২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এবার শেষ চারের লড়াইয়ে নামার পালা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টানা খেলা চলছেই। লীগ পর্বের শেষ ধাপে গিয়ে টানা ৫ দিন খেলা চলেছে। আবার আজ একদিন বিরতি মিলছে। এই বিরতির পর শনিবার থেকেই আবার শেষ চারের লড়াইয়ে নামতে হবে।

গত মাসের ২২ তারিখে শুরু হয়েছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) তৃতীয় আসর। তিন ধাপে এবার খেলা হচ্ছে। প্রথম ধাপ লীগ পর্বের লড়াই। যেটি বৃহস্পতিবারই শেষ হয়ে গেছে। দ্বিতীয় ধাপ শনিবার শুরু হবে। এ ধাপে তিন ম্যাচ হবে। প্রথম কোয়ালিফায়ার, এলিমিনেটর ম্যাচ ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। প্রথম কোয়ালিফায়ারে লীগ পর্বের পয়েন্ট তালিকায় প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা দলের মধ্যকার লড়াই হবে। যে দল জিতবে ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে নেবে। এরপর এলিমিনেটর ম্যাচে মুখোমুখি হবে লীগ পর্ব শেষে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে থাকা দল দুটি। যে দল হারবে বিদায় নেবে। যে দল জিতবে টিকে থাকবে। প্রথম কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর ম্যাচটি হবে শনিবার। রবিবার হবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। এ ম্যাচে প্রথম কোয়ালিফায়ারের হারা দল ও এলিমিনেটর ম্যাচের জেতা দলের মধ্যকার লড়াই হবে। যে দল হারবে বিদায় ঘটবে। জেতা দল ফাইনালে খেলবে। ১৫ ডিসেম্বর প্রথম কোয়ালিফায়ারের জেতা দল ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের জেতা দলের মধ্যকার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচটি হবে। কোন দুটি দল যাবে ফাইনালে? এখন সেই জল্পনাই শুরু হয়ে গেছে। লীগ পর্বে শেষ চারে উঠবে কোন চারটি দল? সেই প্রশ্ন ঘুরপাক খেয়েছে। এবার শেষ চারের গ-ি অতিক্রম করতে পারবে কোন দুটি দল? সেই প্রশ্নই জাগছে।

শেষ চারে সবার আগে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে মাশরাফি বিন মর্তুজার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। এরপর সাকিব আল হাসানের রংপুর রাইডার্স শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করেছে। তৃতীয় দল হিসেবে বরিশাল সেরা চার দলের একটি হওয়ার যোগ্যতা দেখিয়েছে। বাকি ছিল আরেকটি দল। লীগ পর্বের খেলা শেষ হওয়ার শেষ দিনে বৃহস্পতিবার আরেকটি দল মিলেছে। সেই দলটি হচ্ছে ঢাকা ডায়নামাইটস। দিনের প্রথম ম্যাচে সিলেট সুপার স্টারস হেরে বিদায় নেয়াতে ঢাকা শেষ চারে খেলবে।

চার দলের মধ্যকার পয়েন্ট তালিকায় সবার উপরে থাকছে কোন দুটি দল, সেদিকেই সবার নজর ছিল। দুটি দলই যে ফাইনালে ওঠার ক্ষেত্রে একাধিক সুযোগ পাবে। প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা দলের মধ্যকার প্রথম কোয়ালিফায়ার হবে। যে দল জিতবে ফাইনালে উঠবে। দলটির আর একাধিক সুযোগের প্রয়োজন নেই। কিন্তু যে দল হারবে, দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলার সুযোগ পাবে। এজন্যই পয়েন্ট তালিকার সেরা দুই দলের দিকে সবার নজর ছিল।

বৃহস্পতিবারের আগে রংপুর রাইডার্স সবার উপরে থাকে। দলটি ১০ ম্যাচে ৭ জয়ে ১৪ পয়েন্ট পেয়েছে। পরের স্থানটি দখল করে নিয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দলটি ৯ ম্যাচে ৬ জয়ে ১২ পয়েন্ট পেয়েছে। বরিশাল বুলসেরও সমান ম্যাচে সমান জয়ে সমান পয়েন্ট ছিল। কিন্তু সিলেটের বিপক্ষে জিতে শুধু বরিশালকেই নয়, রংপুরকেও পেছনে ফেলে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে গেছে কুমিল্লা। বরিশাল-ঢাকা ম্যাচ শুরুর আগে রান রেটে যে অবস্থা দেখা গেছে, তাতে বরিশাল জিতলেও কুমিল্লাকে ছোঁয়া সম্ভব নয়। এমনকি রংপুরের ধারে কাছেও রানরেটে যেতে পারবে না বরিশাল। আর তাই তৃতীয় স্থানে অথবা চতুর্থ স্থানেই থাকতে হচ্ছে বরিশালকে। শেষ চারে খেলা চতুর্থ দলটি হচ্ছে ঢাকা। দলটি লীগ পর্বের শেষ দিনে এসে শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে।

সিলেট সুপার স্টারসের সামনেও সুযোগ ছিল শেষ চারে খেলার। কিন্তু ঢাকার চেয়ে পয়েন্ট কম থাকায় আর খেলার স্বপ্ন পূরণ হলো না। তবে লীগ পর্বের শেষ দিনেও এসে যে রোমাঞ্চ ছড়িয়ে গেছে, তা একমাত্র সিলেটের জন্যই হয়েছে। এখন লীগ পর্ব শেষ। শেষ চারের লড়াইয়ে নামার পালা।

নির্বাচিত সংবাদ