১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ট্রাম্পের আধিপত্য রিপাবলিকানে

  • উগ্র কথাবার্তার প্রভাব পড়েনি প্রচার অভিযানে ॥ জরিপ

মার্কিন ধনাঢ্য ডোনাল্ড ট্রাম্প সে দেশের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়ন পাওয়ার লড়াইয়ে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করেছেন। সর্বশেষ জনমত জরিপে তিনি তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের অনেক পিছনে ফেলে এসেছেন। তিনি যে ২০১৬ সালের ওই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন একথা কেউই না বলে পারছেন না। খবর এএফপির।

রাজনীতিতে নবাগত রিয়াল এস্টেট ম্যাগনেট ট্রাম্প নির্বাচনী প্রচার অভিযানের কেন্দ্রবিন্দুতেই রয়েছেন। রিপাবলিকান পার্টিতে তিনি ঝড়ের সূচনা করেছেন। দলের মনোনয়ন প্রক্রিয়া নিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি প্রথম ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হবে।

ট্রাম্পের উস্কানিমূলক বাক্যপ্রয়োগ তার তেমন কোন ক্ষতি করেছে বলে জরিপে দেখা যায়নি, কারণ তিনি জুলাইয়ের শেষ দিক থেকে অগ্রগামী প্রার্থী হিসেবে যে মর্যাদা অক্ষুণœ রেখে এসেছেন, তা এখন সুসংহতই করছেন। তার অভাবনীয় মন্তব্যের একটিতে তিনি ডেমেক্র্যাটিক পার্টির অগ্রগামী প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনকে অশ্লীল ভাষায় আক্রমণ করেন। বুধবার প্রকাশিত নতুন জরিপে ট্রাম্প তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর তুলনায় দ্বিগুণ বেশি সমর্থন নিয়ে এগিয়ে রয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে রিপাবলিকান ও রিপাবলিকান ঘেঁষা রেজিস্টার্ড ভোটারদের মধ্যে সিএনএন ও তারসির পরিচালিত জরিপে দেখা যায়, সিনেটর ট্রেড ক্লুজের তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি শতকরা ৩৯ ভাগ ভোটারের সমর্থন ট্রাম্পের পক্ষে রয়েছে, আর ক্লুজের পক্ষে রয়েছে ১৮ ভাগ ভোটারের সমর্থন। নবেম্বরে ওই কোম্পানিগুলোর জরিপ প্রকাশিত হওয়ার পর ট্রাম্প আরও দু’পয়েন্ট পেলেন। সিনেটর মার্কো রুবিও এবং অবসরপ্রাপ্ত নিওরোসার্জন বেন কারসান উজয়ের জনপ্রিয়তাই সামান্য হ্রাস পেয়ে শতকরা ১০ ভাগে রয়েছে। আর নিউজার্সির গবর্নর ক্রিস ক্রিস্টি পাঁচ পয়েন্ট পেয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছেন। অন্য আট রিপাবলিকান প্রার্থীর কেউই চার পয়েন্টের বেশি পাননি। সর্বশেষ রিপাবলিকান প্রাইমারি বিতর্কানুষ্ঠানের পর ওই জরিপ চালানো হয়। এতে ট্রাম্প ও ক্রুজ ভাল করেছিলেন বলে দেখা যায়। জরিপের ফলাফলে শতকরা ৪ দশমিক ৫ ভাগ পর্যন্ত ভুল হতে পারে। ট্রাম্প ১৬ জুন তার প্রচার অভিযান শুরু করার পর কয়েকটি বিতর্কিত মন্তব্য করেন। এগুলোকে কেউ কেউ ‘ঔদ্ধত্যপূর্ণ’ বলে বর্ণনা করেন। তিনি শুরুতেই অভিযোগ করেছিলেন যে, মেক্সিকো ‘ধর্ষক’ ও অন্যান্য অপরাধীকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠাচ্ছে।

ট্রাম্প ৭ ডিসেম্বর মুসলিমদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে আহ্বান জানালে তার কথাবার্তা নিয়ে সর্বশেষ বিতর্ক দানা বেঁধে ওঠে। তিনি সোমবার হিলারিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলে বিতর্ক চড়ে ওঠে। হিলারি ডেস মোইনেস রেজিস্টার পত্রিকার সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে বলেন, আমি ট্রাম্পের উস্কানিমূলক কথাবার্তার প্রতি যথার্থই নিন্দা জ্ঞাপন করছি। তিনি জনগণের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করছেন। রক্ষণশীল ভাষ্যকার উইলিয়াম ক্রিস্টন বুধবার সিএনএনকে বলেন, ট্রাম্প আসলেই ভয়াবহ। কিন্তু জাতীয় মনোভাব জেব বুশসহ প্রতিদ্বন্দ্বীদের মনে আশঙ্কার সৃষ্টি করে ট্রাম্পের পক্ষেই ঝুঁকতে থাকে। জেব সপ্তাহান্তে ট্রাম্পকে এক দুই ব্যক্তি বলেন। ফ্লোরিডার এক সময়কার গবর্নর প্রতিযোগিতার প্রথম দিকে অগ্রগামী ছিলেন, কিন্তু পরে তিনি নিচে নেমে আসেন। বুধবার তিনি ফক্সনিউজকে বলেন যে, দলের মনোনয়ন যিনিই পান না কেন, তার পক্ষে ট্রাম্পের বৈরী কথাবার্তার কারণে বিজয়ী হওয়া আরও কঠিন হয়ে পড়ছে। আমরা নির্বাচনে জয়ী হতে চাই।