২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জমজমাট ফাইনালে কুমিল্লার প্রতিপক্ষ বরিশাল

জমজমাট ফাইনালে কুমিল্লার প্রতিপক্ষ বরিশাল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) তৃতীয় আসরের পর্দা নামার পালা এবার। আজ একদিন বিরতি দিয়ে মঙ্গলবারই বিপিএল সমাপ্ত হবে। সেদিন ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে। ফাইনালে মুখোমুখি হবে মাশরাফি বিন মর্তুজার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের বরিশাল বুলস।

শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলার যোগ্যতা সবার আগে অর্জন করে নিয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। প্রথম কোয়ালিফায়ারে শনিবার রংপুর রাইডার্সকে ৭২ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করেছে কুমিল্লা। রবিবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে সাব্বির রহমান রুম্মনের ৭৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে রংপুরকে হারিয়ে বরিশাল বুলসও ফাইনালের টিকেট পায়। চরম প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে রংপুরের গড়া ১৬০ রান অতিক্রম করতে গিয়ে ৩ বল বাকি থাকতে ১৬৩ রান করে ৫ উইকেটে জয় পায় বরিশাল। সেই সঙ্গে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলাও নিশ্চিত করে।

বিপিএলের প্রথম আসর হয়েছিল ২০১২ সালে। চ্যাম্পিয়ন হয় ঢাকা। দ্বিতীয় আসর হয় ২০১৩ সালে। সেবারও শিরোপা জিতে ঢাকাই। এবার তৃতীয় আসরে ঢাকা ফাইনালেই খেলতে পারল না। প্রথমবারের মতো বিপিএলে অংশ নিয়ে বাজিমাত করেছে কুমিল্লা। বরিশাল দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলবে।

এবার কোন্ দল শিরোপা ঘরে তুলবে, তা জানা যাবে রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় শুরু হওয়া ম্যাচটি শেষ হলে।

বিপিএলের এবারের আসর শুরু হয়েছিল ২২ নবেম্বর। ডবল লীগ পদ্ধতিতে খেলা হয়েছে। ৬টি দল অংশ নিয়েছে। প্রতিটি দলেরই লীগ পর্বে ১০টি করে খেলা হয়েছে। একেক দলের বিপক্ষে দুটি করে ম্যাচ হয়েছে। শুরুতে ঢাকাতে টানা ৬দিন খেলা হয়েছে। প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ হওয়ায় প্রথম ধাপে ঢাকায় ১২টি ম্যাচ হয়েছে। এরপর চট্টগ্রামে টানা চারদিনে ৮টি খেলা হয়েছে। তবে কোন দলই ততক্ষণে টুর্নামেন্টের শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করেনি। ঢাকায় আবার যখন লীগ পর্বের খেলা ৬ ডিসেম্বর শুরু হয়, এরপর গিয়ে একেকটি দলের শেষ চারে ওঠা নিশ্চিত হতে থাকে।

নিয়ম অনুযায়ী, লীগ পর্বের পয়েন্ট তালিকায় সেরা চারে থাকা চারটি দল শেষ চারে খেলবে। দুটি দল লীগ পর্ব থেকেই বিদায় নেবে। চিটাগাং ভাইকিংস সবার আগে বিদায় নেয়। এরপর লীগ পর্বের শেষ দিনে বিদায় ঘণ্টা বাজে সিলেট সুপার স্টারসের। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, রংপুর রাইডার্স ও বরিশাল বুলস ১০ ম্যাচে ৭ জয়ে ১৪ পয়েন্ট করে নিয়ে শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে। রানরেটে প্রথম স্থান দখল করে কুমিল্লা। দ্বিতীয় স্থানে রংপুর ও তৃতীয় স্থানে থাকে বরিশাল। আর লীগ পর্বের শেষদিনে ঢাকা শেষ চারে খেলা নিশ্চিত করে। তবে ১০ ম্যাচে মাত্র ৪টি জয় পায় ঢাকা।

লীগ পর্ব শেষে সেরা চারের মধ্যে লড়াই হয়। তবে এবার আইপিএল আদলে খেলা হয়। শেষ চারে তিনটি ম্যাচ হয়। প্রথম কোয়ালিফায়ার, এলিমিনেটর ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। নিয়ম হচ্ছে, প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে পয়েন্ট তালিকার প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা দল লড়াই করবে। যে দল জিতবে ফাইনালে উঠে যাবে। হারা দল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে খেলার জন্য টিকে থাকবে। এলিমিনেটর ম্যাচে মুখোমুখি হবে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে থাকা দল। যে দল হারবে বিদায় নেবে। জেতা দল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচের হারা দলের বিপক্ষে লড়াই করবে।

সেই হিসেবে পয়েন্ট তালিকার সেরা দুই দল কুমিল্লা ও রংপুরের মধ্যকার প্রথম কোয়ালিফায়ার লড়াই হয়। কুমিল্লা জিতে ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে। এলিমিনেটর ম্যাচে বরিশাল ও ঢাকা মুখোমুখি হয়। ঢাকাকে ১৮ রানে হারিয়ে দেয় বরিশাল। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে রংপুরের বিপক্ষে মুখোমুখি হয় বরিশাল। রংপুরকে হারিয়ে দিয়ে কুমিল্লার বিপক্ষে ফাইনালে লড়াই করবে বরিশাল। মঙ্গলবার হবে সেই ফাইনাল।

নির্বাচিত সংবাদ