২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জলঢাকায় প্রার্থীরা জনসংযোগে

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ প্রতীক ছাড়া প্রচারণার প্রথম দিন বুধবার জনসংযোগের মাধ্যমে প্রচারণায় নীলফামারীর জলঢাকা পৌর এলাকার ৯টি ওয়ার্ডে নেমে পড়েছে পৌর নির্বাচনের দলীয় মেয়র ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। তারা ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রতীক ছাড়াই দোয়া নিয়ে কখনও হাত ধরে কখনও গলা মিলিয়ে যে যার মতো শুভেচ্ছাবিনিময় করছেন।

নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী নির্বাচনের ২১ দিনের আগে প্রচারণায় নামতে পারবেন না প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। সে হিসেবে বুধবার থেকে প্রতীক ছাড়াই জনসংযোগে বাধা নেই। দুপুরে পৌর এলাকার চেরেঙ্গা এলাকায় গিয়ে দেখা গেল আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর মুরব্বিদের দোয়া নিচ্ছেন, হাত ধরে কুশলবিনিময় করছেন। মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়াও দিচ্ছেন ভোটার ও সমর্থকরা। তাকে ভোট প্রদানে যে যার মতো মতামত প্রদান করছেন।

এ সময় আব্দুল ওয়াহেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। দলীয় প্রার্থী হিসেবে জনসংযোগ করছি। দলমত নির্বিশেষে এলাকাবাসীর ব্যাপক সমর্থন পাচ্ছি। এর আগে সকালে উপজেলা শহরের ডালিয়া সড়কে জনসংযোগ করতে দেখা যায় বিএনপি মনোনীত প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফাহমিদ ফয়সাল ওরফে কমেটকে। এ সময় কথা বললে ফাহমিদ ফয়সাল বলেন, আমি দলীয় মনোনয়নে নির্বাচন করছি। এখন জনসংযোগ করছি প্রতীক পাওয়ার পর আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় নামব। নির্বাচন কেমন হবে বলে মনে করেন? এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, এখন পর্যন্ত কোন সমস্যা হচ্ছে না।

এ অবস্থা থাকলে জয়ের ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। ২০ দলের শরিক দল জামায়াতের পক্ষে জলঢাকায় স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী থাকায় কোন সমস্যা হবে কিনাÑ জানতে চাইলে কমেট বলেন, তিনি জোটের প্রার্থী নন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। সে কারণে ২০ দলীয় জোটের ভোট তার পক্ষে থাকবে। ডালিয়া সড়কে দেখা যায় আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত স্বতন্ত্র প্রার্থী জলঢাকা পৌরসভার বর্তমান মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবুলকে। তিনি সেখানে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের সালিশ করছিলেন। তিনি বলেন, আমি এখনও আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করিনি। তবে জনসংযোগ চলছে।

এর আগে উপজেলা শহরের জিরো পয়েন্টে দেখা যায় জাসদের মনোনীত মেয়রপ্রার্থী আজিজুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, নির্বাচনী প্রচারণা এখনও শুরু করিনি, তবে জনসংযোগ চলছে। এ বিষয়ে কথা বললে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সেকেন্দার আলী বলেন, এখানে ৭ জন মেয়র ৪৩ জন ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং ১৫ জন সংরক্ষিত নারী প্রার্থী রয়েছেন। আগামী ১৩ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন।