১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাবধান! টাকা লুটতে আসছে চীনা সাইবার ক্রিমিনাল

অর্থনৈতিক রিপোর্টার॥ যাদের বিরুদ্ধে লড়তে হবে, তারা অতটা সস্তা নয়! বাজারে চীনা পণ্যের মতো!তারা আমার-আপনার ব্যাঙ্ক, বিমায় হানা দিতে আসছে! আমাদের অনেক কষ্টে জমানো টাকা লুঠ করতে আসছে। বিমার টাকা হাপিশ করতে আসছে। ভারতের ছোট, বড়, মাঝারি ব্যবসায়ী আর শিল্পপতিদের ব্যবসা-বাণিজ্য তারা লাটে তুলে দেওয়ার ফন্দি এঁটেছে।

তারা চীনা সাইবার ক্রিমিনাল। ২০১৬ সালে যারা ভারতকে টার্গেট করেছে। গত দেড় বছর ধরে বিভিন্ন সূচকের মানদণ্ডে ভারতের অর্থনীতি অনেক বেশি সুস্থ-সবল হয়ে ওঠায় চীনা সাইবার ক্রিমিনালদের মূল টার্গেট এখন হিন্দুস্তান। প্রতিবেশী দেশ হিসাবে বাংলাদেশও এর বাইরে নয়।

সাইবার হানাদারি নিয়ে খ্যাতনামা বহুজাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘ট্রেন্ড মাইক্রো’ তাদের সাম্প্রতিক রিপোর্টে এই খবর দিয়েছে। জানিয়েছে, চীনা ভাষার ওই সাইবার ব্ল্যাক মার্কেটের ব্যবসা আসছে বছরে দুদ্দাড়িয়ে বাড়বে ভারত ও ইউরোপের দেশগুলোতে। আর তাতে আমজনতা থেকে শুরু করে ভারতীয় শিল্পপতি, ব্যবসায়ী- সকলেরই গভীর উদ্বেগের কারণ রয়েছে।

সাইবার হানাদারির জন্য নিত্য নতুন সর্বাধুনিক প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ব্যাপারে চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা বরাবরই তাদের দক্ষতা প্রমাণ করেছে। বিশ্বে এখন প্রথম দশটি শক্তিশালী সাইবার ক্রিমিনাল চক্রের অন্তত ছ’টির ‘ওয়ার্কিং ব্রেন’ চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা। হানাদারিকে আরও নিখুঁত করে তুলতে নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের নিরিখে চীনারাই ওই সাইবার ক্রিমিনাল চক্রগুলোকে উত্তরোত্তর শক্তিশালী করে তুলছে।

আন্তর্জাতিক সাইবার ক্রিমিনালদের এমনই একটি ‘আন্ডারগ্রাউন্ড ওয়েবসাইটে’র নাম- ‘Deep Web’। বড় বড় সরকারি সংস্থা, ব্যাঙ্ক, বাণিজ্যিক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, কর্পোরেট সংস্থা এবং প্রতিরক্ষা সামগ্রী ও সরঞ্জামের চুরি করা তথ্যগুলো চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা রাখছে অত্যন্ত গোপন ওই ‘ডিপ ওয়েব’ সার্চ ইঞ্জিনে। যার তল পেতে তথ্যপ্রযুক্তির নিরাপত্তা সরঞ্জামের নির্মাতা সংস্থাগুলোর বিশেষজ্ঞদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

‘ট্রেন্ড মাইক্রো’-র রিপোর্ট জানাচ্ছে, এই ‘ডিপ ওয়েব’ সার্চ ইঞ্জিনের হানাদারি নতুন বছরে খুব বেড়ে যাবে ভারত ও ইউরোপের দেশগুলোতে। ভারতে জাপানি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ‘ফুজিৎসু ইন্ডিয়া’র কান্ট্রি ম্যানেজার মেহুল দোশি জানিয়েছেন, ‘আগামী বছর ভারত ও ইউরোপে আরও একটি ‘আন্ডারগ্রাউন্ড ওয়েবসাইট’-এর রমরমা দেখা যাবে। ওই ওয়েবসাইটটিরও জন্ম দিয়েছে চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা। তার নাম- ‘SheYun’ বা ‘শিইউন’। এটি একটি অদ্ভুত রকমের ওয়েবসাইট। যা আপনাকে বিনা পয়সায় মোবাইল ফোন, আইফোন, আইপ্যাড, ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, ট্যাবলেটে নিরাপত্তা সামগ্রী ও সরঞ্জাম (যাকে ‘সিকিওরিটি সলিউশনস’ বলে) দিতে চাইবে। নিখরচায় দিতে চাইবে আমার-আপনার অত্যন্ত গোপনীয় ব্যক্তিগত ও বাণিজ্যিক লেনদেনের সুরক্ষা-প্রযুক্তি। এই ভারেই ওই চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা আমার-আপনার ব্যাঙ্ক, বিমার টাকা লুঠ করে নেবে। বড় বড় শিল্প সংস্থার অ্যাকাউন্টসও তারা এই ভাবেই নয়ছয় করে দেবে।’

ভারতে আরও একটি জাপানি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ‘হিতাচি-ইন্ডিয়া’র কান্ট্রি ম্যানেজার সুশীল বান্দি জানিয়েছেন, ‘শিউইন ওয়েবসাইটের ফাঁদে বেশি পড়ার সম্ভাবনা থাকবে ব্যবসায়ী, শিল্পপতিদেরই। কারণ, তাঁরা অনেক সময়েই কিছু কিছু কি-ওয়ার্ডের ‘সার্চ রেজাল্টস’-এ পাওয়া তথ্যাদি মুছে বা অন্যত্র সরিয়ে ফেলতে চান। তাদের জন্য কিছু লোভনীয় ‘সলিউশনে’র অফার দেওয়া থাকবে ওই ‘SheYun’ ওয়েবসাইটে। এর জন্য ওই চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা প্রত্যেকটি কি-ওয়ার্ডের জন্য ‘চার্জ’ নেবে একশো ইউয়ান বা দশ পাউন্ড।’

‘ট্রেন্ড মাইক্রো’-র রিপোর্ট আরও জানাচ্ছে, নতুন বছরে ভারতে হানাদারি চালানোর জন্য চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা ব্যবহার করবে আরও দু’টি অত্যন্ত গোপন সার্চ-ইঞ্জিন। তাদের নাম- ‘পাস-বেস’ ও ‘তুয়োমিমা’। এই সার্চ-ইঞ্জিন ব্যবহার করার জন্য চীনা সাইবার ক্রিমিনালরা বছরে ৬৮ ইউয়ান বা সাত পাউন্ড করে নেবে আমার-আপনার কাছ থেকে।

##