১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুঁজিবাজারে দরপতন অব্যাহত

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের পুঁজিবাজারে সূচকের পতন অব্যাহত রয়েছে। তবে উভয় বাজারেই লেনদেনের পরিমাণ আগের দিনের তুলনায় কমেছে। দুটি বাজারেই দরবৃদ্ধির শীর্ষে ছিল ছোট মূলধনী কিছু কোম্পানি। দিনটিতে ওষুধ এবং রসায়ন খাতের কোম্পানিগুলোর বেশিরভাগই দর বেড়েছে। তবে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে সবচেয়ে বেশি দর কমেছে তালিকাভুক্ত বীমা কোম্পানিগুলোর। দিনটিতে দরপতনের শীর্ষ ১০টি কোম্পানির মধ্যে ৫টিরই বীমা খাতের।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, সকালে ইতিবাচক প্রবণতা দিয়ে শুরুর পরে বৃহস্পতিবারে সারাদিন সূচকের ওঠানামা চলতে থাকে। দিনটিতে লেনদেনের গতি আগের দিনের মতোই মন্থর ছিল, তবে দিনশেষে বুধবারের চেয়ে ডিএসইতে ৩৭৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে; যা আগের দিনের তুলনায় ৭ কোটি টাকা বা ১ দশমিক ৮৫ শতাংশ কম লেনদেন। আগের দিন এ বাজারে ৩৮১ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ ৩২২টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৫টির, কমেছে ১৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬ টির শেয়ার দর।

সকালে বেশিরভাগ কোম্পানির দর বাড়ার কারণে সূচক কিছুটা বেড়েছিল। কিন্তু তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। কিছুক্ষণ পরেই সূচকের তীর নীচে নামতে থাকে। দিনশেষে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ৩ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৫৮৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক দশমিক ৫৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ১০৫ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক ২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৪১ পয়েন্টে।

দিনটিকে জিকিউ বলপেন দরবৃদ্ধির শীর্ষ স্থানে রয়েছে। শেয়ারটির দর বেড়েছে ৫ টাকা ৬ পয়সা বা ৮ দশমিক ৩৫ শতাংশ। ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, শেয়ারটির বুধবারে লেনদেন হয় ৭২ টাকা ৭০ পয়সা দরে। এদিন কোম্পানির ১ লাখ ৭৭ হাজার ৫১৭টি শেয়ার ৭১১ বারে লেনদেন হয়। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আল-হাজ্ব টেক্সটাইল। কোম্পানির প্রতিটি শেয়ারের দর বেড়েছে ৯ টাকা ৭ পয়সা বা ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ। এদিন শেয়ারটি সর্বশেষ লেনদেন হয় ১০৮ টাকা দরে। কোম্পানির ১০ লাখ ১১ হাজার ৯৩৬টি শেয়ার ৩ হাজার ৯৪৫ বারে লেনদেন হয়। তালিকার তৃতীয় স্থানে রয়েছে রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। শেয়ারটির দর বেড়েছে ২ টাকা ৬ পয়সা বা ৭ দশমিক ৯০ শতাংশ। এছাড়া গেইনার তালিকায় থাকা অন্য কোম্পানিগুলো হলো - স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি, প্রাইম ফিন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, রংপুর ফাউন্ডারি, ন্যাশনাল টিউবস এবং এপেক্স স্পিনিং অ্যান্ড নিটিং মিলস লিমিটেড।

ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা দশ কোম্পানি হলো - বেক্সিমকো ফার্মা, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, স্কয়ার ফার্মা, আল-হাজ্ব টেক্সটাইল, আফতাব অটোমোবাইলস, বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেড, কেডিএস এক্সেসরিজ, কাশেম ড্রাইসেলস, ইউনাইটডে পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রেবিউশনস কোম্পানি এবং শাশা ডেনিমস।

দর হারানোর তালিকার শীর্ষের কোম্পানিগুলো হলো : এনভয় টেক্সটাইল, প্রগেসিভ লাইফ, রূপালী লাইফ, ফাস্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড, বিআইএফসি, তসরিফা ইন্ড্রাস্টিজ, ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং, প্রগতি ইন্স্যুরেন্স, নদার্ন ইন্স্যুরেন্স ও জনতা ইন্স্যুরেন্স।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এদিন সিএসই সার্বিক সূচক ২২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৯৭৬ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৭ টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯০টি কোম্পানির, দর কমেছে ১১৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টি কোম্পানির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড, সিমটেক্স, কেডিএস এক্সেসরিজ, বিএসআরএম স্টিল, ইউনাইটেড এয়ার, বেঙ্গল উইন্ডসর থার্মোপ্লাস্টিক, মবিল যমুনা বাংলাদেশ ,শাশা ডেনিমস ও আইডিএলসি।