২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাহরাইন ৫০ হাজার বাংলাদেশী কর্মীকে বৈধতা দেবে

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রায় ৫০ হাজার বাংলাদেশী কর্মীকে বৈধতার আশ্বাস দিয়েছে বাহরাইন। বাংলাদেশ থেকে আরও কর্মী নিতে আগ্রহী বলেও জানিয়েছে দেশটি। বাংলাদেশের সঙ্গে বাহরাইনের তিনটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেছে বাহরাইন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র এসব তথ্য জানায়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী তিনদিনব্যাপী বাহারাইন সফর শেষে বৃহস্পতিবার ঢাকায় ফিরেছেন। বাহরাইন সফরকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেদেশের প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী মানামা সফরকালে দেশটির শ্রম ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী জামিল বিন মোহাম্মাদ আলী হুমাইদানের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে বাহরাইনের অবস্থিত বাংলাদেশের সকল কর্মীকে বৈধ করার অনুরোধ জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের প্রায় ৫০ হাজার কর্মীকে বৈধ করার আশ্বাস দিয়েছে বাহরাইন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাহরাইনে প্রায় দেড় লাখ বাংলাদেশী কর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ৫০ হাজার কর্মী অবৈধ। তবে বাহরাইনে বিদেশী কর্মীদের বৈধ করতে দেশটি ইতোমধ্যেই উদ্যোগ নিয়েছে। সে অনুযায়ী বাংলাদেশের এসব কর্মীকেও বাহরাইন বৈধ করবে বলে আশ্বাস দিয়েছে।

এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর বাইরাইন সফরকালে তিনটি চুক্তি সমঝোতা স্মারক সই হয়। দুই দেশের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বাড়ানোর লক্ষ্যে এসব চুক্তি ও একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়। বিনিয়োগে পারস্পরিক সুরক্ষা ও প্রসার এবং দ্বৈত কর এড়ানোবিষয়ক পৃথক চুক্তি করেছে দুই দেশ। এছাড়া দুই দেশের পররাষ্ট্র দফতরের মধ্যে নিয়মিত পরামর্শ সভা (এফওসি) সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ খালিদ বিন আহমেদ আল খলিফার আমন্ত্রণে মাহমুদ আলী মানামায় যান। সফরকালে দেশটির প্রধানমন্ত্রী খলিফা বিন সালমান আল খলিফার সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ওই সাক্ষাতে বাহরাইন সরকারপ্রধানকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন মাহমুদ আলী। জবাবে বাহরাইনের প্রধানমন্ত্রী দ্রুত অর্থনৈতিক অগ্রগতির জন্য শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টি সম্পন্ন ও গতিশীল নেতৃত্বের প্রশংসা করেন। একইসঙ্গে বিভিন্ন খাতে সহযোগিতা বাড়াতে বাংলাদেশের সঙ্গে তার দেশ ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ দেশটির বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক আলোচনায় মাহমুদ আলী দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেন। উভয়পক্ষ আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ফোরামে বিশেষ করে জাতিসংঘে দুই দেশের চমৎকার সহযোগিতার কথা স্মরণ করেন। মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে বিভিন্ন আঞ্চলিক ঘটনাবলী নিয়েও তাদের মধ্যে আলোচনা হয়। এছাড়া বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের সঙ্গে একটি কৌশলগত সংলাপ গড়ে তোলার প্রস্তাব করেন। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী ইতিবাচক সাড়া দেন। উভয়পক্ষ আগামী বছরের প্রথম দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রস্তাবিত বাহরাইন সফর নিয়েও কথা বলেন। এ সময় মানামায় বাংলাদেশী পণ্যের একক প্রদর্শনী আয়োজনেও সম্মত হয় বাহরাইন।

চলতি বছর পহেলা জুলাই থেকে ছয় মাসের জন্য অবৈধ বিদেশী কর্মীদের সাধারণ ক্ষমার ঘোষণা দেয় বাহরাইন। কাজ থেকে পালিয়ে যাওয়া, চাকরিচ্যুত এবং নির্ধারিত ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও বাহরাইনে অবস্থান করা শ্রমিকরা এই ক্ষমার আওতাভুক্ত করা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে কোনরকম জরিমানা না দিয়েই তারা বাহরাইন ত্যাগ করে নিজের দেশে ফিরতে পারবেন অথবা এ সময়ের মধ্যে নতুন চাকরিদাতা খুঁজে বের করে বৈধ শ্রমিক হিসেবে বাহরাইনে থাকতে পারবেন।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া