২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যশোরে নারী মেয়র প্রার্থী নেই

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ যশোরের ৬ পৌরসভায় পুরুষের চেয়ে মহিলা ভোটার সংখ্যা বেশি। ২ লাখ ৪৪ হাজার ৬০৭ ভোটারের মধ্যে ১ লাখ ২৩ হাজার ২৪৪ জন মহিলা ভোটার রয়েছেন। অধিকসংখ্যক মহিলা ভোটার এবারের নির্বাচনে পুরুষ মেয়রপ্রার্থীকেই নির্বাচিত করবেন। জেলার ৬টি পৌরসভা নির্বাচনে কোন রাজনৈতিক দল মেয়র পদে মহিলাদের মনোনয়ন দেয়নি। আবার স্বতন্ত্রভাবেও কেউ মেয়র পদে দাঁড়াননি। ফলে এবারের নির্বাচনে সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন।

যশোর জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি এ্যাডভোকেট সেতারা খাতুন বলেন, যোগ্য প্রার্থীর অভাব নেই। ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারম্যান পদে সরাসরি নির্বাচন করে মহিলারা যোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছেন। তবুও দলীয়ভাবে মহিলাদের মেয়র পদে কাউকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি। নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে হলে সবক্ষেত্রে নারীদের সুযোগ দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন করতে হবে, না হলে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হবে না। এজন্য সব রাজনৈতিক দলের সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত। পুরুষদের পাশাপাশি নারীদেরও সুযোগ দিতে হবে।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, যশোর পৌরসভায় মেয়রপ্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের জহিরুল ইসলাম চাকলাদার, বিএনপির মারুফুল ইসলাম, স্বতন্ত্র এসএম কামরুজ্জামান চুন্নু ও ইসলামী আন্দোলনের মোহাম্মদ আলী। বাঘারপাড়ায় কামরুজ্জামান বাচ্চু, বিএনপির আবদুল হাই মনা, বিদ্রোহী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের সিদ্দিকী, স্বতন্ত্র খলিলুর রহমান ও যুবদল নেতা ইফতেখারুল আলম লিটন।

কেশবপুরে আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম মোড়ল, বিএনপি মনোনীত আবদুস সামাদ বিশ্বাস, বিএনপির বিদ্রোহী আলমগীর কবির মেয়র পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

নওয়াপাড়ায় এখানে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত সুশান্ত কুমার দাস, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ফারুক হোসেন ও সরদার অলিয়ার রহমান, বিএনপি মনোনীত রবিউল হোসেন ও বিএনপির বিদ্রোহী মশিয়ার রহমান।

চৌগাছা আওয়ামী লীগের নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেল, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী এসএম সাইফুর রহমান বাবুল, বিএনপি মনোনীত সেলিম রেজা আওলিয়ার ও জামায়াতের নেতা মাস্টার কামাল আহমেদ। মণিরামপুরে ১৯ হাজার ২৪৪ ভোটারের মধ্যে ৯ হাজার ৬৫৭ জন পুরুষ ও ৯ হাজার ৫৮৭ জন মহিলা রয়েছেন। এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত সভাপতি মাহামুদুল হাসান, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী জিএম মজিদ, বিএনপির শহীদ ইকবাল হোসেন, ইসলামী আন্দোলনের মনোনীত আবু তালেব মেয়র পদে লড়ছেন।