১৫ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ের সঙ্গে যুক্ত হতে চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আফগানিস্তানও

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। এক টেস্ট ও তিন টি২০ ম্যাচের সিরিজও হতে পারে। আবার ৫ ম্যাচের টি২০ সিরিজও হতে পারে। এখন পর্যন্ত কোন কিছুই নিশ্চিত হয়নি। তবে বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ে সিরিজ যে হবে, তা নিশ্চিত। এর মধ্যে আবার এ সিরিজে যুক্ত হতে চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজও। সেই সঙ্গে এশিয়া কাপের বাছাইপর্ব খেলার আগে আফগানিস্তানও বাংলাদেশের মাটিতে খেলতে চায়। আর সেই সুযোগটি বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ের যে সিরিজ হবে সেই সময়ই চায়।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ যে খেলতে চেয়েছে তা নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনই। তবে আফগানিস্তানের বিষয়টি বিসিবির একটি সূত্রে জানা গেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ কেন খেলতে চায়? জানা গেল, টি২০ বিশ্বকাপ হবে ভারতে। ভারতের কন্ডিশনের সঙ্গে যেহেতু বাংলাদেশের কন্ডিশনের মিল রয়েছে এ জন্য বাংলাদেশের আবহাওয়ায় খেলে খানিকটা মানিয়ে নিতে চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটাররা। ঠিক তেমনি আফগানিস্তানও ১৯ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় এশিয়া কাপের বাছাইপর্বে খেলতে নামার আগে এ দেশের পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে চায়। যেন এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে নিতে পারে। হংকং, ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতকে পেছনে ফেলে যেন বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ২৪ ফেব্রুয়ারি শুরু হতে যাওয়া এশিয়া কাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলতে পারে। যদি বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ে সিরিজে কোনভাবে ঢুকে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তান তাহলে চারজাতি টি২০ সিরিজই হয়ে যাবে!

বিসিবি সভাপতি শনিবার বললেন, ‘আরেকটা তৃতীয় দেশও আমাদের সঙ্গে টি২০ খেলতে চাচ্ছে। যেহেতু এশিয়া কাপ, বিশ্বকাপ আছে সামনে। বিশেষ করে বিশ্বকাপ। আমাদের প্রস্তুতিটা হয়ে যাক এ উপমহাদেশের কন্ডিশনে। এ ধরনের কথাবার্তাও চলছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকেও ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। যদি এখন তিনজাতি সিরিজ হয়। তাহলে একরকম ফরমেটে খেলা হবে। আর যদি দুটি দেশের মধ্যে খেলা হয় তাহলে আরেকরকম ফরমেটে খেলা হবে। কোন কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। আগামী বোর্ড সভাতেই সব চূড়ান্ত হবে।’ ওয়েস্ট ইন্ডিজ এখন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলছে। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শেষ হবে ৭ জানুয়ারি। এরপর টি২০ বিশ্বকাপের আগে আর কোন খেলা নেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের। তাই যদি বাংলাদেশে খেলা যায় সমস্যা কোথায়? সেই চিন্তাই করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আফগানিস্তান এখন জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষেই খেলছে। দুই দলের মধ্যকার ৫ ওয়ানডে ও ২ টি২০ ম্যাচের সিরিজ চলছে। সিরিজ শেষ হবে ১০ জানুয়ারি। এরপর এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের আগে আফগানিস্তানের কোন খেলা নেই। বাংলাদেশেই যেহেতু এশিয়া কাপের বাছাইপর্ব হবে, তাই এর আগে যদি বাংলাদেশেই খেলা যায়, সমস্যা কোথায়? তাই আফগানরাও খেলতে চাচ্ছে। তবে শেষপর্যন্ত সব বাদ দিয়ে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি২০ সিরিজই হতে পারে। টেস্ট যে হবে না সেই ইঙ্গিত দিয়ে দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। তাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছে, একমাত্র টেস্টটা হতে পারে তাহলে টি২০ বিশ্বকাপের পরই? নাজমুল হাসান পাপন জানালেন, ‘হ্যাঁ।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘ওদেরতো (জিম্বাবুইয়ে) পাওয়া যাবেই। আমাদের এখানে এসেও বিশ্বকাপের পর খেলতে পারে। আবার ওদের ওখানে গিয়েও খেলতে পারি।’ সামনে টি২০ খেলা বলেই বিসিবি সভাপতি জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে এ মুহূর্তে জাতীয় দলকে কোন টেস্ট খেলাতে চাচ্ছে না। যদি আবার জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে টি২০ আগে হয়ে টেস্ট হয় পরে, তাহলে এশিয়া কাপ খেলতে নামতে হবে টেস্ট খেলে। তাই টেস্ট না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

আবার সিরিজও তাড়াতাড়ি শেষ করতে হবে। পাকিস্তান সুপার লীগ (পিএসএল টি২০) শুরু হবে ৪ ফেব্রুয়ারি। শেষ হবে ২৪ ফেব্রুয়ারি। এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ থেকে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম ও মুস্তাফিজুর রহমান খেলার সুযোগ পেয়েছেন। এখন সিরিজ তাড়াতাড়ি শেষ না করলে পিএসএলে খেলতে যেতে পারবেন না সাকিব, তামিম, মুশফিক ও মুস্তাফিজ।