২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যশোরে সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীদের পছন্দ কাঁচি

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রতীক নিয়ে ¯œায়ু চাপ শুরু হয়েছে। নির্বাচন কমিশন থেকে বরাদ্দ কোন কোন প্রতীক প্রচারণার জন্য উপযোগী নয়। সঙ্গত কারণেই যশোরের অধিকাংশ মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ‘কাঁচি’ প্রতীক চেয়ে আবেদন করেছেন। তবে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরাও একই প্রতীক চাওয়ায় নির্বাচনের আগেই ‘ভাগ্য পরীক্ষা’র মুখোমুখি হতে হচ্ছে তাদের।

যশোর পৌরসভায় সংরক্ষিত ১২ মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ১০টি মনোনয়নপত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায়, পছন্দের প্রতীক হিসেবে আটজনই ‘কাঁচি’ দাবি করেছেন। আর দুইজন বিকল্প প্রতীক হিসেবে পছন্দ করেছেন ভ্যানিটি ব্যাগ। ব্যতিক্রম হিসেবে সামারাতুরদ্দৌর আঙুর বিকল্প মৌমাছি আর রিনি বেগম গ্যাসের চুলা প্রতীক বরাদ্দ চেয়েছেন।

১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন বর্তমান কাউন্সিলর সুফিয়া বেগম, আইরিন পারভীন, কোহিনুর বেগম মনি, অর্চনা অধিকারী ও রিনি বেগম। এদের মধ্যে প্রথম চারজনই কাঁচি প্রতীক চেয়েছেন। একমাত্র প্রার্থী রিনি বেগমের পছন্দ ‘গ্যাসের চুলা’।

৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন বর্তমান কাউন্সিলর রাশিদা রহমান, হাজেরা পারভীন, সৈয়দা সামারাতুরদ্দৌর ও নাসিমা আক্তার জলি। এদের মধ্যে রাশিদা রহমান ও হাজেরা পারভীন কাঁচি প্রতীক চেয়ে আবেদন করেছেন। আর সৈয়দা সামারাতুরদ্দৌর প্রথম পছন্দ আঙুর। তা না পেলে বিকল্প প্রতীক হিসেবে মৌমাছি দাবি করেছেন।

৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত তিন মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে কাঁচি প্রতীক দাবি করেছেন বর্তমান কাউন্সিলর শেখ রোকেয়া পারভীন ডলি ও সাবিয়া সুলতানা।

যশোর সদর উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে জানা যায়, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে চুড়ি, চকলেট, পুতুল, ফ্রক, ভ্যানিটি ব্যাগ, মৌমাছি, হারমোনিয়াম, কাঁচি, আঙুর ও গ্যাসের চুলা প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। আগামী ১৪ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে এই প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। এক্ষেত্রে প্রার্থীদের চাহিদা বিবেচনায় নেয়া হবে। তবে একাধিক প্রার্থী একই প্রতীক দাবি করলে লটারির মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে।