২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এবার করুনাতে কাতর বার্সিলোনা

  • স্প্যানিশ লা লিগা, টানা তিন ড্র বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের, বিরক্ত কাতালান কোচ লুইস ;###;এনরিকে, হতাশ অধিনায়ক ইনিয়েস্তা, বার্সিলোনা ২-২ ডিপোর্টিভো লা করুনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আবারও ধাক্কা খেল বার্সিলোনা। উড়তে থাকা কাতালানরা এবার আটকে গেছে ডিপোর্টিভো লা করুনার কাছে। শনিবার রাতে স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচে দুই গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরও করুনার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে স্বাগতিক বার্সা।

গত সপ্তাহে লা লিগায় ভ্যালেন্সিয়ার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করার পর এবারসহ টানা দুই লীগ ম্যাচে পয়েন্ট খোয়ালো ক্যাটালানরা। এই দুই ম্যাচের ফাঁকে গত বুধবার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগেও জার্মান ক্লাব বেয়ার লেভারকুসেনের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে বার্সা। ফলে টানা তিন ম্যাচে ড্রর হতাশা ভর করেছে লুইস এনরিকের দলের। আরেকবার হোঁচট খাওয়ায় লা লিগার শিরোপা লড়াই জমিয়ে তুলেছে বার্সিলোনা। ১৫ ম্যাচ থেকে তাদের সংগ্রহ সর্বোচ্চ ৩৫ পয়েন্ট। রবিবার এ্যাথলেটিক বিলবাওকে হারাতে পারলে বার্সাকে ছুঁয়ে ফেলবে এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ১৪ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে তাদের অবস্থান দ্বিতীয়। সমান ম্যাচে ৩০ পয়েন্ট সংগ্রহ করে তৃতীয় স্থানে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। গত রাতে জয় পেলে রিয়ালও ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলবে বার্সার।

ঘরের মাঠ ন্যুক্যাম্পে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমারকে ছাড়াই খেলতে নামে বার্সিলোনা। ম্যাচের প্রথমার্ধের অনেকটা সময় গোলশূন্য থাকার পর দৃষ্টিনন্দন ফ্রিকিকে স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন লিওনেল মেসি। দ্বিতীয়ার্ধে আরেকটি দর্শণীয় গোলে ব্যবধান বাড়ান ইভান রাকিটিচ। খেলা শেষ হওয়ার ১৩ মিনিট আগে লুকাস একটি গোল পরিশোধ করার পর ম্যাচের শেষদিক অতিথিদের সমতায় ফেরান আলেক্স বের্গানটিনোস। কুঁচকির চোটে পড়া নেইমার মাঠের লড়াইয়ে না থাকলেও খেলা দেখেন গ্যালারিতে বসে। সেখানে সতীর্থ মেসি-সুয়ারেজদের হতাশা দেখতে হয়েছে তাকে।

পুরো ম্যাচেই আধিপত্য বিস্তার করে খেলে বার্সা। কিন্তু শেষ তেরো মিনিটের ঝড়ে ফের দুই পয়েন্ট খোয়াতে হয়েছে তাদের। ম্যাচের পঞ্চম মিনিটে প্রথম ভাল সুযোগ পায় স্বাগতিকরা। ডি বক্সের মধ্যে সান্ড্রো হেডে লুইস সুয়ারেজকে বল বাড়ালেও গোল করতে ব্যর্থ হন উরুগুইয়ান তারকা। ৩১ মিনিটে মেসির জোরাল শট কোনোমতে ফেরান অতিথি গোলরক্ষক। পরের মিনিটেই ডানদিক থেকে দানি আলভেসের ক্রসে লক্ষ্যভ্রষ্ট হেড করেন সুয়ারেজ। ৩৯ মিনিটে স্বাগতিক শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে আনেন মেসি। অসাধারণ ফ্রিকিকে আর্জেন্টাইন অধিনায়কের বাঁ পায়ে উঁচিয়ে মারা নিখুঁত শট আশ্রয় নেয় ডিপোর্টিভোর জালে।

বিরতির পর ৬২ মিনিটে দুর্দান্ত গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রাকিটিচ। ডি বক্সের বাইরে থেকে ক্রোয়েশিয়ার এ মিডফিল্ডারের কোনাকুনি শট রুখতে পারেননি গোলরক্ষক। ৭১ মিনিটে মেসির বানিয়ে দেয়া সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি সুয়ারেজ। ৭৭ মিনিটে ফরোয়ার্ড পেরেজ মার্টিনেজ করুনার হয়ে এক গোল পরিশোধ করেন। এরপর মরিয়া হয়ে আক্রমণ চালায় অতিথিরা। এরই ফল হিসেবে ৮৬ মিনিটে আলেক্স বের্গানটিনোস সমতাসূচক গোল করেন করুনার হয়ে।

আবারও ড্র করে হতাশ বার্সার অধিনায়ক আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। খেলা শেষে তিনি বলেন, এটা ব্যাখ্যা করা কঠিন। যখন প্রয়োজন ছিল তখনই আমরা খেলার নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছি। আর ২-০ গোলে পিছিয়ে থাকা প্রতিপক্ষের জন্য কাজটা সহজ করে দিয়েছি। ফুটবলে এমন ঘটনা অবশ্য ঘটতেই পারে। পুরো ম্যাচ বিশ্লেষণ করে আমাদের ভুল খুঁজে বের করতে হবে। চেষ্টা করতে হবে যেন এ রকম আর না ঘটে।

ক্যাটালান কোচ লুইস এনরিকেও হতাশ। তিনি বলেন, ম্যাচের পুরো সময় আমাদের নিয়ন্ত্রণে ছিল। শেষ ২০ মিনিটে আমাদের হতাশ হতে হয়েছে। আমরা অযথাই নিয়ন্ত্রণ প্রতিপক্ষকে দিয়েছি। টানা তিনটা ম্যাচে এমন হলো। এই ধারা থেকে দ্রুতই আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। এটা সম্ভব না হলে আমাদের মাসুল দিতে হবে। অবশ্য হতাশা থেকে বের হয়ে আসার প্রত্যয়ও ব্যক্ত হয়েছে এনরিকের কণ্ঠ থেকে।