১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘সেরাটাই খেলতে হবে’

‘সেরাটাই খেলতে হবে’
  • অধিনায়ক মাশরাফির ভাবনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ লীগ পর্বে একটি ম্যাচ হারলেও আরেকটি ম্যাচে জিতে পরের পর্বে ওঠার সুযোগ থাকে। তেমনভাবে প্রথম কোয়ালিফায়ারেও সেই সুযোগ আছে। একবার হারলে, দ্বিতীয় সুযোগে জিতলেই ফাইনালে ওঠা যাবে। তবে কোন দলই দ্বিতীয় সুযোগের আশায় থাকবে না এটাই স্বাভাবিক। প্রথম সুযোগেই ফাইনালে খেলতে চাইবে যে কোন দল। তেমনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সেরও এমন ভাবনাই আছে। আজ প্রথম কোয়ালিফায়ারে রংপুর রাইডার্সকে হারাতে পারলেই শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলা নিশ্চিত করবে কুমিল্লা। সেটিই করতে চায় মাশরাফির দল। তবে এটা যে কঠিন হয়ে উঠতে পারে তা ভালভাবেই জানা মাশরাফির। তাই তো আগেই বলেছেন জিততে হলে, ‘সেরাটাই খেলতে হবে।’

বৃহস্পতিবার সিলেট সুপার স্টারসের বিপক্ষে জিতেই লীগ পর্বের পয়েন্ট তালিকায় সেরা দল হওয়া নিশ্চিত করেছে কুমিল্লা। কিন্তু দলটির প্রতিপক্ষ তখনও চূড়ান্ত হয়নি। বোঝা যাচ্ছিল, রংপুরই হবে প্রতিপক্ষ। তবে বরিশাল যদি বড় ব্যবধানে ঢাকার বিপক্ষে বৃহস্পতিবার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে জিতত, তাহলে বরিশালের সঙ্গেও খেলা হওয়ার সম্ভাবনা থাকত। সিলেটকে হারানোর পর মাশরাফি বলেছিলেন, ‘আমি আসলে কাউকে এড়াতে চাচ্ছি না। গেইলদের (বরিশালের) সঙ্গে খেললে যেটা হয় একজন তো আছেই গেইল। ও আউট হলে একটু রিল্যাক্স পাওয়া যাবে। কারণ ওকে ধরেই ওরা খেলতে চাইবে। সাকিবদের সঙ্গে খেললে অনেক খেলোয়াড় আছে। এভাবে চিন্তা করলে নিজেদের থেকে আমরা সরে আসব। যাদের সঙ্গে খেলি সেরাটাই খেলতে হবে।’

এই সেরা খেলতে গিয়েও ঝামেলায় আছেন মাশরাফি। নিজেই সুস্থ নন, আবার দলের ক্রিকেটাররাও আছেন ইনজুরিতে। এমন অবস্থায় সাকিব আল হাসান, মিসবাহ উল হক, আরাফাত সানি, জহুরুল ইসলাম অমি, মোহাম্মদ নবী, থিসারা পেরেরা, ড্যারেন সামি, লেন্ডল সিমন্সদের নিয়ে গড়া রংপুরের মতো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে জেতা কঠিনই। মাশরাফি যেন তাই স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন, ‘ইনজুরির অবস্থা খুব কঠিন। এ মুহূর্তে প্রায় পাঁচ-ছয় ক্রিকোটর ইনজুরিতে আছে। গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটাররাই ইনজুরিতে। ফিজিওর ওপর খুব চাপ পড়ে যাচ্ছে ক্রিকেটারদের ফিট করতে। (নুয়ান) কুলাসেকারা বিশ্রামে ছিল। পুরোপুরি ফিট না। অলোককে (কাপালী) কোনভাবে নামিয়ে দিয়েছি। আমি বোলিং করতে পারছি না। (কামরুল ইসলাম) রাব্বিও আছে। (শোয়েব) মালিকও ইনজুরিতে। ওর দশটা ইনজেকশন নেয়ার কথা রয়েছে। আটটা নিয়ে নিয়েছে।’

ইনজুরি যে অবস্থাতেই থাক, সবাই শতভাগ দেয়ার চেষ্টাই করবে। এমন ম্যাচে তা না দিয়েও উপায় নেই। তাই মাশরাফির ভরসাও আছে। আবু হায়দার রনি দুর্দান্ত বোলিং করছেন। আহমেদ শেহজাদও ব্যাটিংয়ে দুর্বার। ইমরুল কায়েস আছেন। কুলাসেকারা, আন্দ্রে রাসেল, মালিক এখন জ্বলে উঠলেই হয়ে যায়। ফাইনালেও উঠে যেতে পারে কুমিল্লা। তবে সেরাটাই খেলতে হবে।