১৪ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তবু দায় নিতে নারাজ কোচ মারুফুল

স্পোর্টস রিপোর্টার, ত্রিভান্দ্রাম, কেরল থেকে ॥ ‘দিনটা আজ আমাদের ছিল না। একাধিক আক্রমণ আমরা করেছি, বিপক্ষ দলও করেছে। কিন্তু তা থেকে আমরা মাত্র একবার সফল হয়েছি। আর তারা তিনবার। দুটি গোল আমরা নিশ্চিত করতে পারলে খেলার ফল অন্যরকম হতে পারতো।’ কথাগুলো মারুফুল হকের। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের নতুন এই কোচের স্বপ্ন ছিল দীর্ঘ এক যুগ পর আবারও জর্জ কোটানের মতো সফল হবেন। ২০০৩ সালে কোটানই কোচ হিসেবে সর্বশেষ সাফের শিরোপা এনে দিয়েছিলেন বাংলাদেশকে। কিন্তু আফগানিস্তানের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে বড় ব্যবধানে হেরে বড় রকমের ধাক্কা খেয়েছিল বাংলাদেশ, গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের কাছে ৩-১ গোলে হেরে আরেকটি ধাক্কায় একেবারে মুখ থুবড়ে পড়লো বাংলাদেশ। এই হারে সাফ ফুটবল থেকে বিদায় নিল বাংলাদেশ। যদিও এখনও তাদের আরেকটি গ্রুপ ম্যাচ বাকি আছে। কিন্তু ভুটানকে হারালেও সেমিফাইনালে যাওয়ার আশা পূরণ হবে না তাদের।

শনিবার ম্যাচ শেষে মারুফুলকে সংবাদ সম্মেলনে দেখাচ্ছিল বিমর্ষ। তিনি বলেন, ‘আসলে বয়সভিত্তিক পর্যায়েই বাংলাদেশ দল বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে। সিনিয়র পর্যায়ে গিয়েও সেটা অব্যাহত থাকে। সেটারই প্রতিফলন ঘটেছে আজ।’ ম্যাচ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘দেশে থাকতে আমরা সেটপিস নিয়ে অনেক কাজ করেছি। কিন্তু ম্যাচে সেগুলোর বাস্তবায়ন ঘটাতে পারেনি ছেলেরা। ম্যাচে জিততে হলে আক্রমণে যেতে হবে। আমরা আক্রমণ করেছি, কিন্তু ব্যর্থ হয়েছি। ওরা হয়নি।’

মালদ্বীপের নিউজিল্যান্ডার কোচ হার্বাট লয়েড বলেন, ‘আমার ছেলেরা খেলাটা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেছে। তারা খেলেছে পরিকল্পনা মাফিক ফুটবল। এই জয়ে আমি খুশি। আত্মবিশ্বাসী ছিলাম জয়ের ব্যাপারে। মাঠে উপস্থিত মালদ্বীপের দর্শকরা আমাদের অনেক অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। যদিও আফগাস্তিান বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এবং যথেষ্ট শক্তিশালী দল, তারপরও পরের ম্যাচে জিততে চেষ্টা করবো।’