২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টাইগার রবির হুঙ্কার...

  • মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ্

দুপুর ১২টায় ফোন করে জানানো হলো আপনার একটা সাক্ষাতকার নেয়া হবে। আড়াইটার দিকে ফ্রি থাকবেন। ওপাশ থেকে কথা বলার ধরনে মনে হচ্ছিল তিনি খাবার খাচ্ছেন। আড়াইটায় ফোন দিয়েও মনে হলো তিনি খাবার খাচ্ছেন। ঘটনা কী? একজন মানুষ সারাদিন শুধু খেতেই থাকেন? কৌতূহল চেপে না রেখে সরাসরি জানতে চাইলাম, ভাই কি খাচ্ছেন? পরে ফোন দিব?

দুর্দান্ত ভিলেনের মুখে হাসি। সে হাসি ভয় জাগানিয়া না। মজার হাসি। ভাইরে, কথা শুরুর আগেই ইন্টারভিউ শুরু করলেন? খাওয়া-দাওয়া পুরো নিয়ন্ত্রণে রেখেছি। যখন গ্যাংস্টার রিটার্নস শুরু করি তখন ওজন ছিল ১১২ কেজি। মুসাফির ও কিস্তিমাত ছবিতে চরিত্রের প্রয়োজনে ওজন কমাতে হয়েছে। দুই বছরে বিশ কেজি ওজন কমিয়েছি। তাহলে বোঝেন কত পরিমিত খাওয়া-দাওয়া আর ব্যায়ামের মধ্যে আছি? কথা হচ্ছিল রবিউল ইসলাম রবি ওরফে টাইগার রবির সঙ্গে। সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া আশিকুর রহমান পরিচালিত গ্যাংস্টার রিটার্নস সিনেমার ভিলেনের চরিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন।

পর্দায় নায়ককে ভয় দেখানোর জন্য নামের আগে টাইগার বসানো হয়েছে কি না? আবার হাসলেন, অতীতে ফিরে যাওয়া সে হাসি আনন্দের পাশাপাশি গর্বের, কষ্টের।

১৯৮৪ সালে দেশ-বিদেশ কাঁপিয়ে তোলেন এক কুস্তিগীর। এখন যেমন আমাদের ক্রিকেটারদের হুঙ্কারে কাঁপতে থাকে বড়-বড় দেশের ক্রিকেটাররা। তেমনি জলিল নামে এক কুস্তিগীরের হুঙ্কারে বাঘে মহিষে এক ঘাটে জল খায় অবস্থা। কুস্তিতে দুর্দান্ত সাহস দেখানো, একের পর এক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করে বিজয় মুকুট পরায় মিস্টার জলিলকে টাইগার উপাধি দেয়া হয়। সেই টাইগার জলিলের ছেলেই আমাদের ভিলেন রবি। পারিবারিক উপাধি টাইগার থেকে টাইগার রবি।

তার সিনেমায় আগমন ২০১২ সালে। সামুরাই মারুফ এর ‘পারলে ঠেকা’ সিনেমার মাধ্যমে। প্রথম চলচ্চিত্র আলোর মুখ না দেখলেও ঝলমলে আলোর দেখা পান রবি। সিনেমার ‘কলিজায় সাউন্ড করছে জঙ্গলে ডাক’ শিরোনামে একটা গান ছড়িয়ে পড়ে অনলাইনে। সেখানে সাদা ফ্রেমের সানগ্লাস, গলায় হাতির দাঁতসদৃশ্য লকেটসহ এক গাদা চেন, হাত ভর্তি চুড়ি আর ব্রেসলেট, থুঁতনি ছুঁই ছুঁই গোঁফ, শক্ত পোক্ত পেটা শরীরের এক ভিলেনের আগমন দেখা যায়।

এটা দেখেই সৈকত সালাউদ্দিন তাকে ফোন করে অফার দেন গ্যাংস্টার রিটার্নস ছবিতে মূল ভিলেনের চরিত্রে অভিনয়ের।

এর পর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। একে একে কাজ করেছেন মোস্ট ওয়েলকাম-টু, কিস্তিমাত, অচেনা হৃদয়, দেশা দ্যা লিডার, মুসাফির, অঙ্গার সিনেমায়। হাতে রয়েছে ম্যাডাম ফুলি-টু, বেশকিছু কাজ।

ভিলেন হিসেবে অভিয়ন প্রসঙ্গে বলেন, ‘স্ট্রং ভিলেন চলচ্চিত্রের বড় সম্পদ। অনেক ক্ষেত্রে নায়কের চেয়ে ভিলেনের চরিত্র বেশি চ্যালেঞ্জিং থাকে। চরিত্রের বৈপরীত্যের অভাব নেই। এছাড়া ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছি ৩৫ বছর বয়সে, এ বয়সে হিরোর চেয়ে এন্টি-হিরোর চরিত্রেই নিজেকে বেশি মানানসই লাগে। অভিনয়ের সময় অযথা চিল্লা-চিল্লি না করে ঠাণ্ডা মেজাজে বুদ্ধিদীপ্ত সংলাপ দিয়েও খলনায়কের অভিনয় করা যায় এবং তা দর্শক পছন্দও করে। আমি সেটাই করতে চাই’। ভবিষ্যতে ব্যতিক্রম ও বাস্তবসম চরিত্র হলে হিরো হিসেবেও দেখা যেতে পারে বলে জানালেন রবি।

বাংলা চলচ্চিত্রের ভিলেনের উপস্থাপনা নিয়ে দ্বিমত আছে রবির। ভিলেন মানেই বোকা-সোকা, হিংস্র, ধর্ষক। নায়ক যত লিকলিকে-দুর্বলই হোক এ্যাকশন দৃশ্যে এক থাপ্পড়ে চার পাঁচ ভিলেনকে কুপোকাত করে ছাড়ে। চলচ্চিত্রের উন্নয়নের সার্থে সেকেলে কন্সেপ্ট থেকে বের হয়ে আসতে হবে। বুদ্ধিদীপ্ত নায়ক ও ভিলেনের উপস্থিতি থাকতে হবে।

আর হটের সংমিশ্রণে ভিন্ন একটা মেজাজের ভিলেন চরিত্র তৈরি করতে চান তিনি। যাতে শহর-গ্রাম উভয় শ্রেণীর দর্শকদের জন্য সমান বিনোদনের খোরাক হতে পারেন।

বাংলা চলচ্চিত্রে গত ২০ বছরে শত শত নায়ক-নায়িকার আবির্ভাব হলেও ভিলেনের সংখ্যা হাতেগোনা। একই ভিলেনকে একাধিক সিনেমায় দেখতে দেখতে দর্শক একঘেয়েমিতে ভুগবে এটাই স্বাভাবিক। ভিলেনের চরিত্রের গুরুত্ব কম বিধায় এই অবস্থা বলে মনে করেন রবি। নায়ক-নায়িকার পাশাপাশি ভিলেনদের সাইকোলজিক্যাল সেন্টিমেন্ট, টার্ন, সাসপেনশন্স রাখতে হবে। তাহলেই দর্শক একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পাবে।

দেশে হুমায়ুন ফরীদির অভিনয় মুগ্ধ হয়ে দেখতেন, তার থেকে অনেক কিছু শিখেছেন। প্রয়াত হুমায়ুন ফরীদিই রবির প্রিয় অভিনেতা। এছাড়া সঞ্জয় দত্তের অভিনয় ভাল লাগে তার। একই সঙ্গে নায়ক ও খলনায়ক চরিত্রে নিজেকে কিভাবে মানিয়ে নিতে হয় তা শিখেছেন বলিউডের এই অভিনেতা থেকেই। চলচ্চিত্র ছাড়াও ব্যস্ত রবি ব্যবসা, নাটক ও বিজ্ঞাপনে। সিনেমায় কাজ বেড়ে যাওয়ায় ব্যবসায় খুব একটা নজর দেয়া হয় না যদিও।

রবির স্বপ্ন বাবা টাইগার জলিলের জীবনের গল্প নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা। দেশের আইডলগণ কারও পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া সম্পূর্ণ নিজের প্রচেষ্টায় কিভাবে বেড়ে ওঠেন সেটা দেশের মানুষকে জানানো। বাংলা চলচ্চিত্রে নমুনা হয়ে থাকতে চাওয়া রবি দর্শকের দোয়া প্রার্থী। ছবি : আকাশ