১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইসিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি ॥ পটিয়ায় বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে মিছিল

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটিয়া, ২৪ ডিসেম্বর ॥ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টা। চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও পৌরসভা নির্বাচনের সহকারী রির্টানিং অফিসারের কার্যালয় সন্নিকটে কয়েকশ’ লোক জড়ো হতে থাকে। কারণ বিএনপির মেয়র প্রার্থী তৌহিদুল আলমের সমর্থনে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও সাবেক রাষ্ট্রদূত মীর মোহাম্মদ নাসিরের নেতৃত্বে গণসংযোগ ও চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে মিছিল বের করা হবে।

যেখানে জমায়েত করা হয়েছে সেখান থেকে নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় রাস্তার এপার-ওপার। কিন্তু নির্বাচনী আচরণবিধি পুরোপুরি লঙ্ঘন করে মহাসড়কে প্রকাশ্যে মিছিল বের করা হলে ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হয়। মিছিলটি মহাসড়ক হয়ে ছবুর রোড ও পরবর্তীতে বাসস্টেশন এলাকায় পৌঁছে। অথচ নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বুধবার ঘোষণা দিয়েছিল আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে প্রার্থীর বিরুদ্ধে সরাসরি এ্যাকশনে যাবে। আচরণবিধি লঙ্ঘন করে দুপুর ২টার আগে হ্যান্ডমাইক ব্যবহার, গণসংযোগের নামে শোডাউন ও মহামড়কে বিশাল মিছিল বের করলেও অদৃশ্য কারণে পৌরসভা নির্বাচনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা চুপ রয়েছেন। অভিযোগ উঠেছে, নির্বাচন অফিসের কর্তাব্যক্তিকে ম্যানেজ করেই বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে মহাসড়কে মিছিল ও গণসংযোগের নামে শোডাউনের আয়োজন করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে ও সরেজমিনে দেখা গেছে, খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও সাবেক রাষ্ট্রদূত মীর মোহাম্মদ নাসির বিএনপির মেয়র প্রার্থী তৌহিদুল আলমের ধানের শীষের পক্ষে শোডাউন ও মিছিলের আয়োজন করে। আওয়ামী সুপার মার্কেট এলাকায় গণসংযোগের নামে শোডাউন শেষ করে মহাসড়কে বিশাল আকারে মিছিল বের করে। এখানে আওয়ামী লীগ নৌকার প্রার্থী অধ্যাপক হারুনুর রশিদ, জাতীয় পার্টি লাঙ্গলের প্রার্থী শামশুল আলম মাস্টার ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী নারকেল প্রতীক নিয়ে মুহাম্মদ ইব্রাহিম মেয়র পদে লড়ছেন। আচরণবিধি ভঙ্গ করে বিএনপির প্রার্থী ও সমর্থকরা মিছিল বের করায় অন্য প্রার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

আখাউড়ার অলিগলি উৎসবমুখর

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ আখাউড়া পৌরসভা পোস্টার, ব্যানার ও ক্যালেন্ডারে ছেয়ে গেছে। পাড়া-মহল্লায় বিরাজ করছে নির্বাচনী হাওয়া। সবখানে উৎসবমুখর পরিবেশ। পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে চায়ের স্টল থেকে শুরু করে হাটবাজারসহ সর্বত্রই প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠছে। প্রার্থীদের সম্পর্কে চলছে বিশ্লেষণ। প্রার্থীরা যে যার মতো করে কর্মী বাহিনী নিয়ে কাঁকডাকা ভোরে বের হয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভোট চাইছেন। চষে বেড়াচ্ছেন এক বাড়ি থেকে অন্য বাড়ি। এভাবেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন মানুষের দোয়া ও ভোট চাইতে। ফিরছেন গভীর রাতে। এখানে লড়াই হবে নৌকা আর ধানের শীষ প্রতীকের মধ্যে। মেয়রপদে লড়ছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র ও জেলা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল (নৌকা), বিএনপি থেকে উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও কাউন্সিলর মন্তাজ মিয়া (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র প্রার্থী কাউন্সিলর সৈয়দ মশিউর রহমান বাবুল, এ্যাডভোকেট সোহেল ভূঞা, সালাহ উদ্দিন আল হোসাইন চৌধুরী।