১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তবু অটুট ভালবাসার বন্ধন

  • মাহমুদা সুবর্ণা

যুক্তরাষ্ট্রের রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী স্কেটার লিন্ডসে ভন। অসাধারণ পারফরমেন্স উপহার দিয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। বর্তমানে বিশ্বব্যাপীই ভক্ত-অনুরাগী রয়েছে তার। তবে স্কিংয়ের চেয়েও বেশি আলোচনায় এসেছিলেন তিনি গলফ সম্রাট টাইগার উডসের সঙ্গে প্রেম করে। কিন্তু দুর্ভাগ্য এই স্কেটারের। সেই সম্পর্ক খুব বেশিদিন টেকেনি। ছয় মাস আগেই বিচ্ছ্যেদ ঘটে তাদের। কিন্তু তারপরও টাইগার উডসকে এখন পর্যন্ত ভুলতে পারেননি অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন লিন্ডসে ভন। এ বিষয়ে ৩১ বছর বয়সী এই বরফের রানী অকপটেই জানিয়ে দিলেন যে, বিশ্বের সাবেক নাম্বার ওয়ান গলফারকে আগের মতোই ভালবাসেন তিনি! স্কি জগতে সোনার ভন। তাঁর সঙ্গে টাইগার উডসের জুটি ক্রীড়াজগতে ‘ফার্স্ট কাপল’ মর্যাদা পেয়েছিল। কিন্তু তিন বছরের সম্পর্ক ভেঙ্গে যায় গত মে মাসে। ভন জানিয়েছিলেন, পেশাদার জীবনে অসম্ভব চাপে থাকতে হয় তাদের। ব্যস্ত ক্রীড়াসূচীর জন্য পরস্পরকে সময় দিতে পারেন না। তাই আলাদা হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত।

কিন্তু ছয় মাস পর সম্প্রতি সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ভন জানান, সাবেক প্রেমিককে তিনি এখনও ভুলতে পারেননি। এ বিষয়ে ভন বলেন ‘আমি ওকে ভালবেসেছিলাম। এখনও ভালবাসি। টাইগারের সঙ্গে তিন বছর দারুণ সময় কাটিয়েছি। কখনও কখনও কোন কিছুই ঠিকঠাক চলে না। আমাদের ক্ষেত্রে সেটাই হয়েছে। যা হয়েছে তার জন্য আমার কোন আফসোস নেই। ব্যক্তিগত জীবনে আমরা দুজনই এখন ভালই রয়েছি।’

২০১২ সালে এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অনুষ্ঠানে টাইগারের সঙ্গে প্রথম দেখা হয় ভনের। তারপর বন্ধুত্ব ও প্রেম। পরের বছর মার্চে ফেসবুকে সম্পর্কের কথা প্রথম প্রকাশ্যে ঘোষণা করেন টাইগার। ২০১৩ সালের শুরুতেই স্কিয়ার টমাস ভনের সঙ্গে লিন্ডসের সম্পর্কের শেষ হয়ে যায়। স্ত্রী এলিন নর্দেগ্রীনের সঙ্গে ২০১০ সালে বিচ্ছেদ হয়ে যায় টাইগারের। ফলে নতুন সম্পর্ক দ্রুতই এগিয়ে যায়। দুই সন্তান চার্লি ও স্যামের সঙ্গে ভনের সময় কাটানোর সুযোগ করে দেন টাইগার। গলফ টুর্নামেন্টগুলোতেও তাঁর উপস্থিতি ছিল নিয়মিত। আবার ভনের বিশ্বকাপ স্কি রেসেও তাকে উদ্বুদ্ধ করতে গিয়েছিলেন টাইগার। কিন্তু ছবিটা যেন হঠাৎ করেই বদলে যায় মে মাসে। এখনও নতুন সম্পর্কে জড়াননি ভন। আপাতত নিজের কেরিয়ারের দিকেই নজর দিতে চান ভন। টাইগার উডসের সঙ্গে সম্পর্ক না থাকলেও সময়টা বেশ ভালোই কাটছে আমেরিকান স্কেটারের। দুইদিন আগেই আলপাইন স্কিং ওয়ার্ল্ড কাপ ওমেন্স ডাউনহিল প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন তিনি। বছরের শেষ দিকে এই ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজেকে পাদপ্রদীপের আলোয় নিয়ে এলেন ভন। ১ মিনিট ৫০.৫০ সেকেন্ডে টাইমিংয়ে শিরোপা জিতেন তিনি। লিন্ডসে ভনের ক্যারিয়ারের ৬৯তম শিরোপা এটি। আর ১১৫তম বার পুদিয়ামে ওঠার রেকর্ড গড়লেন তিনি। কানাডার লেক লুইসে অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন লিন্ডসে ভনের এটা ১৬তম মেজর শিরোপা। এই ইভেন্টের রানার আপ হয়েছেন অস্ট্রিয়ার কোরনেলিয়া হুইটার। লিন্ডসে ভনের চেয়ে .৫৮ সেকেন্ড কম টাইমিং নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থেকে প্রতিযোগিতা শেষ করেন তিনি। আর তিন নাম্বারে থেকে প্রতিযোগিতা শেষ করেন হুইটারেরই স্বদেশী রামোনা সাইবেনহোফার। কানাডায় শিরোপা জেতা এই আমেরিকানের লক্ষ্য এখন নতুন বছরে নিজেকে আরও ভালভাবে মেলে ধরা, ‘বাস্তবে আর মাত্র তিন বছর আমি রেসে নামতে পারব। তাই কেরিয়ারে মন দিতে চাই।’

ভনের সময়টা ভাল গেলেও এই মুহূর্তে হতাশায় ডুবছেন টাইগার উডস। এতটাই যে বলছেন, ‘সামনে তাকালে শুধুই অন্ধকার দেখছি। এই অনন্ত অন্ধকারের শেষে আলোর দিশা কোথায়, জানি না!’ বিশ্বের সর্বকালের সেরা ক্রীড়াবিদদের অন্যতম। অথচ সেই গলফ কিংবদন্তিই এই মুহূর্তে চোটের নাগপাশে এমন অসহায় যে কেরিয়ারটাই শেষ হয়ে গেল বলে মুষড়ে পড়েছেন। পিঠে তৃতীয় অস্ত্রোপচারের পর গলফ স্টিক হাতে আর কোনও দিনও নামতে পারবেন কি না, বুঝতে পারছেন না। অবস্থা এমন যে সাবেক বিশ্বসেরা গলফারের মনোবল বাড়াতে এগিয়ে এসেছে বর্তমান এক নাম্বার, জর্ডান স্পিথ। চলতি বছরে মাস্টার্স এবং যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে জোড়া মেজর জয়ী বাইশ বছরের স্পিথ অন্ধ টাইগার ভক্ত। বলেন, ‘আমার খেলায় সবচেয়ে বেশি প্রভাব টাইগারের। আমি বিশ্বাস করি ওর মধ্যে এখনও অনেক গলফ বাকি। চাই তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে মাঠে ফিরুক।’ তবে সেই সুস্থ হয়ে ওঠার রাস্তাটা কী, সেটা স্পিথও জানেন না। ১৪টি মেজর জয়ী উডস আগামী ৩০ তারিখ চল্লিশতম জন্মদিন পালন করবেন। শারীরিক ফিটনেস সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘কবে ঠিক হব জানি না। আমার শল্যচিকিৎসকও জানেন না। নার্ভ-এর অস্ত্রোপচার ব্যাপারটাই এমন। আপাতত শুধু হাঁটতে পারছি। আগামী বছর ব্রাজিলের রাজধানী রিও ডি জেনেরিওতে শুরু হচ্ছে ক্রীড়াজগতের মহাযজ্ঞ অলিম্পিকের আসর। আর ১৯০৪ সালের পর এই অলিম্পিকের আসরেই ফিরছে গলফ। সেই টুর্নামেন্টে নিজেকে মেলে ধরার স্বপ্ন দেখছেন উডস। টাইগার উডস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিশ্বের সেরাদের নিয়ে আমন্ত্রণী গলফ হিরো ওয়ার্ল্ড চ্যালেঞ্জে খেলছেন ভারতের গলফার অনির্বাণ। যার প্রশংসায় পঞ্চমুখ উডস। এ বিষয়ে আমেরিকান গলফ সম্রাট টাইগার উডস বলেন, ‘এশিয়া, ইউরোপীয় আর যুক্তরাষ্ট্র ট্যুরে এক সঙ্গে খেলা কঠিন কাজ। আমি চাই ও সব রকমের সাফল্য পাক।’