১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদাকে ‘পেয়ারে’ পাকিস্তানে ফেরার পরামর্শ দিলেন জয়

  • ফেসবুক স্ট্যাটাস

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালানো ও বিতর্কিত বক্তব্যের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বাড়ির সামনে গিয়ে প্রতিবাদ জানাতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

শনিবার ভোরে নিজের ফেসবুক পেজে লেখা স্ট্যাটাসে সজীব ওয়াজেদ জয় লেখেন- ‘আমি সবাইকে আহ্বান জানাচ্ছি খালেদার বাড়ির সামনে প্রতিবাদ জানাতে যান। বিএনপি এবং তাকে দেখান যে, তার পাকি প্রভুরা এবং জামায়াতী পোষা গু-ারা আমাদের ভাই-বোনদের যেভাবে হত্যা করেছে, সেই স্মৃতি অপপ্রচার চালিয়ে মুছে ফেলা যাবে না। আমার সঙ্গে একত্রে দাবি জানান, খালেদা পাকিস্তানে ফিরে যা।’

গত ২১ ডিসেম্বর মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের সংখ্যা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকেও কটাক্ষ করেন। তার ওই বক্তব্য নিয়ে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে। প্রকাশ্যে জাতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে ওই বক্তব্য প্রত্যাহারের জন্যও খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানান দেশের বুদ্ধিজীবী থেকে শুরু করে বিভিন্ন পেশার মানুষ। এ অবস্থার মধ্যে বিএনপি নেতাদের খালেদা জিয়ার পক্ষে অবস্থান নিয়ে আবারও শহীদদের নিয়ে কটাক্ষপূর্ণ বক্তব্যের পরই বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রতিক্রিয়া এলো।

স্ট্যাটাসে জয় আরও লেখেন- ‘আমি ক্ষুব্ধ যে বিজয়ের মাসে খালেদা জিয়া এবং তার দল বিএনপি আমাদের মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাচ্ছে। খালেদা জিয়া নৃশংস পাক আর্মি ও তাদের সহযোগী খুনী জামায়াত-ই-ইসলামী কর্তৃক আমাদের নিরীহ বেসামরিক নাগরিকদের হত্যাকা-ের সংখ্যাকে পাকিস্তানীদের মতোই কমিয়ে বলে আসছে। সে দাবি করছে মাত্র কয়েক শত-হাজার হত্যা হয়েছে। আজ বিএনপি এমনকি সেই মৃতের সংখ্যার ওপর জনমত জরিপ করতে বলছে!’

তিনি লেখেন- ‘স্বীকৃত সত্য সব সময়ই সত্য। সেটা কখনও জরিপ দিয়ে নির্ণীত হয় না। ৩০ লাখ পুরুষ, নারী এবং শিশুকে ঠা-া মাথায় হত্যা করা হয়েছিল। হিন্দুদের নির্যাতন ও দেখামাত্র গুলি করা হয়েছিল। সমস্ত গ্রাম উজাড় করে ফেলা হয়েছিল। এমনকি যখন তারা আত্মসমর্পণ করতে রাজি হয়েছিল, তখনও তারা আমাদের সেরা বুদ্ধিজীবীদের ধরে নিয়ে গিয়ে সবাইকে হত্যা করেছিল। এগুলো যুদ্ধে হতাহতের কোন ঘটনা ছিল না। এসব ছিল গণহত্যা।’

সজীব ওয়াজেদ জয় স্ট্যাটাসে লেখেন- ‘খালেদা এখন আবারও এসব খুনীদের রক্ষা করতে চেষ্টা করছে। সে নৃশংসতার শিকার মানুষগুলোর খুনীদেরই মন্ত্রী বানিয়েছে। সে এখন থুতু ফেলেছে ৩০ লাখ শহীদের কবরে এবং থুতু ফেলেছে আমাদের দেশের মুখে। এরপর আমার আর এই মহিলার প্রতি বিন্দুমাত্র শ্রদ্ধা অবশিষ্ট নেই। আমি ঘৃণা করি যে, সে কোন সময় আমাদের জাতির প্রধানমন্ত্রী ছিল। তার বাংলাদেশ থেকে বিদায় হওয়া এবং তার ভালবাসার পাকিস্তানে গিয়ে থাকা উচিত।’