২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাইকগাছায় নির্বাচনী ঝড়

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনার পাইকগাছা পৌরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পৌর শহর পাইকগাছা সরগরম হয়ে উঠেছে। চায়ের দোকান, হোটেল-রেস্তরাঁ, অফিস, বাসাবাড়ি সর্বত্রই আলোচনার ঝড় বইছে। কে হচ্ছেন চতুর্থ নির্বাচনে পৌর মেয়র? আওয়ামী লীগ কি ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এবার মেয়রের পদটি ধরে রাখতে পারেবে? নাকি বিএনপি-জামায়াত এক হয়ে মেয়রের চেয়ার দখলের লড়াইয়ে অবতীর্ণ হবে। এসব প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। আলোচনায় প্রাধান্য পাচ্ছে নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী যুদ্ধে নেমে পড়া দুই প্রার্থীকে নিয়ে। এবারই প্রথম মেয়রপদে দলীয় প্রতীক নিয়ে নির্বাচন হতে যাওয়ায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই প্রার্থীকে নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকের মধ্যে লড়াই হবে বলে অনেকেই মনে করছেন।

পাইকগাছা পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর থেকে ইতোপূর্বে অনুষ্ঠিত তিনটি নির্বাচনের সবটিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। সর্বশেষ ২০১১ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সেলিম জাহাঙ্গীর মেয়র নির্বাচিত হন। এর আগের দুই নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন মাহবুবুর রহমান। আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে বর্তমান মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর আওয়ামী লীগের মনোনয়নে দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচন করছেন। যদিও সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ কামরুল হাসান টিপু এবং পাইকগাছা পৌরসভার বর্তমান প্যানেল মেয়র ও জেলা যুবলীগ নেতা শেখ আনিছুর রহমান মুক্তও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন, কিন্তু বাছাইয়ে তাদের প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যায়। এখানে মেয়রপদে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়াইয়ে নেমেছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী এ্যাডভোকেট জিএম আব্দুস সাত্তার ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন জামায়াত নেতা এ্যাডভোকেট আঃ মজিদ গাজী।

স্থানীয়রা জানান, পাইকগাছা-কয়রা এলাকায় আওয়ামী লীগের মধ্যে গ্রুপিং কোন্দল রয়েছে। পাইকগাছা শহরে বিভিন্ন সময়ে তার বহির্প্রকাশ ঘটেছে। এটা নিরসন করা না গেলে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা এর সুযোগ কাজে লাগাবেন বলে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা আশঙ্কা করছেন। ভোটারদের একাংশ মনে করছে মেয়রের চেয়ার দখলের লড়াইয়ে গোপনে বিএনপি-জামায়াত এক হয়ে যেতে পারে। পইকগাছা পৌর এলাকার বাসিন্দা মিজানুর রহমান বলেন, নির্বাচনী প্রচারণা এখনও শুরু হয়নি। তবে সর্বত্রই পৌর নির্বাচন নিয়ে আলোচনার ঝড় বইছে। বিশেষ করে মেয়র প্রার্থীদের নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ চলছে। ওয়ার্ড কাউন্সিলর, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিয়েও আলোচনা হচ্ছে। তবে সব আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছে মেয়র প্রার্থীরা।

পাইকগাছা পৌর আওয়ামী লীগের একাধিক কর্মী জানান, মেয়রপদে বর্তমান মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীরকে স্থানীয় সাবেক ও বর্তমান এমপি সমর্থন দিয়েছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা তাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। কিন্তু মনোনয়নবঞ্চিতরা এতে মনোক্ষুণœ হয়েছেন। তাদের অনুসারীরাও নিষ্ক্রিয়। স্থানীয়রা জানান, বিএনপি বেশ আগেভাগেই পাইকগাছা পৌর চেয়ারম্যান পদে মিরাজুল ইসলামকে মনোনয়ন দিয়ে রেখেছিলেন। কিন্তু তিনি নির্বাচনে প্রার্থী হতে আগ্রহী না হওয়ায় এ্যাডভোকেট জিএম আব্দুস সাত্তারকে প্রার্থী করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী সেলিম জাহাঙ্গীর মাঠেই ছিলেন। বিএনপি প্রার্থী ও স্বতন্ত্র জামায়াতের নেতাকে পৌরবাসী তেমন একটা কাছে পায়নি। সব মিলিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এখন পর্যন্ত সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছেন।

নির্বাচিত সংবাদ