১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সোশ্যাল সিকিউরিটি কার্ড অনলাইনে মিলবে

সোশ্যাল সিকিউরিটি বা সামাজিক নিরাপত্তা কার্ড (এসএসসি) হারিয়ে গেলে, নষ্ট হয়ে গেলে বা চুরি গেলে নতুন করে কার্ড করার দরকার হয়। তার জন্য সংশ্লিষ্ট সরকারী অফিস ভবনের সামনে লাইনে দাঁড়াতে হয়। লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা যে কি বিড়ম্বনার ব্যাপার তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সঙ্গে একটা ভাল বই থাকলে তা পড়তে পড়তে কিম্বা দেখার মতো কোন কিছু থাকলে তা দেখতে দেখতে সময় কাটিয়ে দেয়া যায়। নচেৎ লাইনে দাঁড়িয়ে সময়ক্ষেপণের মতো বিচ্ছিরি ও দুর্বিষহ অভিজ্ঞতা আর হতে পারে না।

আমেরিকায় যারা এতদিন নতুন এসএসসির জন্য লাইনে দাঁড়ানোর কষ্ট স্বীকার করেছেন তাদের জন্য একটা সুখবর আছে। এই কার্ডের জন্য এখন লাইনে না দাঁড়ালেও চলবে। এখন অনলাইনে এই কার্ড পাওয়া যাবে। সেদেশের সামাজিক নিরাপত্তা প্রশাসন ঘোষণা করেছে যে, যাদের এই কার্ড বদলানো দরকার তারা স্রেফ অনলাইনে দরখাস্ত করলেই হবে। অবশ্যই এই সুযোগ শুধু যারা কার্ড বদলাতে চান অর্থাৎ পুরনো কার্ডের বদলে নতুন কার্ড চান তাদের বেলায় প্রযোজ্য। যারা নাম সংশোধন করতে চান তারা পারবেন না। এখনও তাদের সশরীরে হাজির হতে হবে।

অবশ্য এই কার্যক্রম ধীরে ধীরে শুরু হবে। প্রথমে চালু করা হবে উইসকনসিন ও ওয়াশিংটন রাজ্যে। তারপর তা অন্যান্য রাজ্যে বা এলাকায় ছড়িয়ে দেয়া হবে। সামাজিক নিরাপত্তা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা ন্যান্সি বেরিহিল বলেন, সংস্থা সম্যকরূপে সচেতন যে নতুন সামাজিক নিরাপত্তা কার্ড নেয়ার হলে স্থানীয় অফিসে গিয়ে লাইনে দাঁড়ানোর আগ্রহ লোকজনের তেমন একটা থাকে না। ন্যান্সি তার নিজের পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকেও এই ব্যবস্থা সম্পর্কে এক বিরূপ অভিজ্ঞতার কথা শুনেছেন। তার এক মামাত বোনের নতুন কার্ডের দরকার হয়েছিল। তার জন্য তাকে কাজ বাদ দিয়ে ৪ ঘণ্টা বাইরে কাটাতে হয়েছে এবং সেই কারণে তার বেতনের চেক থেকে কয়েক ডলার কাটা গেছে। বেরিহিল বলেন, অন্যদের যাতে এমন পরিস্থিতিতে পড়তে না হয় তার জন্য এবং কার্ড পাওয়ার প্রক্রিয়াটিকে আরও বেশি দক্ষ করে তোলার জন্য তার অফিস অনলাইনে এই কার্ড পাওয়ার নতুন প্রক্রিয়া চালু করতে যাচ্ছে। বেরিহিল আরও বলেন, কার্ড সংগ্রহের এই নতুন ব্যবস্থাটি শুধু জনসাধারণের জন্যই নয়, সংস্থার ফিল্ড কর্মচারীদের জন্যও সুবিধাজনক। এই অনলাইন পদ্ধতি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চিন্তা-ভাবনা করে দেখা হচ্ছিল। প্রক্রিয়াটা যাতে ঠিকমতো হয় সে জন্যই এত সময় লেগেছে।

অনলাইনে এমন কার্ড করার ক্ষেত্রে স্বভাবতই নিাপত্তার প্রশ্নটা আসে। ক্রেডিট কার্ড কোম্পানি, কর্মচারী ও অন্যরা যাতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে শনাক্ত করতে পারে তার একটা প্রধান উপায় স্বভাবতই হলো সোশ্যাল সিকিউরিটি নম্বর। নিরাপত্তাটা নিশ্চিত করার জন্য সামাজিক নিরাপত্তা প্রশাসন আরও কিছু পদ্ধতিকেও কাজে লাগাচ্ছে।

যারা অনলাইনে কার্ড বদলানোর জন্য দরখাস্ত করতে চান তাদের ‘মাই সোশ্যাল সিকিউরিটি’ এ্যাকাউন্টে সাইন করতে হবে। তার জন্য অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে নির্দিষ্ট ফর্ম পূরণ করতে হবে। এরপর সোশ্যাল সিকিউরিটি এডমিনিস্ট্রেশন থেকে যাচাই করে দেখার জন্য ইকুইফ্যাক্স ক্রেডিট কার্ড রেস্টিং ব্যুরোতে যারা নিবন্ধিত হতে চাচ্ছে তাদের ক্রেডিট ইতিহাস থেকে ব্যক্তিগত কিছু প্রশ্ন করা হবে। খুব বেশি বার প্রশ্নের জবাব দিতে না পারলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সবকিছু ঠিকঠাকভাবে সম্পন্ন করার জন্য নিকটতম সামাজিক নিরাপত্তা অফিসে যেতে হবে।