২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিজেপি নেতার পুত্রসহ ১৫ জন অভিযুক্ত

  • গোমাংস গুজবে হত্যা

গরুর মাংস খাওয়ার গুজব ছড়িয়ে ভারতের উত্তর প্রদেশের দাদরি গ্রামে সংখ্যালঘু এক মুসলিম ব্যক্তিকে গণপিটুনিতে হত্যার দায়ে এক বিজেপি নেতার পুত্রসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ‘গরুর মাংস’ খাওয়ার গুজব ছড়িয়ে হত্যাকাণ্ডটি ঘটানো হলেও পুলিশের দেয়া চার্জশিটের কোথাও গরুর মাংসের কথা উল্লেখ নেই। খবর এনডিটিভির।

কোরবানির ঈদে একটি বাছুর জবাই করে এর মাংস খেয়েছেন ও বাকি মাংস ফ্রিজে সংরক্ষণ করে রেখেছেন, ২৮ সেপ্টেম্বর স্থানীয় একটি মন্দিরের মাইকে এমন ঘোষণা দিয়ে হিন্দুদের উত্তেজিত করে দাদরির মোহাম্মদ আখলাকের বাড়িতে হামলা চালানো হয়। হামলাকারীরা ৫২ বছর বয়সী আখলাককে বাড়ি থেকে টেনে বের করে পিটিয়ে হত্যা করে। হামলাকারীদের প্রহারে আখলাকের ছেলে দানিশ গুরুতর আহত হন।

এ ঘটনার তিন মাস পর পুলিশের দেয়া ২৫০ পৃষ্ঠার চার্জশিটে প্রধান অভিযুক্তদের মধ্যে স্থানীয় বিজেপি নেতা সঞ্জয় রানার পুত্র ভিশাল ও তার দুই চাচাতো ভাইয়ের নাম আসে। তবে ঘটনার পেছনে কোন রাজনৈতিক উদ্দেশের কথা উল্লেখ করেনি পুলিশ। চর্জশিটে বলা হয়, ‘একটি নির্দিষ্ট মাংসের’ কথা বলে গুজব ছড়িয়ে হামলাটি চালানো হয়। মাংসের কথা উল্লেখ থাকলেও নির্দিষ্টভাবে ‘গরুর’ মাংসের কথা উল্লেখ করা হয়নি বলে সূত্রগুলো জানিয়েছে।

হামলাকারীদের অধিকাংশই তাদের পরিবারের পরিচিত বলে পুলিশকে জানিয়েছেন আহত দানিশ।

দানিশ ও তার বোনের দেয়া জবানবন্দীর সূত্র ধরে চলতি সপ্তাহে চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর আগে আরও সাতজনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

নিহত আখলাকের পরিবারের সদস্যরা এখন দিল্লীতে তার বড় ছেলে সারতাজের বাসায় অবস্থান করছেন। সারতাজ ভারতীয় বিমান বাহিনীতে আছেন।