২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মূল্যস্ফীতি নবেম্বরে কমে ৬.০৫ শতাংশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের মূল্যস্ফীতির হার কমেছে। এক্ষেত্রে সার্বিক, খাদ্যপণ্য, খাদ্যবহির্ভূত পণ্য, গ্রামে ও শহরে সবক্ষেত্রেই মূল্যস্ফীতি নিম্নমুখী। গত নবেম্বর মাসে দেশের সার্বিক মূল্যস্ফীতির হার পয়েন্ট টু পয়েন্টে কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশে, যা অক্টোবর মাসে ছিল ৬ দশমিক ১৯ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৭২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৮৯ শতাংশ। খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাড়িয়েছে ৬ দশমিক ৫৬ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হিসাব অনুযায়ী বুধবার এসব তথ্য প্রকাশ করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল। রাজধানীর শেলেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের (জিইডি) সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব কানিজ ফাতেমা,পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য হুমায়ুন খালিদ ও এসএম গোলাম ফারুক প্রমুখ।

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, চাল, ডাল, শাক-সবজি, মসলা এবং ভোজ্যতেল জাতীয় দ্রব্যাদির মূল্য হ্রাসের কারণে মাসিক ভিত্তিতে অর্থাৎ অক্টোবর ২০১৫ এর তুলনায় নবেম্বর ২০১৫ এ খাদ্যসামগ্রী উপ-খাতে মূল্যস্ফীতি কমেছে। তিনি বলেন নবেম্বর মাসে শীত শুরু হওয়ায় মৌসুমী সবজির ব্যাপক সরবরাহ হয়েছে। তাছাড়া সারাদেশে পণ্য সরবরাহ চেন স্বাভাবিক ছিল ফলে নবেম্বরে মূল্যস্ফীতি কমেছে।

বিবিএসের তথ্য অনুযায়ী দেখা যায়, গ্রামে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে সার্বিক মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৬১ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৮২ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ২৩ শতাংশ। খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৭৬ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৯০ শতাংশ।

শহরে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে সার্বিক মূল্যস্ফীতি ৬ দশমিক ৮৮ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৯১ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ। খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ২৯ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৩৩ শতাংশ।