২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ-নেপাল ম্যাচ ১৭ ডিসেম্বর

  • সাফ ফুটবল প্রস্তুতি, ক্যাম্পে ফিরছেন জামাল ভুঁইয়া, ২০ ডিসেম্বর কেরল যাত্রা মামুনুলদের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কাছে কোচ মারুফুলের প্রস্তাব ছিলÑ সাফের আগে বাংলাদেশ দল যেন কমপক্ষে একটি অনুশীলন বা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়। কোচের এই প্রস্তাব বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে বাফুফে। সাফের প্রস্তুতি সারতে নেপাল জাতীয় ফুটবল দলের সঙ্গে প্রীতিম্যাচ খেলার ব্যবস্থা করেছে তারা। বাংলাদেশ জাতীয় দলের সঙ্গে নেপালের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৭ ডিসেম্বর, বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে, বিকেল ৫টায়। ম্যাচে অংশ নিতে আগামী মঙ্গলবার ঢাকায় আসবে নেপাল জাতীয় ফুটবল দল। ভারতের কেরলে অনুষ্ঠেয় সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে আগামী ২১ ডিসেম্বর ঢাকা ছাড়ার কথা ছিল বাংলাদেশ জাতীয় দলের। কিন্তু কন্ডিশনের সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিতে একদিন আগেই ভারত যাবে বাংলাদেশ দল। তবে সেখানে গিয়ে আপাতত আর কোন প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার পরিকল্পনা নেই মারুফুলের।

এ বছরের শুরুতে বাফুফের পরিকল্পনা ছিল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ শুরুর আগে দক্ষিণ কোরিয়ায় গিয়ে তিন-চার দিনের জন্য অনুশীলন করা। এ ব্যাপারে সব প্রক্রিয়া সম্পন্নও করা হয়েছিল। কিন্তু আসা-যাওয়ায় সময় নষ্ট হবে বলে প্রধান কোচ মারুফুল সেখানে না যাওয়াটাই সমীচীন হবে বলে যুক্তি পেশ করেন। বাফুফেও সেটা মেনে নেয়। ক্যাম্প শুরু হবার কিছুদিনের মধ্যেই ইনজুরি আর অসুস্থতার কারণে অনুশীলনে থাকতে পারছেন না দলের তিন নির্ভরযোগ্য ফুটবলার এমিলি, কোমল এবং জামাল ভুঁইয়া। তবে দু’তিনদিনের মধ্যেই দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারেন জামাল। শনিবার উত্তরার একটি বেসরকারী হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়েছে তাকে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর দ্রুত ফিট হয়ে উঠতে বাফুফের কাছে ‘স্পেশাল প্রোগ্রাম’ চেয়েছেন দেশের অন্যতম সেরা এই মিডফিল্ডার, ‘ক্যাম্পের অন্যরা এখন ফিটনেসে আমার থেকে অনেকটা এগিয়ে। আমি অসুস্থতার কারণে অনেকটা পিছিয়ে গেছি। বাফুফে আমার জন্য একটা স্পেশাল প্রোগ্রামের ব্যবস্থা করলে ভাল হয়। কোচ মারুফ ইতোমধ্যে এটা নিয়ে ভেবেছেন।’ উল্লেখ্য, গত ৩ ডিসেম্বর জাতীয় দলের ক্যাম্পে ফুড পয়জনিংয়ে আক্রান্ত হলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় জামাল ভুঁইয়াকে। এরপর জ্বরে আক্রান্ত হয়ে অবস্থার আরও অবনতি হয়। তবে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেছেন এই ফুটবলার। শনিবার হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়েছে তাকে। আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে দলের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দিতে পারবেন বলে আশাবাদী জামাল। আর ইনজুরিতে পড়া কোমল-এমিলিকে রাখা হয়েছে ক্যাম্পেই । ডাক্তার তাদের জিম করতে বলেছেন। দলে খেলোয়াড় কম হওয়ায় তাদের শেষ পর্যন্ত দেখা হবে।

কেরলের ত্রিভানদ্রাম আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে দুই গ্রুপে মোট আটটি দল লড়বে। দুই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দল উঠবে সেমিফাইনালে। ৩১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে দু’টি সেমিফাইনাল। ৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল। বাংলাদেশের খেলাগুলো হবে ২৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় আফগানিস্তান, ২৬ ডিসেম্বর বিকেল ৪টায় মালদ্বীপ এবং ২৮ ডিসেম্বর বিকেল ৪টায় ভুটানের বিরুদ্ধে।

২০০৩ সালে প্রথম ও শেষবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। ১৯৯৯ সালে ফাইনালে খেললেও সেবার শিরোপা জিততে পারেনি বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের একমাত্র শিরোপাটি আসে ২০০৩ সালে মালদ্বীপকে হারিয়ে। ২০০৫ সালেও ফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ। ভারতের কাছে ২-০ গোলে হেরে সেবার শিরোপা জয়ের স্বপ্ন পূরণ হয়নি। দেখার বিষয়, এবার বাংলাদেশ একযুগের শিরোপা খরা ঘোচাতে পারে কি না।

আগামী ২৩ ডিসেম্বর থেকে ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত ভারতের কেরলে অনুষ্ঠিত হবে ‘সাফ অঞ্চলের ফুটবল বিশ্বকাপ’ খ্যাত ‘সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ।’ এতে অংশ নেবে সাফ অঞ্চলের সাত দেশÑ স্বাগতিক ভারত, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ ও ভুটান। এবার কঠিন গ্রুপেই পড়েছে বাংলাদেশ। ‘বি’ গ্রুপে অবস্থান ‘বেঙ্গল টাইগার্স’দের। যেখানে তাদের সঙ্গী গতবারের সাফ চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তান। রয়েছে শক্তিশালী মালদ্বীপ এবং ভুটান। তুলনামূলক ভুটানই বাংলাদেশের কাছে স্বস্তিকর প্রতিপক্ষ।

বাংলাদেশ দল তাদের আনুষ্ঠানিক অনুশীলন শুরু করেছে গত ২৮ নবেম্বর থেকে সাভারের জিরানির বিকেএসপিতে নতুন কোচ মারুফুল হকের অধীনে।