২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আস্থাহীনতায় আউটসোর্সিংয়ে আগ্রহ নেই ব্যাংকগুলোর

  • বিপিও সামিটে বক্তারা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্যাংকিং ব্যবসায় আউটসোর্সিংয়ের ভালো বাজার রয়েছে। তবে তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা করে সেবা দেয়ার মতো বিশ্বাসযোগ্য প্রতিষ্ঠানের অভাব রয়েছে। ফলে খরচ বিবেচনায় ব্যাংকগুলো আউটসোসিং সেবা নিতে চাইলেও নিরাপত্তা ও বিশ্বাসযোগ্যতার অভাবে অনাগ্রহ দেখায়। এখন আউটসোসিং প্রতিষ্ঠানগুলোকে সে আস্থা অর্জনের ওপর জোর দিতে হবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং (বিপিও) সামিটে ‘ব্যাংকিং আউটসোসিংয়ে সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক আলোচনায় এমন মত তুলে ধরেন ব্যাংকাররা। সাবেক ব্যাংকার কে মাহমুদ সাত্তারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান।

অনুষ্ঠানে গবর্নর বলেন, একটি সময় আউটসোসিং করে বৈধ পথে টাকা আনা সম্ভব ছিল না। বাংলাদেশ ব্যাংক সে বাধা দূর করেছে। রফতানি উন্নয়ন তহবিল (ইডিএফ) থেকে এখন পর্যন্ত আইটি খাতের ৮৭টি প্রতিষ্ঠানের আবেদনের বিপরীতে ১৫ কোটি টাকা সমপরিমাণ ঋণ দেওয়া হয়েছে। প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য গৃহায়ণ খাতে বিনিয়োগের সুযোগ তৈরী করা হয়েছে। তিনি বলেন, আর্থিক খাতে আউটসোসিং ব্যবসার সব চেয়ে গুরুত্বপূƒর্ণ বিষয় বিশ্বাসযোগ্যতা। ব্যাংকগুলো বিদেশি প্রতিষ্ঠান থেকে আউটসোসিং করে আইটি, এটিএম বুথ, কার্ডসহ অনেক সেবা দিচ্ছে। বাংলাদেশের আউটসোসিং প্রতিষ্ঠানগুলো এধরনের একটি ফ্ল্যাটফর্ম গড়ে তুলতে পারে।

ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব অ্যাকাউনটেন্টের (আইএফএসি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফায়েজুল চৌধুরী বলেন, সরকার ২০২১ সালের মধ্যে আউটসোসিং থেকে বছরে আয় একশ’ কোটি ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। তবে সে ধরনের দক্ষতা অর্জন ছাড়া এতো আয় সম্ভব না। তিনি জানান, আউটসোসিং থেকে বর্তমানে মাত্র ১৩ কোটি ডলার আয় হচ্ছে। তার মতে, এখনই আন্তর্জাতিক বাজারের দিকে জোর না দিয়ে আগে স্থানীয় বাজার বাড়ানো দরকার। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবরার এ আনোয়ার বলেন, খরচ বিবেচনায় আউটসোর্সিং সেবা নিতে ব্যাংকগুলোর আগ্রহ রয়েছে। তবে নিরাপত্তা ও বিশ্বাসযোগ্যতা এ দু’টি বিষয় নিশ্চিত না হয়ে কোনো ব্যাংকের পক্ষে আউটসোসিং সেবা নেওয়া সম্ভব না। তিনি বলেন, বিভিন্ন ব্যাংক বাইরের অনেক প্রতিষ্ঠান থেকে কিছু সেবা নেয়। দক্ষতা প্রমাণ করে এখানকার প্রতিষ্ঠানগুলোও দেশ ও বাইরে আউটসোসিংয়ের ভালো বাজার তৈরী করতে পারে।

নির্বাচিত সংবাদ