২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঝালকাঠিতে আমন ধানের বাম্পার ফলন ॥ কৃষকরা দাম পাচ্ছেনা

ঝালকাঠিতে আমন ধানের বাম্পার ফলন ॥ কৃষকরা দাম পাচ্ছেনা

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঝালকাঠি॥ ঝালকাঠি জেলায় এবছর লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ৪৭ হাজার ২শ হেক্টরে আমন আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে ৮৯৫৫ হেক্টরে উচ্চ ফলনশীল এবং ৩৭৮৪৫ হেক্টরে স্থানীয় জাতের আমন আবাদ হয়েছে। আমন আবাদকালীন কয়েক দফা জোয়ারের পানি বৃদ্ধির কারণে আমন আবাদ রোপন ২০-২৫ দিন বিলম্বিত হয়। আমন আবাদের ফলন আসার সম-সাময়িক সময়ে মাজরা পোকা ও পাতা মোড়ানো পোকার আক্রমন হওয়ায় কৃষকরা হতাশাগ্রস্থ হয়। তবে কৃষকদের সকল ধরনের হতাশা কাটিয়ে আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। কিন্তু বাম্পার ফলন পেয়েও কৃষকরাও ধানের দাম কম থাকায় ধান আবাদে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। কৃষকরা দাবি করছে ধানের বাজার এই ভাবে চলতে থাকায় কৃষকরা ধান আবাদে আগ্রহ হারিয়ে গম ও অন্য ধরনের লাভজনক ফসল চাষে আগ্রহী হয়ে উঠবে। এর ফলে ২০৪৫ সালে দেশে চালের উৎপাদন সংকট সৃষ্টি হতে পারে এবং দুর্ভিক্ষের আকার দেখা দিতে পারে। কৃষি বিভাগ দাবি করেছে এখন উচ্চ ফলনশীল জাতের কর্তন চলছে। এপর্যন্ত ১০% ধান কাটা হয়েছে এবং বিশাল অংশ স্থানীয় জাতের কর্তন শুরু হয়নি। বর্তমানে গ্রাম এলাকায় কৃষান সংকট রয়েছে এবং কৃষান দিয়ে ধান কাটার সময় ১ জনকে দৈনিক ৪০০-৫০০ টাকা হারে মজুরি দিতে হয়। এ কারনেই গম প্রতলিত রিপার মেশিন ব্যবহার করে খরচ ও সময় সাশ্রয় করা সম্ভব।

ধান কর্তন অনুষ্ঠানে এসে জেলা কৃষি সম্প্রসারন বিভাগের উপ-পরিচালক শেক আবুবকর সিদ্দিক জানান, এখন পর্যন্ত ১০% ধানের কর্তন হয়েছে। সার্বিক ভাবে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে এবং উচ্চ ফলনশীল জাত থেকে হেক্টর প্রতি ৪-৫ মেঃ টন ফলন পাওয়া যাচ্ছে।