২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জয়পুরহাট চিনিকলে আখ মাড়াই শুরু আজ থেকে

নিজস্ব সংবাদদাতা, জয়পুরহাট ॥ শুক্রবার দেশের বৃহত্তম জয়পুরহাট চিনিকলের ২০১৫-২০১৬ মৌসুমের আখ মাড়াই শুরু হচ্ছে। চলতি মৌসুমে ৬৫ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছে ৪ হাজার ৮৭৫ মেট্রিক টন। এবার চিনি আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হযেছে শতকরা ৭.৫০ ভাগ। গত মৌসুমে ৯ হাজার ৫৩০ একর জমিতে আখ উৎপাদন করে ৮১ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে ৫ হাজার ৯৪২ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদন হয়েছিল। কিন্তু চলতি মৌসুমের জন্য সাড়ে ৭ হাজার একর জমিতে আখ উৎপাদিত হয়েছে। গত মৌসুম থেকে এবার ২ হাজার ২০ একর কম জমিতে আখ উৎপাদন হয়েছে। আখচাষী ও মিল কর্তৃপক্ষ জানান আখের মূল্য কম, সরবরাহকৃত আখের মূল্য সময়মতো পরিশোধ না করা, প্রতিযোগী শস্যের মূল্য থেকে আখের মূল্য কম হওয়ায় আখ চাষ থেকে সরে আসছেন চাষীরা। জয়পুরহাট চিনিকলে উৎপাদিত গত তিন বছরে প্রায় ২৫ কোটি টাকা মূল্যের সাড়ে ৬ হাজার মেট্রিক টনেরও বেশি চিনি এখনও রয়েছে অবিক্রীত। যার মধ্যে রয়েছে গত ২০১১-২০১২ মৌসুমের উৎপাদিত ১২০ মেট্রিক টন, ২০১৩-২০১৪ মৌসুমের উৎপাদিত চিনি রয়েছে ১ হাজার ১৫৮ মেট্রিক টন এবং ২০১৪-২০১৫ মৌসুমের চিনি রয়েছে ৫ হাজার ৪৮৮ মেট্রিক টন। এমন বিপুল পরিমাণ চিনি অবিক্রীত থাকলেও চলতি মৌসুমে প্রায় ৫ হাজার মেট্রিক টন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে মিলের উৎপাদন শুরু হচ্ছে ১১ ডিসেম্বর। এমন প্রচুর পরিমাণ চিনি বিক্রি না হওয়ায় চলতি মাড়াই মৌসুমে মিলে সরবরাহকৃত আখের মূল্য পরিশোধ নিয়ে কৃষকরা রয়েছে আশঙ্কায়। জয়পুরহাট চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুস সালাম বলেন, চিনি বিক্রি না হলেও চাষীদের সরবরাহকৃত আখের মূল্য পরিশোধে কোন সমস্যা হবে না। সময়মতো তাদের সরবরাহকৃত আখের মূল্য পরিশোধ করা হবে।