১৮ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বগুড়ায় পিঠা উৎসবে দেশ এগিয়ে নেয়ার আহ্বান

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ বাঙালী ঐতিহ্যের অন্যতম অনুষঙ্গ শীতের পিঠা। আর বাঙালীর শ্রেষ্ঠতম অর্জন মহান মুক্তিযুদ্ধ। বিজয়ের এই মাসে পিঠা ও বিজয়ের বীরত্বে গাথা গল্পে শনিবার উৎসবমুখরতায় মেতে উঠেছিল বগুড়া সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ। নতুন প্রজন্মের মাঝে বিজয়ে গল্প আর চিরন্তন পিঠা উৎসবের আয়োজনকে অন্যমাত্রায় নিয়ে যান বিশিষ্ট সাহিত্যিক লেখক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। মহান মুক্তি সংগ্রামের কথা বলে তিনি আহ্বান জানালেন মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন পূরণের মাধ্যমে তাদের ঋণ পরিশোধের।

‘মাগো, তুমি যখন এ পত্র পাবে আমি তখন তোমার থেকে অনেক দূরে থাকব। মা, জানি তুমি আমাকে যেতে দিবে না, তাই তোমাকে না বলে চলে যাচ্ছি... এই মাতৃভূমি সোনার বাংলাকে যে দিন শত্রুমুক্ত করতে পারব, সেদিন তোমার ছেলে তোমার কোলে ফিরে আসবে’। রণাঙ্গন থেকে মা’কে লেখা এক মুক্তিযোদ্ধার চিঠি উপস্থাপনার মাধ্যমে যখন বিজয়ের গল্প শোনার আয়োজনের শুরু তখন চারদিকে নীরবতা। মায়ের কাছে লেখা চিঠির দৃঢ়তা ও আকুতি সকলকে ছুঁয়ে যায়। ছেলে মাকে দেয়া সেই অঙ্গীকার রেখেছিলেন। নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও কষ্টার্জিত অর্জনকে তুলে ধরার জন্য বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র বগুড়া ও সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় যৌথভাবে আয়োজন করেছিল বিজয়ের গল্প শোন’ অনুষ্ঠান। আর এ অনুষ্ঠানের সঙ্গে ছিল বাঙালীর চিরায়ত পিঠা উৎসব।

নেত্রকোনায় আসামির বাড়িতে হামলা অগ্নিসংযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, নেত্রকোনা, ২৬ ডিসেম্বর ॥ জেলার কেন্দুয়া উপজেলার পেরিরচর গ্রামে খুনের ঘটনার জের ধরে আসামিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা, ব্যাপক ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে বাদী পক্ষের লোকজন। বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, গত ১৮ ডিসেম্বর পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পেরিরচর গ্রামের মৃত নায়েব আলীর ছেলে আমিনুল ইসলাম সনজু খুন হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই সবুজ মিয়া বাদী হয়ে একই গ্রামের দুদু মহুরীসহ ১৬ জনকে আসামি করে কেন্দুয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। বৃহস্পতিবার রাতে বাদী পক্ষের লোকজন ওই আসামিদের ১০-১২টি ঘরে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। কেন্দুয়া থানার ওসি অভিরঞ্জন দেব জানান, আগুনে ৬টি ঘর পুড়ে গেছে। তবে ক্ষতিগ্রস্তরা এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ করেনি। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।