২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেষ চারে খেলবে ঢাকা না সিলেট ফয়সালা আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) তৃতীয় আসরের শেষের ঘণ্টা বাজছে। আর মাত্র ছয়দিন বাকি আছে টুর্নামেন্ট শেষ হতে। ১৫ ডিসেম্বর ফাইনাল ম্যাচ দিয়ে এবারের আসরের পর্দা নামবে। আজ টুর্নামেন্টের লীগ পর্বের খেলা শেষ হচ্ছে। বেলা ২টায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও সিলেট সুপার স্টারস এবং সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকা ডায়নামাইটস ও বরিশাল বুলস মুখোমুখি হবে। দিনটি শেষ হতেই শুরু হয়ে যাবে শেষ চারের লড়াইয়ে নামার ভাবনা।

শেষ চারে খেলা এরইমধ্যে নিশ্চিত করে নিয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, সাকিব আল হাসানের দল রংপুর রাইডার্স ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল বরিশাল বুলস। আরেকটি দল বাকি। সেই দলটি ঢাকা অথবা সিলেট, যে কেউ হতে পারে। আজ ঢাকা যদি জিতে তাহলে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শেষ চারে উঠে যাবে। উল্টো ফল হলে অর্থাৎ ঢাকা হারলেও সম্ভাবনা আছে। যদি ৬ পয়েন্ট পাওয়া সিলেট হারে। আর যদি সিলেট জিতে, ঢাকা হারে তখন পয়েন্ট সমান হয়ে যাওয়ায় রানরেটে এগিয়ে থেকে দুই দলের মধ্যে যে কোন একটি দল শেষ চারে খেলবে। সেই ফয়সালাই হবে আজ।

এবারের টুর্নামেন্ট হচ্ছে আইপিএলের আদলে। শুরুতে লীগ পর্ব হচ্ছে। গত ২২ নবেম্বর শুরু হয়েছে এ পর্ব। ১৫ দিনে গিয়ে লীগ পর্ব শেষ হচ্ছে। এ পর্ব শেষে ফাইনালে ওঠার জন্য আরও তিনটি ম্যাচ হবে। প্রথম কোয়ালিফায়ার, এলিমিনেটর ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ হবে। ১২ নবেম্বর বেলা ২টায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ও সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় এলিমিনেটর ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ১৩ নবেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় হবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। প্রথম কোয়ালিফায়ারে পয়েন্ট তালিকার এক নম্বরে ও দুই নম্বরে থাকা দলের মধ্যকার লড়াই হবে। যে দল জিতবে সরাসরি ফাইনালে চলে যাবে। হারা দল টিকে থাকবে। এলিমিনেটর ম্যাচে লড়াই করবে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে থাকা দল দুটি। যে দল হারবে বিদায় নেবে। আর জেতা দল প্রথম কোয়ালিফায়ারের হারা দলের বিপক্ষে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি হবে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে যে দল হারবে, তারা টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেবে। ম্যাচটিতে যে দল জিতবে, তারা প্রথম কোয়ালিফায়ারের বিজয়ী দলের বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলবে।

৬ দল খেলছে টুর্নামেন্টে। ডাবল লীগ পদ্ধতিতে খেলা হচ্ছে। প্রতি দল পরস্পরের বিপক্ষে দুটি করে ম্যাচ খেলবে। সেই হিসেবে একেকটি দল মোট ১০ ম্যাচ খেলবে। এরমধ্যে তামিম ইকবালের চিটাগাং ভাইকিংস সবার আগে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে।

কাগজে-কলমে শক্তিশালী হলেও মাঠে আকর্ষণীয় কোন নৈপুণ্যই দেখাতে পারেনি চিটাগাং। আর তাই দলটির অধিনায়ক তামিম ইকবাল দুঃখই প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, ‘আমরা খুবই দুঃখিত। আশা আমরা পূরণ করতে পারিনি।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমাকে ব্যক্তিগতভাবে জিজ্ঞেস করলে আমি অবশ্যই আবার চিটাগাং ভাইকিংসে খেলতে চাইব। কারণ, আমাকে পুরো স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। কোন বাধা পাইনি। আমাকে জিজ্ঞেস করলে, চিটাগাং ভাইকিংস এক নম্বর অপশন থাকবে।’ এবার ৬ আইকন ক্রিকেটারের একজন ছিলেন তামিম। আইকনরাও ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ই দল পেয়েছেন। ভাগ্যক্রমে চিটাগাংই তামিমকে নিতে পেরেছে। আগামী আসরে তা সম্ভব হবে, এর কোন নিশ্চয়তা নেই। তবে দলকে যে শেষ চারে নিতে পারলেন না, হয়ত এর দায়বদ্ধতা তামিমের নিজের মধ্যেই কাজ করছে। তাই তো যতই খারাপ অবস্থা হোক, এই দলটিতেই খেলতে চান তামিম।

সেই সুযোগটি তামিম আবার পেলেও পেতে পারেন। তবে টুর্নামেন্টে কিন্তু খুব সুখেই আছেন আইকন ক্রিকেটার মাশরাফি, সাকিব, মাহমুদুল্লাহ। তারা যে অনেক আগেই শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে ফেলেছেন। এখন এ তিন দলের মধ্যে কোন দল পয়েন্ট তালিকার প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে থাকতে পারে, তাই দেখার বিষয়। পয়েন্ট তালিকার সেরা দুইয়ে থাকতে পারলে যে ফাইনালে ওঠার সুযোগ বাড়তি মিলবে। প্রথম কোয়ালিফায়ারে হারলেও আরেক ম্যাচে খেলে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলার সুযোগ থাকবে। যেখানে কুমিল্লা, রংপুর ও বরিশাল পয়েন্ট তালিকার সেরা দুইয়ে থাকার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে, সেখানে ঢাকা ও সিলেট শেষ চারে খেলার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করছে। আজ লীগ পর্বের শেষদিনেই নিশ্চিত হবে ঢাকা ও সিলেটের মধ্যকার কোন দল চতুর্থ দল হিসেবে শেষ চারে খেলতে পারবে।