২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এ মাসেই বিদায় নিচ্ছেন তিন দেশের হাইকমিশনার, আসছেন নতুনরা

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ চলতি মাসেই ঢাকা থেকে বিদায় নিচ্ছেন যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন, ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ ও মালয়েশিয়ার হাইকমিশনার নরলিন বিনতে ওথম্যান। জানুয়ারি মাসের শুরুতে এই তিন দেশের নতুন হাইকমিশনার ঢাকায় আসছেন। যুক্তরাজ্যের নতুন হাইকমিশনার হিসেবে বাংলাদেশে আসছেন এ্যালিসন ব্লেক ও ভারতের হাইকমিশনার হিসেবে যোগ দিচ্ছেন হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা।

ঢাকায় যুক্তরাজ্য, ভারত ও মালয়েশিয়ার হাইকমিশনারের এখন বিদায়ী সাক্ষাত পর্ব চলছে। ঢাকায় যুক্তরাজ্যের নতুন হাইকমিশনার হিসেবে রবার্ট গিবসনের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন এ্যালিসন ব্লেক। তিনি জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে ঢাকায় দায়িত্ব নেবেন। বর্তমান ইসলামাবাদে যুক্তরাজ্যের উপ হাইকমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন এ্যালিসন ব্লেক। যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যেই এই নিয়োগের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এদিকে ঢাকায় সাড়ে চার বছর দায়িত্ব পালন শেষে নতুন কর্মস্থলে যোগ দেবেন রবার্ট গিবসন। তিনি ২০১১ সালের জুলাইয়ে বাংলাদেশে যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার হিসেবে যোগ দেন। বর্তমানে রবার্ট গিবসন ঢাকায় কূটনৈতিক কোরের ডিনের দায়িত্ব পালন করছেন। রবিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে গিবসন বিদায়ী সাক্ষাত করবেন।

এ্যালিসন ব্লেক প্রাচীন ও আধুনিক ইতিহাসের ব্যাপারে আগ্রহী। তিনি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাসে পড়াশোনা করেছেন। তিনি ১৯৮৩ সালে স্নাতক ডিগ্রী শেষে লন্ডনে প্রতœতত্ত্ববিদ হিসেবে কাজ শুরু করেন। ১৯৮৯ সালে যুক্তরাজ্যের সরকারী চাকরিতে যোগ দেয়ার আগে এ্যালিসন ব্লেক অর্থনীতিবিষয়ক একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। তিনি ১৯৯৬ সালে যুক্তরাজ্যের পেশাদার কূটনীতিক হিসেবে কাজ শুরু করেন।

এদিকে বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশনার হিসেবে হর্ষবর্ধন শ্রিংলাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। হর্ষবর্ধন শ্রিংলা খুব শীঘ্রই বাংলাদেশে হাইকমিশনার হিসেবে যোগ দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বর্তমানে থাইল্যান্ডে ভারতের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

দার্জিলিংয়ের সন্তান শ্রিংলাকে ভারতের কূটনেতিক দফতরের একজন ‘উদীয়মান তারকা’ হিসেবে দেখা হয়। তিন দশকের ক্যারিয়ারে প্যারিস, হ্যানয় ও তেল আবিবে ভারতীয় মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘে ভারতের স্থায়ী মিশনে মিনিস্টার ও কাউন্সিলর এবং হো চি মিন সিটি ও ডারবানে কনসাল জেনারেল হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০১২ সালের জুলাই মাসে ভারতীয় হাইকমিশনের দায়িত্ব নিয়ে বাংলাদেশে আসা পঙ্কজ শরণের সময়ই দুই দেশের মধ্যে ছিটমহল বিনিময়ের ঐতিহাসিক কার্যক্রম শুরু হয়। এই সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দায়িত্ব পালন করা শরণ তার বাংলাদেশের মেয়াদে বহু ভিআইপি সফর সামাল দিয়েছেন। দুই দেশের মধ্যে বিভিন্ন চুক্তির ক্ষেত্রেও তাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হয়েছে। যিনি তার স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন, সেই হর্ষবর্ধন শ্রিংলা এক সময় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিব হিসেবে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, মিয়ানমার ও মালদ্বীপের বিষয়গুলোর দেখভাল করেছেন। মন্ত্রণালয়ের জাতিসংঘ ও সার্ক বিভাগ ছাড়াও নেপাল ও ভুটান এবং পশ্চিম ইউরোপ বিভাগে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

দিল্লীর সেন্ট স্টিফেনস কলেজের স্নাতক শ্রিংলা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগ দেয়ার আগে ভারতের কর্পোরেট ও সেবা খাতে কাজ করেছেন। গত বছর ১৯ জানুয়ারি তাকে থাইল্যান্ডে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত এবং ইউএনইএসসিএপি’তে স্থায়ী প্রতিনিধির দায়িত্ব দেয়া হয়।

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণকে রাশিয়ায় দেশটির নতুন রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত করা হয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যে তিনি দায়িত্ব নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। পঙ্কজ শরণ তার বর্ণাঢ্য কূটনৈতিক ক্যারিয়ারে মস্কো, ওয়াশিংটন, কায়রো ও জেনেভায় ভারতীয় মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি এর আগে বাংলাদেশে ১৯৮৯ থেকে ১৯৯২ পর্যন্ত ফার্স্ট সেক্রেটারি (রাজনৈতিক) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। নয়াদিল্লীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পূর্ব ইউরোপ বিভাগের উপসচিব ও যুগ্ম সচিব (উত্তর) ছিলেন পঙ্কজ। পঙ্কজ শরণ দু’বার প্রেষণে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়েও দায়িত্ব পালন করেন। প্রথমবার ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৯ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অর্থ, জ্বালানি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পরিচালক এবং ২০০৭ থেকে ২০১২ পর্যন্ত যুগ্মসচিব ছিলেন। রাশিয়ায় রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগে তিনি সন্তুষ্ট কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে পঙ্কজ শরণ জানিয়েছেন অবশ্য অবশ্যই তিনি সন্তুষ্ট।

ঢাকায় নিযুক্ত মালয়েশিয়ার হাইকমিশনার নরলিন বিনতে ওথম্যান চলতি মাসেই ঢাকা ছাড়ছেন। তবে মালয়েশিয়ার নতুন হাইকমিশনারের নাম দেশটির পক্ষ থেকে এখনও ঘোষণা করা হয়নি। নরলিন ওথম্যান তিন বছর ঢাকায় দায়িত্ব পালন করেছেন। মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাত করেছেন নরলিন ওথম্যান।