিউজিল্যান্ড সফরটা অনেক চ্যালেঞ্জিং হবে। কারণ এখানকার আবহাওয়া আমাদের অনুকূলে থাকবে না, এটা কঠিন এবং প্রচ- ঠা-া হবে। তবে বিষয়টা মানসিকভাবেই অতিক্রম করতে হবে।’ বিশ্বের অন্যতমসেরা অলরাউন্ডার আরও যোগ করেন, ‘আমরা মানসিকতা ঠিক রাখতে পারলে ঠা-া কিংবা আর কিছুতে চিন্তিত হওয়ার কিছু থাকবে না, কোন অভিযোগ দাঁড় করাতে চাইব না। আমরা প্রতি ম্যাচ ধরে এগোব এবং জয়ের জন্য মাঠে নামব।’ প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড এখন অনেক বেশি শক্তিশালী বলে উল্লেখ করে ম্যাথুস বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড এখন বিশ্বের অন্যতম শক্তিধর ও আত্মবিশ্বাসী এক দল। সেটা কেবল তাদের নিজেদের মাঠে নয়, সব জায়গাতেই। গত দুই বছরে সেটি তারা করে দেখিয়েছে। কিউদের হারানোটা আমাদের জন্য সত্যি কঠিন হবে। তাই নিজেদের সেরাট খেলাটাই খেলতে হবে।’ ব্যাট হাতে দিমুথ করুনারতেœকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে, ঘরের মাটিতে উইন্ডিজ সিরিজের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। সিরিজে ভাল করেছেন দিনেশ চান্দিমালও। ডোপিংয়ে পজেটিভ কুশলকে সরিয়ে নেয়ায় হয়ত উইকেটের পেছনেও থাকবেন এই প্রতিভাবান ক্রিকেটার। বোলিংয়ে বড় ভরসা স্পিনার রঙ্গনা হেরাথ। পেসার হিসেবে মিলিন্দা শ্রীবর্ধনে ভাল করছেন। তবে ফিটনেস সমস্যায় মূল স্ট্রাইক বোলার ধাম্মিকা প্রসাদ। এটি সফরকারীদের জন্য দুশ্চিন্তার। অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়া সফরে সিরিজ হারলেও নিউজিল্যান্ডের পারফর্মেন্স আশাজাগানিয়া। নিজেদের কান্ডিশনে কিউদের পেস আক্রমণ অসাধারণ।