২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাতক্ষীরায় পুলিশের বিরুদ্ধে গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ॥ জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষদের সঙ্গে ও তাদের ইন্ধনে পঞ্চাশোর্ধ এক গৃহবধূর পা পিটিয়ে ও বুটের আঘাতে ভেঙ্গে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের দুই দারোগার বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত গৃহবধূ আছিয়া বেগমকে শনিবার আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আসামি ধরার নামে জেলার শ্যামনগরের উপজেলার কাশিমাড়ির জয়নগর গ্রামে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে এই হামলা ও নির্যাতন চালানো হয়। পুলিশের কালীগঞ্জ সার্কেলের এএসপি মীর মনির হোসেন পুলিশী অভিযানের কথা স্বীকার করে শনিবার সন্ধ্যায় জনকণ্ঠকে বলেন, গৃহবধূর পা ভেঙ্গে যাওয়ার কথা তিনি শুনেছেন। তবে এ বিষয়ে কেউ তার কাছে অভিযোগ।

এলাকাবাসী জানান, বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে শ্যামনগর থানার পুলিশ হানা দেয়। খালেক গাজীর সঙ্গে প্রতিবেশী মিজানের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ থাকা মামলায় খালেকগাজী জামিনে ছিলেন। পুলিশ মামলার প্রতিপক্ষদের সঙ্গে নিয়ে বাড়িতে হামলা চালালে খালেকগাজী ও তার পুত্র বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এ সময় খালেকগাজীর স্ত্রী আছিয়া বেগমকে বাড়িতে পেয়ে পুলিশ তাকে উপর্যুপরি লাঠির আঘাত ও পায়ের বুট দিয়ে লাথি মেরে তার ডান পায়ের উরু সন্ধির হাড় ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দেয়। এক পর্যায়ে সে সজ্ঞাহীন হয়ে পড়লে পুলিশ চলে যায়। আহত আছিয়া বেগমের ছেলে আছাদুল ইসলাম জানায়, পুলিশ চলে গেলে পরিবারের সদস্যদের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসে এবং তার মাকে উদ্ধার করে। প্রথমে তাকে শ্যামনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় শনিবার বিকেলে তাকে সাতক্ষীরা হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।