২০ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেরলে সান্ত্বনার জয়ের খোঁজে বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার, ত্রিভানদ্রাম, কেরল থেকে ॥ অথই সাগরে তালিয়ে যাওয়ার আগে নাকি ডুবন্ত ব্যক্তি খড়কুটো পেলে সেটাও প্রাণপণে আঁকড়ে ধরতে চায়। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলেরও এখন হয়েছে সেই দশা! সাফ সুজকি কাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে আগেই। সাফে ব্যর্থতার কারণে বাফুফে এর কারণ খুঁজতে গঠন করেছে তদন্ত কমিটি। কোচ মারুফুল হক পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। অধিনায়ক হিসেবে মামুনুল খেলবেন আর একটি মাত্র ম্যাচ। সেটা আজ গ্রুপ ‘বি’র শেষ ম্যাচ বাংলাদেশ বনাম ভুটান ম্যাচেই। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

এক যুগ আগে সর্বশেষ সাফে শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ। সেই শিরোপা পুনরুদ্ধারের স্বপ্ন খান খান হয়ে যাওয়ার পর বাংলাদেশের লক্ষ্য এখন ভুটানকে হারিয়ে সান্ত¡নার ‘সবেধন নীলমণি’র একমাত্র জয়টুকু নিয়ে দেশে ফেরার। সাধ আছে ঠিকই, কিন্তু সাধ্য আছে কি না, সেটা আন্দাজ করা মুশকিলই বটে! ত্রিভানদ্রাম স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিতব্য আজকের ম্যাচটি গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেয়া ভুটানের জন্যও হতে পারে সান্ত¡না পাওয়ার এবং জয়ের ম্যাচ!

ফিফার র‌্যাঙ্কিংয়ে অবশ্য ভুটানের চেয়ে বাংলাদেশই এগিয়ে। ভুটান ১৮৮, বাংলাদেশ ১৮২। চার ম্যাচের মুখোমুখিতে বাংলাদেশের জয় তিনটি, বাকি ম্যাচটি ড্র। র‌্যাঙ্কিং ও পরিসংখ্যান পক্ষে থাকলেও বাংলাদেশকে নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা জটিল বিষয়।

গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে ৪-০ এবং দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের কাছে ৩-১ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশ। দুই বড় হারে তাই দলের কারুর কণ্ঠেই নেই আত্মবিশ্বাসের সুর। দলের লেফটব্যাক ওয়ালী ফয়সাল বলেন, ‘টুর্নামেন্টে এটাই আমাদের শেষ ম্যাচ। অন্তত একটা জয় নিয়ে দেশে ফিরতে চাই আমরা।’

নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে ভুটান হেরেছে নেপালের কাছে ৩-১ এবং আফগানিস্তানের কাছে ৩-০ গোলে। হারলেও বাংলাদেশের মতো এত বাজে খেলেনি তারা। এজন্য অনেকেই মনে করছেন, ভুটানকেও হারানো অসম্ভব হতে পারে বাংলাদেশের জন্য! যদিও ভুটান-বধে তাদের ম্যাচগুলোর ভিডিও নিয়ে ইতোমধ্যেই প্রয়োজনীয় ‘হোমওয়ার্ক’ করেছেন বাংলাদেশের বিদায়ী কোচ মারুফুল। কিন্তু তাতে কী কোন ফায়দা হবে? গত দুই ম্যাচে নিজের শিষ্যদের অমার্জনীয় ও হাস্যকর সব ভুল দেখে ভুটান ম্যাচের জন্য সেরা একাদশে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছেন মারুফুল, ‘দলে পরিবর্তন আসবে। অনেক কিছু পরিবর্তন করব। কেননা, এটা শেষ ম্যাচ।’ তিনি আরও বলেন, ‘ভুলটা আমারই হয়েছে। এমনকি নিজেকে এখন পরাজিত সৈনিক বলেও মনে হচ্ছে! আমার কথা নিয়ে কী হবে? আমার কথার তো এখন আর কোন মূল্য নেই।’ মারুফুল একবারও উচ্চারণ করেননি ‘জিততে চাই’ বাক্যটি। বরং বলেন, ‘আমি ওই সময় (দায়িত্ব নেয়ার সময়) খেলোয়াড়দের ওভাররেট করেছিলাম। ভুলটা আসলে আমারই ছিল।’

ঘরোয়া ফুটবলে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে ট্রেবল জেতানোর কৃতিত্ব আছে তার। মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাবকেও সাফল্যে ভাসিয়েছেন তিনি। জাতীয় দলের দায়িত্বটাও ৪৬ বছর বয়সী এই কোচ নিয়েছিলেন ‘চ্যালেঞ্জ’ হিসেবে। তাতে তিনি ‘পরাজিত সৈনিক!’ বলেন, ‘সত্যি বলতে, আমার আর ইচ্ছা নেই। তবে এবার যদি আমাকে দায়িত্ব নিতে বলা হয়, তাহলে দীর্ঘমেয়াদে দিতে হবে।’ শর্ত জুড়ে দিলেন মারুফুল।

শুধু সাফ ফুটবলের জন্যই দায়িত্ব পেয়েছিলেন মারুফুল। বাফুফে তখন বলেছিল সাফের শিরোপা জিতলে দায়িত্বের মেয়াদ বাড়বে, নইলে বিদায়। শেষে নিজ থেকেই ব্যর্থতার দায় নিয়ে বিদায় নিচ্ছেন মারুফুল। তবে বিদায়ের আগে কি ভুটানকে হারিয়ে সান্ত¡নার জয় উপহার দিতে পারবেন মারুফুল? সেটাই এখন দেখার বিষয়।