২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উপজেলা হাসপাতালে জরুরী সেবা ২৪ ঘণ্টা চালু রাখার নির্দেশ

  • স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে নাসিম

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ উপজেলা হাসপাতালগুলোতে জরুরী বিভাগের সেবা ২৪ ঘণ্টা চালু রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। এজন্য চিকিৎসক, নার্সসহ প্রয়োজনীয় জনবলের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা নিতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দেন তিনি। সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘তৃণমূল পর্যায়ে সেবার মান বাড়াতে করণীয়’ বিষয়ে এক বৈঠকে সভাপতিত্বকালে তিনি এ নির্দেশ দেন।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ করছে, অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে উপজেলা পর্যন্ত সব হাসপাতালকে সমৃদ্ধ করে তুলেছে। গ্রাম পর্যায়ে ছয় হাজারের বেশি চিকিৎসক নিয়োগ দিয়ে চিকিৎসক সঙ্কট দূর করা হয়েছে। তারপরও উপজেলা হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টা জরুরী বিভাগ চালু থাকবে না, তা হতে পারে না। গ্রামাঞ্চলে যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটলে সাধারণ মানুষ যেন দ্রুত জরুরী সেবা পায় তা নিশ্চিত করতে হবে। চিকিৎসক, নার্সসহ প্রয়োজনীয় জনবল যেন জরুরী বিভাগে সার্বক্ষণিক থাকে তার ব্যবস্থা করতে হবে। কোনভাবেই উপজেলা হাসপাতালে সার্বক্ষণিক জরুরী চিকিৎসা ব্যাহত হতে দেয়া যাবে না। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গ্রামপর্যায়ে সরকার হাসপাতালের শয্যা বাড়ালেও প্রয়োজনীয় নার্সসহ তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী কম থাকায় রোগীর সেবায় বিঘœ ঘটছে। জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হাসপাতালে চিকিৎসক অনুপাতে নার্স এবং তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী নিয়োগে দ্রুত উদ্যোগ নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, প্রয়োজনীয় জনবল না থাকায় মানুষ একদিকে যেমন চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, তেমনি সরকারী ভবন ও আধুনিক যন্ত্রপাতিও অব্যবহৃত থেকে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই যত দ্রুত সম্ভব হাসপাতালগুলোতে জনবলের শূন্যতা পূরণে উদ্যোগ নেয়া দরকার। সভায় দেশের কয়েকটি জেলায় সিভিল সার্জন পদে যোগ্যতা ও দক্ষতার ভিত্তিতে কয়েকজন চিকিৎসককে পদায়নের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এ সময় স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মন্জুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাঃ দীন মোঃ নুরুল হকসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিশেষায়িত হাসপাতালে এনজিওগ্রাম চালু ॥ গাজীপুরের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতালে সোমবার থেকে এনজিওগ্রাম ও এনজিওপ্লাস্টি সেবা চালু হয়েছে। অধ্যাপক ডাঃ আফজালুর রহমান সকালে হাসপাতালে প্রথম এনজিওগ্রাম করান। সেখানে সোমবার দু’জনের এনজিওগ্রাম এবং একজনের এনজিওপ্লাস্টি করানো হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালের ১৮ নবেম্বর এই হাসপাতাল উদ্বোধন করেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম হাসপাতালটিকে পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করতে বেশ কয়েকবার তা পরিদর্শন করেন এবং মন্ত্রণালয় ও হাসপাতালে কয়েকটি বৈঠক করেন।