২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্ষোভে ফুঁসছেন ভ্যান গাল

  • কোচের চাকরির জন্য ;###;লড়বেন রুনিরা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রাগে ক্ষোভে ফুঁসছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ লুইস ভ্যান গাল। ধারাবাহিক ব্যর্থতার কারণে এখন চারিদিকে শুধু একটাই কথা- চাকরি হারাচ্ছেন ডাচ্ এই কোচ। এ নিয়ে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লান্ত, পরিশ্রান্ত ভ্যান গাল। বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে যত ক্ষোভ যেন তিনি ঝারলেন সাংবাদিকদের উপর!

স্বাভাবিকভাবেই সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই ভ্যান গালের ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। আর তাতেই চটে যান তিনি। ভ্যান গাল বলেন, এই কক্ষে এমন কেউ কি আছেন যার মনে হচ্ছে আমার কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত? কারও এমন মনে হচ্ছে না? আমিও এমনটাই ভেবেছিলাম! তার পরিবর্তে মরিনহো ওল্ডট্রাফোর্ডে আসতে পারেন এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এ বিষয়ে বিরক্তির সুরে ভ্যান গাল বলেন, আমি তো ভেবেছি আমি এরই মধ্যে বরখাস্ত হয়ে গেছি। আমি এমনও পড়েছি যে আমি বরখাস্ত হয়ে গেছি, আর আমার বিকল্প কোচও এখানে চলে এসেছেন!

বাধ্য হয়েই যে সাংবাদ সম্মেলনে আসতে হয়েছে সেটা জানিয়ে ভ্যান গাল বলেন, শুধু লীগের নিয়মের জন্যই এখানে এসেছি। আমাকে সাংবাদিক সম্মেলনে থাকতে হবে সেই নিয়মের জন্য। কিন্তু কী আর বলব, আমার কথা তো আপনারা নিজের মতো করে লেখেন। এসব বিষয় তার পরিবারকেও চাপে ফেলেছে বলে মনে করেন ভ্যান গাল। বলেন, আপনাদের কী মনে হয়, আমার স্ত্রী কী ভাবছে এসব শুনে। আমার সন্তানেরা, অথবা আমার নাতি-নাতনিরা। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সমর্থকেরাই বা কীভাবে নিচ্ছে বিষয়গুলোকে? অথবা আমার বন্ধুরা কী ভাবে? কী মনে হয় আপনাদের? ওরা আমাকে অনেকবার ফোন করেছে। আর্সেন ওয়েঙ্গারও এ বিষয়ে কিছু কথা বলেছেন।

আসলে ম্যানইউ ধারাবাহিক ব্যর্থ হওয়ার কারণেই এসব সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে সর্বশেষ ছয় ম্যাচে জয় নেই। এর মধ্যে তিনটিতেই হার। ইউনাইটেডের সঙ্গে একদমই যায় না রেকর্ডটা। খেলার কৌশল নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে। যে কারণে এখনও চারিদিকে আলোচনা, পরের দুই ম্যাচে ভ্যান গাল ব্যর্থ হলে আপাতত বেকার হয়ে বসে থাকা মরিনহোকেই ছেড়ে দিতে হবে ম্যানইউর কোচের মিউজিক্যাল চেয়ারটি।

তবে এই দুঃসময়ে ভ্যান গাল পাশে পাচ্ছেন ম্যানইউর ফুটবলারদের। বৃহস্পতিবার সাক্ষাতকারে দলটির অধিনায়ক ওয়েন রুনি জানিয়েছেন, তারা সবাই কোচের পাশে আছেন। ইংল্যান্ড অধিনায়ক বলেন, আমরা কোচের জন্য লড়াই করব। সে যেন আমাদের সঙ্গে থাকে এজন্য সবাই সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। সেটা মাঠে ও মাঠের বাইরে। ২০১৬ সালে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে রুনির দিকে তাকিয়ে বড় স্বপ্ন বুনছে ইংল্যান্ড।

এবার ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আসরে ‘বি’ গ্রুপে ইংল্যান্ডের প্রতিপক্ষ রাশিয়া, ওয়েলস ও সেøাভাকিয়া। বিশ্বকাপ কিংবা দেশের হয়ে অন্য বড় টুর্নামেন্টগুলোর স্মৃতি অবশ্য খুব একটা সুখের নয় রুনির জন্য। দেশের জার্সি গায়ে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড তার দখলে। ১০৯ ম্যাচে ৫১ গোল করে স্যার ববি চার্লটনের রেকর্ড ভেঙেছেন রুনি। তবে চলতি মৌসুমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে মাত্র দুটি গোল করেছেন এই ইংলিশ তারকা। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়েম্বলিতে ইউরো ২০১৬ বাছাইপর্বে ক্যারিয়ারে ৫০ নম্বর গোল করে ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েন রুনি। ইংল্যান্ড কোচ রয় হডসন বলেন, আমি রুনির পারফর্মে দারুণ খুশি। অধিনায়ক হিসেবে এবং একজন ফুটবলার হিসেবে তার পূর্ণতা আমাকে সবসময়ই মুগ্ধ করে। ইউরোতে সে ভাল করবে বলে আমি আশাবাদী।